এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "state govt"

রাজ্য সরকারের বেতন নীতি নিয়ে এবার প্রশ্ন তুললেন দলের হেভিওয়েট নেতা

বকেয়া বেতনের দাবিতে বিভিন্ন সময়ে রাজ্য সরকারি কর্মী সংগঠনের নেতাদেরকে সরকারের বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলতে দেখা গেছে। তবে পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত রাজ্য সরকারের বেতন নীতি নিয়ে এবার প্রশ্ন তুলতে দেখা গেল তৃণমূল প্রভাবিত সরকারি কর্মচারী সংগঠনের এক প্রথম সারির নেতাকে। বস্তুত, পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারি কর্মচারী ফেডারেশনের আহবায়ক তপন গড়াই বকেয়া বেতনের

বড়সড় সুখবর রাজ্য সরকারি কর্মীদের জন্য, বাড়ছে বেতন জেনে নিন

  দীর্ঘদিন ধরেই বেতন বৃদ্ধি নিয়ে রাজ্যের তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে সরব সরকারি কর্মচারীরা। কিন্তু অবশেষে নতুন বছরে নতুন সুখবর পেতে চলেছেন রাজ্যের সেই সরকারি কর্মচারীরা। সূত্রের খবর, আগামীকাল 2020 সালের পয়লা জানুয়ারি থেকেই রাজ্যের সরকারি কর্মচারীদের জন্য লাগু হচ্ছে ষষ্ঠ বেতন কমিশন। যা নিঃসন্দেহে নতুন বছরের শুরুর দিনে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের মনে

রাজ্যপালের লাগাতার চাপের কাছে নতিস্বীকার প্রশাসনের! আজ সাক্ষাতে যাচ্ছেন 2 উচ্চপদস্থ আমলা

  সম্প্রতি ভারতবর্ষের সংসদভবনে পাশ হয়ে গেছে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল। যে বিল পাস হওয়ার সাথে সাথেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে উত্তাপ ছড়িয়ে পড়তে শুরু করেছে। যার ব্যতিক্রম নয় পশ্চিমবঙ্গও। পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় এই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরুদ্ধে সরব হয়ে একাংশ বিক্ষোভ সংগঠিত করেছেন। যার ফলে রাজ্যের কিছু অংশে তৈরি হয়েছে অচলাবস্থা। কোথাও

মেয়াদ পুরো করতে পারবে না রাজ্য সরকার? জল্পনা বাড়িয়ে দিলেন খোদ অনুব্রত মণ্ডল

  নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন লাগু হবার পর থেকেই বাংলায় বিক্ষোভ ভয়ঙ্কর আকার ধারণ করেছে। উন্মত্ত জনতা কোথাও স্টেশন পুড়িয়ে দিচ্ছে, আবার কোথাও বা রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে পথ অবরোধ করছে। আর এই পরিস্থিতিতে প্রথম থেকেই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরোধিতা করে আসা রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন।

প্রতিবাদের নামে গত কয়েকদিনের তাণ্ডবে সরকারি সম্পত্তির ক্ষতির পরিমাণ শুনলে চোখ কপালে উঠবে!

  সম্প্রতি সংসদের দুই কক্ষ পাস হয়ে গিয়েছে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল। ইতিমধ্যেই সেই বিলে স্বাক্ষর করে দিয়েছেন মহামহিম রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। যার ফলে সেই বিল এখন আইনে পরিণত হয়ে গিয়েছে। আর এই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল আইনে পরিণত হয়ে যাওয়ার পরই উত্তর-পূর্ব ভারতে শুরু হয়েছে বিক্ষোভ। যার প্রভাব পড়েছে বাংলাতেও। ইতিমধ্যেই এই

বর্ধিত বেতন কবে থেকে? সরকার “অপশন” চাইতেই চূড়ান্ত বিভ্রান্তি রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের!

