এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "pk"

পুরসভার প্রস্তুতিতে প্রশ্নমালা তৈরি টিম পিকের, জোর গুঞ্জন!

  তৃণমূলের শক্ত ঘাঁটি হিসেবেই পরিচিত ছিল কোচবিহার। তবে লোকসভা নির্বাচনে এই কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্র দখল করে নিয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি তারপর থেকেই ক্রমশ কোচবিহারের ব্যাকফুটে চলে গিয়েছে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস তবে সম্প্রতিকালে একের পর এক রাজনৈতিক কর্মসূচির মধ্য দিয়ে কোচবিহারে ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে তারা। কিন্তু লোকসভায় কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্র

মহারাষ্ট্রে সাফল্যের পর পিকের টিম সমীক্ষা করতে এল বাংলায়, জেনে নিন বিস্তারিত!

  লোকসভা নির্বাচনে ভরাডুবির পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলের রণনীতিকার হিসেবে নিয়োগ করেছিলেন প্রশান্ত কিশোরকে। আর তৃণমূলের দায়িত্ব নেওয়ার সাথে সাথেই দলকে শৃংখলায় বেঁধে একের পর এক নির্বাচনে তৃণমূলকে যাতে সাফল্য দেখানো যায়, তার চেষ্টা করেছিলেন ভোটগুরু। ইতিমধ্যেই তার সেই চেষ্টাতে সাফল্যও এসেছে। লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল সমীক্ষা চালিয়ে দিদিকে বলো কর্মসূচির মধ্য দিয়ে

মোদিকে তীব্র কটাক্ষ করে টুইটারে পোস্ট প্রশান্ত কিশোরের, জোর চাপানউতোর

প্রশান্ত কিশোর বরাবরই টুইটারের মাধ্যমে বিজেপির প্রতি তাঁর বিরোধিতা প্রকাশ করেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে আক্রমণ করে টুইট করেন তিনি। বিগত কয়েকদিনে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর মতন পিকেও এনআরসি ও সিএএর বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। টুইটারের মাধ্যমে একের পর এক টুইট করে তিনি তাঁর বিরোধিতা প্রকাশ করেছিলেন। এবার

এবার প্রশান্ত কিশোরের কাছে বড়সড় আবদার নিয়ে হাজির তৃণমূল কর্মীসমর্থকদের

2019 এর লোকসভা নির্বাচনের পর রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কোনোরকমে নিজেদের ঘর বাঁচায়। পরিস্থিতি বিচার করে এবং আগামী দিনের ভবিষ্যতের কথা ভেবে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রশান্ত কিশোরের শরণাপন্ন হন। ইতিমধ্যে গত নভেম্বরে হয়ে যাওয়া উপনির্বাচনে রাজ্যের তিনটি জেলা যথাক্রমে খড়গপুর, করিমপুর ও কালিয়াগঞ্জে তৃণমূল জয়লাভ করে প্রাশান্ত কিশোরের পরামর্শে।

মোদী- শাহকে মিথ্যাবাদী বলে দাবি করলেন প্রশান্ত কিশোর

এনআরসি ও নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহকে প্রথম থেকেই আক্রমণ করে চলেছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রথম থেকেই রাজপথে এন আর সির বিরুদ্ধে প্রতিবাদে নেমেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। শুধু তাই নয়, এন আর সি ও সি এ এর বিরোধিতায় দেশের সমস্ত বিরোধী দলগুলিকে একজোট হয়ে প্রতিবাদ করার

ঘাঁটি গেড়েছে পিকের টিম, তৃণমূল সম্পর্কে সমীক্ষা নেওয়া হচ্ছে বিরোধী দলের কাছ থেকেও, জোর জল্পনা

  উত্তরবঙ্গে গত লোকসভা নির্বাচনে ভালো ফল করতে পারেনি শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। দলের হারের অনেকগুলো কারণের মধ্যে একটি বিশেষ কারণ হিসাবে মানুষের প্রতি নেতা-নেত্রীদের দুর্ব্যবহার এবং একাধিক নিচুস্তরের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ওঠা দুর্নীতির অভিযোগকে চিহ্নিত করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। তাই আগামী পৌরসভা নির্বাচনের আগে একেবারে তৃণমূল স্তর থেকে দলের মধ্যে স্বচ্ছতা ফিরিয়ে

এবার পুরভোটেও তৃণমূলের টিকিট পাবেন কারা বেছে দেবেন পিকে? তুমুল শোরগোল শাসকদলের অন্দরে

  2019 এর লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের 22 টি আসন পাওয়ার পেছনে নিচুতলার নেতাকর্মীদের দুর্নীতিই প্রধান ভাবে দায়ী বলে উঠে এসেছিল বিশ্লেষণে। যার পরবর্তীতে দলকে শৃংখলায় বাধতে দলের রননীতিকার হিসেবে প্রশান্ত কিশোরকে নিয়োগ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর প্রশান্ত কিশোর তৃণমূলের দায়িত্ব নেওয়ার পরই একদিকে "দিদিকে বলো" কর্মসূচি, আর অন্যদিকে স্বচ্ছ নেতাদের ময়দানে

মমতার পর দলকে বিজেপির হাত থেকে বাঁচাতে পিকেকে মরিয়া ডাক আরেক মুখ্যমন্ত্রীর!

  কিছুদিন আগেই সমাপ্ত হয়েছে দেশের লোকসভা নির্বাচন। যে নির্বাচনে তৃণমূল প্রভাবিত পশ্চিমবঙ্গেও বয়ে গিয়েছে বিজেপির মোদি ঝড়। যে ঝড়ের মধ্যে দিয়ে বাংলার 42 টি আসনের মধ্যে 18 টি আসন নিজেদের দখলে নিয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি। 22 টি আসন পেয়ে কার্যত চিন্তায় পড়ে গিয়েছিল শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। তবে বিজেপিকে কোণঠাসা করতে

বিজেপিকে আটকাতে পিকের স্ট্র্যাটেজি তৈরি? তৃণমূলকে শুধু এই অস্ত্রে শান দিতে পরামর্শ!

  2011 সাল থেকেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রবল জনপ্রিয়তার উপরে ভরসা করে বাংলায় ক্ষমতা বিস্তার করতে সক্ষম হয়েছিল শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। কিন্তু সাংগঠনিকভাবে তৃণমূল কংগ্রেসের শক্তি কখনই রাজ্যের ভূতপূর্ব শাসকদল সিপিএমের মতো শক্তিশালী ছিল না। মূলত তৃণমূল কংগ্রেসের সংগঠনের সব থেকে বড় শক্তি ছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জনপ্রিয়তা। এই শক্তির উপর ভর করেই

শিক্ষক থেকে ব্যবসায়ী – কার ওয়ার্ডে কেমন যোগাযোগ? হিসেব তৈরি পিকের, পুরভোটে ছক তৈরি তৃণমূলের

  গ্রাম এবং শহরের বৈচিত্র নিয়েই গড়ে উঠেছে আমাদের প্রিয় বাংলা। 2011 সালে ক্ষমতায় আসার আগে গ্রামের মানুষের পাশাপাশি শহরাঞ্চলের মানুষের ব্যাপক সমর্থন পেয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেস। কিন্তু ক্ষমতা বড় বালাই। বর্তমানে সেই ক্ষমতার দাপটে তৃণমূল নেতাদের ছোঁয়া পাওয়া বড়ই কঠিন। যার কারণে সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে শহরাঞ্চলে মানুষ তৃণমূলের কাছ থেকে মুখ

Top
error: Content is protected !!