এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "puja"

পুজো মিটতেই নেতৃত্বের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক হেভিওয়েট তৃণমূল নেতা! টালমাটাল শাসকদলের অন্দরমহল

উত্তরবঙ্গে 2019 সালের লোকসভা ভোটের ফলাফল শুভকর হয়নি রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষে। উত্তরবঙ্গের আটটি লোকসভা সিটের মধ্যে একটি আসনেও জয়লাভ করতে পারেনি ঘাসফুল শিবির। মালদা জেলার চিত্রটিও একই। সেখানে দুটি লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে একটিতে ভারতীয় জনতা পার্টির প্রার্থী জয় যুক্ত হয়েছেন, অন্যটিতে জিতেছেন জাতীয় কংগ্রেসের প্রার্থী। শূন্য হাতেই

কথা দিয়ে কথা রাখল না কেএমডিএ! পুজোর মরসুমেও বেতনহীন বহু কর্মী!

কথা দিয়েও কথা রাখতে পারল না কলকাতা মেট্রোপলিটান ডেভেলপমেন্ট অথরিটি। অরবিন্দ সেতুর সংস্কারের কাজ শেষ করে ওই জায়গায় ব্যবসায়ীদের তিন মাসের মধ্যে ফিরিয়ে আনার কথা বলা হয়েছিল। কিন্তু প্রায় এক বছর কেটে গেলেও এখনও পর্যন্ত সেই কাজ না এগোনোয় কেএমডিএর ভূমিকা নিয়ে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন। যার ফলে বিপাকে পড়েছেন

ঝুঁকির কারণে 40 বছরের পুরোনো রাবণ-দহন বন্ধ করল পুলিশ

অবশেষে এবার বন্ধ হয়ে গেল 40 বছর ধরে পালিত হয়ে আসা রাবন দহনের অনুষ্ঠান। জানা যায়, পুরুলিয়া ঝালদা সার্বজনীন দুর্গাপুজোর উদ্যোগে গত 40 বছরে একাদশীর দিন ঝালদা শহরের প্রাণকেন্দ্র ঝালদা বাসষ্ট্যান্ড সংলগ্ন এলাকায় এই রাবণ পালা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। তবে আগে এই অনুষ্ঠান পুরভবনের ছাদে হলেও ঝালদা বাসস্ট্যান্ডে রাবনদহন অনুষ্ঠান

পুজো শেষ হয়ে গেলেও হারিয়ে যাওয়া জনভীতি ফেরাতে বিজয়ার শুভেচ্ছাই ভরসা হেভিওয়েট মন্ত্রী

কমবেশি প্রত্যেকটা রাজনৈতিক দলেরই লক্ষ্য থাকে নির্বাচনে জয় লাভ করা। আর নির্বাচনে জয়লাভ করতে হলে জনসংযোগ যে অত্যন্ত জরুরি, তা ক্ষমতার স্বার্থে মাঝেমধ্যেই বেমালুম ভুলে যান নেতা-মন্ত্রীরা। কিন্তু যদি কোনো রাজ্যে বিরোধী শক্তি শক্তিশালী থাকে, তাহলে হয়ত সাধারণ মানুষের প্রতি আরও বেশি করে খেয়াল দিতে দেখা যায় ক্ষমতায় থাকা নেতা-মন্ত্রীদের।

পুজোর মধ্যেই ধর্না নাটকের শাসক দলকে ব্যতিব্যস্ত করে তুললেন দলীয় বিধায়ক-কাউন্সিলর!

এমনি সময় প্রায় বিভিন্ন জায়গাতেই রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের অভ্যন্তরীণ গোষ্ঠী কোন্দল প্রকাশ্যে এসেছে। কিন্তু পুজোর সময় যেখানে সৌজন্যের বাতাবরণের মধ্যে দিয়ে শারদ উৎসব পালন করার নির্দেশ দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী, সেখানে তা না করে ফের শাসকদলের কোন্দলের ছাপ পড়ল সেই দুর্গাপুজোতেও। মহা ষষ্ঠীর দিনে মায়ের বোধনে তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দলে

দিলীপ ঘোষ না শুভেন্দু অধিকারী? “পুজোর লড়াইয়ে” জিতলেন কে?