  কথায় আছে, রাজা সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু আগে জনসাধারনের কাছ থেকে তাকে এই ব্যাপারে নানা পরামর্শ নিতে হয়। তাহলেই ঠিকমতো সুশাসন চলে। এক্ষেত্রেও ঠিক তাই। রাজ্য সরকারি কর্মীদের ষষ্ঠ বেতন কমিশনের সুপারিশের ভিত্তিতে বেতন বৃদ্ধি নিয়ে সেই কর্মীদের কাছ থেকেই এবার "অপশন" চাইতে শুরু করল রাজ্য সরকার। জানা গেছে, আগামী বছরের

রেশনে খাদ্য সামগ্রী দেওয়া নিয়ে কড়া সিদ্ধান্ত রাজ্য সরকারের, জেনে নিন বিস্তারিত

  এবার রাজ্যের মানুষদের রেশনে খাদ্য সামগ্রী দেওয়ার ব্যাপারে কড়া মনোভাব দিতে চলেছে রাজ্যের মা-মাটি-মানুষের সরকার। সূত্রের খবর, আধার নম্বর যাচাই করে এবারে রেশনে খাদ্য সামগ্রী দেয়া হবে। ইতিমধ্যেই এই ব্যাপারে রাজ্যের খাদ্য ভবন থেকে জেলা প্রশাসনের আধিকারিকদের কাছে চিঠি পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। জানা গেছে, গত 18 নভেম্বর খাদ্য দপ্তরের সচিব এস

অস্বস্তিতে রাজ্য সরকার, জেলা সফরে মন্ত্রীমশাই

  ক্ষমতায় আসার পর থেকেই গ্রাম পঞ্চায়েতের 100 দিনের কাজে জোর দিতে দেখা গিয়েছিল রাজ্যের বর্তমান তৃণমূল কংগ্রেসের সরকারকে। প্রায় প্রত্যেক বছরই 100 দিনের কাজে বাংলার সেরা সেরা হয়ে উঠেছে বলে দাবি করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু এবার সেই 100 দিনের কাজে বড়সড় ধাক্কা খেল রাজ্য সরকার। সূত্রের খবর, শুক্রবার পর্যন্ত রাজ্যের 100

রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে যুদ্ধং দেহি মনোভাব থেকে এখনই সরছেন না স্পষ্ট ইঙ্গিত রাজ্যপালের

  রাজ্য বনাম রাজ্যপালের সম্পর্কের তিক্ততা বর্তমানে চরম আকার ধারণ করেছে। রাজভবনের প্রধান ব্যক্তির পদে শপথ নেওয়ার পর থেকেই প্রায় বিভিন্ন ইস্যুতে তাঁর সঙ্গে রাজ্য সরকারের দূরত্ব বাড়তে শুরু করেছিল। আর বিভিন্ন ঘটনায় রাজ্যপালের অতি সক্রিয়তা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে দেখা গিয়েছিল রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে। সম্প্রতি এই ব্যাপারে নাম না করে

এবার রাজ্য সরকারের সঙ্গে রাজ্যপালের বিরোধ সংসদে তুলতে চলেছে তৃণমূল! বাড়ছে জল্পনা

  জাগদীপ ধনকার বাংলার রাজ্যপাল হওয়ার পর থেকেই রাজ্য সরকারের সঙ্গে তার বিভিন্ন ক্ষেত্রে দূরত্ব তৈরি হয়েছে। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শুরু করে জিয়াগঞ্জের ঘটনা, দুর্গাপুজোর কার্নিভাল থেকে শুরু করে প্রশাসনিক বৈঠক, বিভিন্ন ক্ষেত্রে সরকারের বিরুদ্ধে মন্তব্য করে শোরগোল তুলে দিয়েছিলেন তিনি। যার পরিপ্রেক্ষিতে তৃণমূলের পক্ষ থেকে বিভিন্ন সময়ে সেই রাজ্যপালকে "পদ্মপাল"

Top
error: Content is protected !!