এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "nabanna"

জল্পনা বাড়িয়ে মমতা-ঘনিষ্ঠ আমলার ডানা আরও ছাঁটল নবান্ন! জানুন বিস্তারিত

রাজ্য সারদা-কাণ্ড নিয়ে ইতিমধ্যে প্রচুর জল ঘোলা হয়েছে। শাসকদলের অনেক হেভিওয়েট নেতা নেত্রীর নাম সারদা-কাণ্ডে জড়িয়েছে। সিবিআই দপ্তরে নিয়মিত হাজিরা দিতে হয় এখনও তাঁদের। তবে এদিন যার নাম নিয়ে রাজ্য রাজনীতি সরগরম রইল তিনি হলেন রাজ্যের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ স্বরাষ্ট্র দপ্তরের সচিব অত্রি ভট্টাচার্য। জল্পনা আগেই ছিল। আর এদিন জল্পনাকে উসকে

কলেজে কলেজে ছাত্রভোট নিয়ে নবান্ন থেকে বড়সড় ঘোষণা শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের

অনেকদিন ধরেই রাজ্যের কলেজগুলিতে ছাত্র সংসদ নির্বাচন বন্ধ রয়েছে। যার ফলে শাসকদলের ছাত্র সংগঠন তৃণমূল ছাত্র পরিষদ বাদে বিরোধী ছাত্র সংগঠনগুলো কলেজগুলিতে ছাত্র সংসদ নির্বাচন করার দাবি অনেকদিন আগে থেকেই জানিয়ে আসছে। কিন্তু সেইভাবে সরকারের তরফ থেকে এই ব্যাপারে সবুজসংকেত না পাওয়ায় বিরোধী ছাত্র সংগঠনগুলো তীব্র প্রতিবাদে গর্জে উঠেছিল। এমনকি সদ্য

রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের জন্য এবার বড়সড় পদক্ষেপ রাজ্য সরকারের – জানুন বিস্তারিত

রাজ্য সরকারি কর্মীদের ক্ষেত্রে সার্ভিস বুকে অনিয়ম-জালিয়াতি রুখতে ই-সার্ভিস বুক আনতে চলেছে রাজ্য সরকার। ইতিপূর্বেই অনেক সময় জন্মতারিখ পরিবর্তন করে দিয়ে অবসরের সময় পাল্টে দেওয়ার চেষ্টা করার অভিযোগ উঠেছে একাধিক কর্মচারীর বিরুদ্ধে। আবার প্রতিহিংসার কারণে কোনো কর্মীর সার্ভিস বুক নষ্ট করে দিয়ে তাকে হয়রানির শিকারের মুখে পড়তে বাধ্য করা হয়েছে। মূলত

নবান্নে ছুটলেন সিপিআইএম নেতা, মন্ত্রীর সাথে বৈঠক-জোট না যোগদান, তোলপাড় রাজনৈতিকমহল

সিপিএম কে সরিয়ে ২০১১ সালে ক্ষমতায় এসেছিল তৃণমূল। তৎকালীন তৃণমূলের সঙ্গে সিপিআইএমের সম্পর্ক ছিল সাপে-নেউলে যা 2016 বিধানসভা ভোটের সময় পর্যন্ত বিদ্যমান ছিল। কিন্তু এরপর গঙ্গা দিয়ে অনেক জল বয়ে গেছে। রাজ্যে ক্রমশ বিজেপির উত্থান হয়েছে আর যার জেরে বর্তমানে রাজ্যের প্রধান বিরোধী দলে পরিণত হয়েছে বিজেপি। লোকসভা ভোটের পর চিত্রটা

পার্শ্বশিক্ষকদের স্থায়ীকরণ ও বেতন কাঠামো নিয়ে রাজ্যের চাপ বাড়াল এনসিটিই,

আরটিআইয়ের মাধ্যমে জানতে চাওয়া হয়েছিল যে, পার্শ্বশিক্ষকদের স্থায়ীকরণ এবং বেতন কাঠামো তৈরির বিষয়টি রাজ্য সরকারের এক্তিয়ারভুক্ত কিনা! অবশেষে এই ব্যাপারে নিজেদের মত জানিয়ে দিল স্কুল শিক্ষক নিয়োগে কেন্দ্রীয় নিয়ামক সংস্থা এনসিটিই। বস্তুত, পার্শ্বশিক্ষকদের নেতা বলে পরিচিত অভিজিৎ ভৌমিক এই ব্যাপারে একটি সুনির্দিষ্ট তথ্য জানতে চেয়েছিলেন। আর সেই প্রসঙ্গে গত বুধবার তার

