এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "rural-party"

৯ সদস্যকে অপসারণ করল শাসক দল, বড়সড় শোরগোল

  2019 এর মধ্যবর্তী সময়টা খুব একটা ভালো যায়নি তৃণমূল কংগ্রেসের। লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল বিপর্যস্ত হওয়ার পর অনেক হেভিওয়েট নেতা তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেন। ব্যতিক্রম নয়, দক্ষিণ দিনাজপুর জেলাও। বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রে অর্পিতা ঘোষ পরাজিত হলে সেখানকার জেলা সভাপতি পদ থেকে বিপ্লব মিত্রকে সরিয়ে দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর তারপরেই জেলা পরিষদের

বিধানসভা ভোট জিততে শাসকদলকে মাত দিতে নয়া পদক্ষেপ বিজেপির

2014 সালের লোকসভা নির্বাচনে দিল্লির সাতটি লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে সবকটিতেই জয়লাভ করেছিল ভারতীয় জনতা পার্টি। 2015 সালের দিল্লী বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে তাই একপ্রকার নিশ্চিত ছিল পদ্মফুল শিবির। কিন্তু সেই নির্বাচনে আম আদমি পার্টির কাছে কার্যত মুখ থুবড়ে পড়তে হয় ভারতীয় জনতা পার্টিকে। এর কারণ হিসেবে অনেকেই মনে করছেন, আম আদমি পার্টির

উত্তরবঙ্গ তৃণমূলেরই প্রমাণে পাল্টা মহামিছিলের পথে শাসকদল! বিজেপির দ্বিগুণ জমায়েতের ডাক

  কলকাতায় নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের স্বপক্ষে মিছিল করে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি। মিছিলের জনসমাগম দেখে ইতিমধ্যেই তটস্থ শাসক দল তৃণমূলের বেশ কিছু নেতা নেত্রী। আর কলকাতার পর আজ মঙ্গলবার শিলিগুড়িতে উত্তরবঙ্গের সমস্ত সাংসদ, বিধায়কদের নিয়ে অভিনন্দন যাত্রা করতে চলেছে ভারতীয় জনতা পার্টি। তবে পুলিশের অনুমতি না পাওয়ায় ইতিমধ্যেই

প্রতিবাদের নামে তান্ডবকারীদের সমাজবিরোধী আখ্যা দিয়ে তৃনমূলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার ডাক শুভেন্দুর

  সিটিজেনশিপ আমেন্ডমেন্ট বিলের বিরুদ্ধে যারা হিংসাত্মক প্রতিবাদ ছড়াচ্ছে, তাদেরকে রীতিমত সমাজবিরোধী বলে আক্রমণ করতে দেখা গেল রাজ্যের হেভিওয়েট মন্ত্রী তথা প্রথম সারির তৃণমূল নেতা শুভেন্দু অধিকারীকে। গত রবিবার মেদিনীপুর শহরে তৃণমূল কংগ্রেসের আয়োজিত এনআরসি এবং সিটিজেনশিপ আমেন্ডমেন্ট বিরোধী মিছিলে যোগদান করেন পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। আর এই মিছিল থেকেই উগ্র আন্দোলনকারীদের উদ্দেশ্যে

বিধানসভায় বাজিমাত বুথ এজেন্টদের নিয়ে বড়সড় পরিকল্পনায় শাসক শিবির – জানুন বিস্তারিত

সাধারণ মানুষের পাশে সব সময় থাকতে হবে এবং তার ফলেই যে সাফল্য আসবে, তা লোকসভা নির্বাচনের পর জনসংযোগ কর্মসূচীর মধ্যে দিয়ে টের পেয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। লোকসভায় পর্যদুস্ত হওয়ার পর বুথ ভিত্তিক সংগঠনের ওপর জোর দিয়েছে রাজ্যের শাসক দল। আর তার ফলেই সদ্যসমাপ্ত রাজ্যের বিধানসভা উপনির্বাচনে সাফল্য পেয়েছে ঘাসফুল শিবির। ভোটার