রাজ্যের রাজনৈতিক সমীকরণ অনেকটাই পাল্টে গিয়েছে 2019 সালের লোকসভা নির্বাচন ঘিরে। যে রাজ্যে ভারতীয় জনতা পার্টিকে একসময় আতস কাঁচ দিয়ে খুঁজতে হত, সেই রাজ্যে 18 টি আসন পেয়ে শাসকের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলেছে ভারতীয় জনতা পার্টি। আর বঙ্গ বিজেপির এই জয়যাত্রায় পদাধিকারের দিক থেকে ক্যাপ্টেনের ভূমিকা পালন করেছেন বঙ্গ বিজেপি রাজ্য

বিজেপির কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর হাতে উদ্বোধন হওয়ার কথা থাকলেও, একের পর এক পুজো হাইজ্যাক তৃণমূলের

কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের সঙ্গে রাজ্যের তৃণমূল সরকারের আদায়-কাঁচকলায় সম্পর্ক। লোকসভা নির্বাচনের পর রাজ্যে বিজেপি বিরোধী দলের তকমা পেয়ে তৃণমূলের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলতে শুরু করলে বিভিন্ন ক্ষেত্রে তৃণমূল বনাম বিজেপির দ্বৈরথ লক্ষ্য করে বঙ্গবাসী। মাঝেমধ্যেই বিজেপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হত, কেন্দ্রের কোনো প্রকল্প রাজ্যে এলেই তাতে ক্রেডিট নিতে রাজ্যর নেতারা

বিজেপি সাংসদ-নেতাদের হাতে উদ্বোধন হওয়া পূজাগুলিকে বয়কটের পথে তৃণমূল

বাংলার এবারের শারদউৎসবে তৃণমূল না বিজেপি, কার প্রভাব বেশি থাকে তা নিয়ে প্রথম থেকেই নজর ছিল গোটা রাজনৈতিক মহলের। কেননা বাংলার হৃদয়ের সঙ্গে জড়িত এই দুর্গাপুজোকে যারা নিজেদের বাগে সবথেকে বেশি আনতে পারবে, তারাই বাংলা ও বাঙালির মনিকোঠায় স্থান পাবে বলে মনে করেছিল রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। কিন্তু বরাবরই উৎসবকে রাজনীতির রণাঙ্গনে

এবার পুজোয় বিশেষ আকর্ষণ ছিল “কাউন্সিলর” মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পুজো – জানুন বিস্তারিত

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর নামেই নাম তার। রায়গঞ্জের রবীন্দ্রপল্লী সার্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটির সভাপতি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রতিবছর তার এই পুজো মহাসমারোহে পালিত হয়। কিন্তু রাজ্য সরকার পুজো উদ্যোক্তাদের এতদিন 10 হাজার টাকা করে দিলেও রায়গঞ্জের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই ক্লাব সেই অনুদান পায়নি। যেখানে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছিল, তাহলে কি প্রশাসনিক মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মমতা

পুজোর মুখেই বড়সড় ধাক্কা খেলেন তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা, হারালেন পদ,জোর শোরগোল

উত্তরবঙ্গে বিগত লোকসভা নির্বাচনে ধুয়েমুছে সাফ হয়ে চলে গেছে তৃনমূল কংগ্রেস। এখানে আটটি লোকসভা সিটের মধ্যে সিট দখল করেছে ভারতীয় জনতা পার্টি। অন্যদিকে মালদা দক্ষিণে একটি সিট দখল করে টিমটিম করে জ্বলছে জাতীয় কংগ্রেস। কিন্তু উত্তরের রাজনৈতিক রনাঙ্গনে মাথা গোঁজার ঠাঁইটুকু পর্যন্ত নেই শাসকদলের। যে সাতটি লোকসভা আসনে উত্তরবঙ্গে জয়যুক্ত হয়েছে

Top
error: Content is protected !!