রাজ্যজুড়ে উড়ালপুলের বেহাল দশার দায় রেলের উপর চাপিয়ে নবান্নে বৈঠকে রাজ্য

রাজ্যে সেতুগুলির বেহাল অবস্থা। দীর্ঘদিন ধরেই সেই সেতুগুলির রক্ষণাবেক্ষণের অভাব উঠছিল। তবে এবার এই গোটা ঘটনায় রেলের দিকেই অভিযোগের আঙুল ওঠালেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার দাবি, শহর এবং রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে উড়ালপুলের রেলের অংশ যথাযথ দেখভাল ও রক্ষণাবেক্ষণ না হওয়ার কারণেই বিপদ বাড়ছে। আর উড়ালপুলের বেহাল দশার দায় রেলের

নবান্ন করে নি “বাড়তি” ছুটি মঞ্জুর! আগাম জামিন মামলায় আরও বিপাকে রাজীব কুমার?

কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের ভাগ্যাকাশে যেন শনির দশা কিছুতেই কাটছে না। শুক্রবারও এই রাজীব কুমারের আগাম জামিনের আবেদনের মামলার শুনানি সম্পন্ন হল না। যার ফলে প্রাক্তন পুলিশ কমিশনারের ভাগ্য অনেকটাই ঝুলে রইল বলে দাবি বিশেষজ্ঞদের। জানা গেছে, আগামী সোমবার হাইকোর্টে এই ব্যাপারে শুনানি হবে। বস্তুত, গত বুধবার বিচারপতি সইদুল্লা

রাজীব-সন্ধানে রাজ্যের সাহায্য না পেয়ে, এবার অতিরিক্ত ফোর্স নিয়ে তেড়েফুঁড়ে নামছে সিবিআই,জেনে নিন বিস্তারিত

আর্থিক দুর্নীতি কাণ্ডে কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে নিজেদের বাগে আনার জন্য অনেকদিন ধরে চেষ্টা চালাচ্ছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই। কিন্তু কখনও সেই সিবিআই জেরা করতে গেলে রাজ্যের প্রশাসনের সর্বময় কত্রী বন্দোপাধ্যায়ের বাধার মুখে পড়া, আবার কখনও বা তদন্তে রাজ্য সরকার অসহযোগিতা করছে বলে অভিযোগ করতে দেখা গেছে কেন্দ্রীয়

সিবিআই প্রতিনিধিদের সঙ্গে রবিবার ‘অসৌজন্যমূলক’ আচরণ, ক্ষুব্ধ সিবিআই শীর্ষ কর্তারা – রিপোর্ট যাচ্ছে দিল্লিতে – জেনে নিন বিস্তারিত

গত শুক্রবার রাজীব কুমার এর উপর থেকে হাইকোর্টের নির্দেশে গ্রেফতারি রক্ষাকবচ উঠে যাওয়ার পর সিবিআই তাঁকে তলব করে। কিন্তু রাজীব কুমার সেই তলবে হাজির হন না। উপরন্তু, সিবিআই তাঁর বাড়িতে হানা দিয়েও তাঁকে পায় না। পরিবর্তে রাজীব কুমার এর পক্ষ থেকে একটি ইমেল মারফত সিবিআইয়ের কাছে একমাস সময় চাওয়া হয়।

রাজীবের নাগাল পেতে নজরে নবান্ন, ক্রমশ চাপ বাড়াচ্ছে সিবিআই

লোকশিল্পীর গানের মধ্যে রয়েছে, "তোমায় হৃদ মাঝারে রাখব, ছেড়ে দেব না।" কিন্তু বাস্তবের মাটিতেও যে সিবিআই এবং রাজীব কুমারের মধ্যে এই গান বাস্তব হয়ে দাঁড়াবে, তা বুঝতে পারেননি কেউই। কেননা যেভাবে রাজীব কুমারকে নিজেদের নাগালে পেতে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা রাজ্য সরকারের সদরদপ্তর নবান্নে পৌঁছে গেল, তাতে সেই সমস্ত জল্পনাই প্রবলভাবে

Top
error: Content is protected !!