কোচবিহারে আর শাসক বিরোধী হাওয়ায় নয়, সাংগঠনিক ক্ষমতায় জিততে মন্ডল কমিটি সাজিয়ে ফেলল বিজেপি

  2014 সালের পর 2019 সালে সারা ভারতবর্ষে মোদী ঝড়' কাজ করেছিল। আর তার ফলে যে ভারতীয় জনতা পার্টি বেশি আসন নিয়ে ক্ষমতায় এসেছে, তা স্বীকার করে নেন প্রত্যেকেই। বাংলায় তাদের সংগঠন পাকাপোক্ত না হওয়া সত্ত্বেও তৃণমূলের ভরকেন্দ্র গুলোতে ফুটে গিয়েছিল পদ্মফুল। আর বিজেপির এই সাফল্যের পেছনে মোদী ম্যাজিক কাজ করেছে

বাংলায় বিধানসভার “টার্গেট” জানাল মিম! সংখ্যালঘু ভোটে থাবা, ঘুম উড়তে চলেছে শাসকদল তৃণমূলের?

2019 সালের লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গে নতুনভাবে উত্থান ঘটেছে ভারতীয় জনতা পার্টির। তৃণমূলের ছোট, বড় সকল নেতারা যখন দাবি করছিল যে একটি বুথেও ভারতীয় জনতা পার্টি তৃণমূলের থেকে এগিয়ে থাকতে পারবে না, ঠিক সেই সময়ই রাজ্যের 18 টি লোকসভা কেন্দ্রে বেশ ভালো মার্জিনে জয়যুক্ত হয়ে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে ভারতীয়

চেষ্টাই সার, এবার রাজ্যের হেভিওয়েট দুই মন্ত্রীর সামনে এনআরসি আতঙ্ক, চাপে শাসকদল

  অসমে এনআরসির চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশের পর সেখানে অনেক হিন্দুর নাম বাদ গিয়েছে বলে দাবি করতে দেখা যায় বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোকে। আর অসমের পর বাংলাতেও এনআরসি করা হবে বলে মাঝেমধ্যেই বিজেপি নেতাদের মন্তব্যে প্রবল জল্পনা ছড়িয়ে পড়ে। তবে প্রথম থেকেই এইসব মন্তব্যে কান না দিয়ে তিনি থাকতে বাংলায় কোনো এনআরসি হতে

মমতার রোষানলে কারা? সর্বসমক্ষে কি বার্তা? তীব্র জল্পনা শাসকদলের অন্দরে?

  বিধানসভার পর লোকসভায় ভরাডুবির পর অবশেষে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় পা রাখতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সূত্রের খবর, আগামী 19 তারিখ গঙ্গারামপুর স্টেডিয়ামে প্রশাসনিক বৈঠক করবেন তিনি। তবে মুখ্যমন্ত্রীর প্রশাসনিক বৈঠক করতে আসলেও জেলা তৃণমূল নেতৃত্বের কপালে এখন ঘাম ঝরতে শুরু করেছে। কেননা গোষ্ঠী কোন্দলে জর্জরিত এই দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় এবার প্রশাসনিক

তৃণমূল নেত্রীর বৈঠকে ডাক পাবেন কারা! তীব্র জল্পনা শুরু শাসকদলের অন্দরেই!

  আর কিছুক্ষণের অপেক্ষা। তারপরেই মালদহে প্রশাসনিক বৈঠক করতে আসবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধানের এই মালদহ আগমনকে ঘিরে জেলা প্রশাসনের মধ্যে চূড়ান্ত তৎপরতা লক্ষ্য করা গেছে। তবে জেলা প্রশাসনের পাশাপাশি মালদহ জেলা তৃণমূলের নেতা-নেত্রীরা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই সফরকে ঘিরে বাড়তি প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছেন। কেননা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই প্রশাসনিক

Top
error: Content is protected !!