এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "municipality"

বিজেপিকে বড়সড় ধাক্কা দিয়ে পুরসভা দখলে রাখল তৃণমূল, জেনে নিন

নৈহাটি পুরসভা ৩১টি ওয়ার্ডে তৃণমূল জিতলেও লোকসভা ভোটের পর খেলা ঘুরে গিয়েছিলো। ১৮ জন কাউন্সিলর দিল্লিতে গিয়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন। যার ফলে বিজেপির পাল্লা ভারী হয়েছিল। আর এরপরেই বিজেপির তরফ থেকে অনাস্থা াণ হয়েছিল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। জল গড়িয়েছে অনেকদূর। এরপর বিজেপির দাবিকে অস্বীকার করে তৃণমূল জানিয়েছিল যে তাদের সঙ্গেই আছেন কাউন্সিলররা।

পুরসভার অস্থায়ী কর্মীদের ছাঁটাই করার সিদ্ধান্ত তৃনমূলের জেলা সভাপতির, জোর গুঞ্জন

এক সময় প্রচুর অস্থায়ী কর্মী বালুরঘাট পৌরসভায় নিয়োগ করেছিল তৃণমূল পরিচালিত পুরবোর্ড। কিন্তু মাঝে মধ্যেই সেই অস্থায়ী কর্মীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে যে, তারা কাজ না করে বসে থেকেই বেতন নিচ্ছেন। আর তাই এবার সেই সমস্ত কর্মীদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিতে চলেছেন বালুরঘাট পুরসভার বোর্ড অব অ্যাডমিনিস্ট্রেটরের সদস্য অর্পিতা ঘোষ। বস্তুত, প্রায়

সব্যসাচীকে কি ভুলতে পারছে না পুরসভা, অবাক কান্ড ঘিরে জল্পনা

তিনি যেন না থেকেও রয়েই গেছেন। গত 5 তারিখে সল্টলেকের বিদ্যুৎ ভবনের সামনে বিদ্যুৎ দপ্তরের সরকারি কর্মচারী ইউনিয়নের পক্ষ থেকে বিক্ষোভ সমাবেশে উপস্থিত হয়েছিলেন বিধাননগর পৌরসভার তৎকালীন মেয়র সব্যসাচী দত্ত। আর সেই আন্দোলনে যোগ দিয়ে কর্মচারীদের ন্যায্য দাবি নিয়ে সরব হয়ে রীতিমতো রাজ্য সরকার ও তার দল তৃণমূল কংগ্রেসকে কটাক্ষ

  পুরসভার সম্পত্তি দখল করে দলীয় কার্যালয় তৈরির অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে

ক্ষমতায় আসার পর থেকেই সরকারি জায়গা যাতে জবরদখল না হয়, তার জন্য দলের সকলকে কড়া বার্তা দিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু নেত্রীর সেই নির্দেশ মানার কথা তৃণমূল নেতাদের মুখ থেকে শোনা গেলেও, বাস্তবে তারা ঠিক উল্টো কাজটাই করেছেন‌। বিভিন্ন সময়ে সরকারি জায়গা জমি দখল করে তা নিজেদের বলে

বিজেপি ছেড়ে ফের কি তৃণমূলে ফিরছেন এই বিধায়ক? অভিষেকের মন্তব্যে নতুন জল্পনা

এই রাজ্য এখন দলবদলের রঙ্গমঞ্চ। এই এক দল ছেড়ে নেতারা আনুষ্ঠানিকভাবে যোগ দিচ্ছেন অন্য দলে কিছুদিনের মধ্যেই তাদের মধ্যে কয়েকজন দলবদল করে ফিরে আসছেন নিজের আগের ডেরায়।গত ২৭ শে মে তৃণমূল থেকে বিজেপিতে গেছিলেন ১৭ জন কাউন্সিলর। দুই ধাপে তাদের মধ্যে ১৪ জনই ফেরত এলেন তৃণমূলে। প্রসঙ্গত, লোকসভা ভোটের পরই কাঁচরাপাড়া

হালিশহরের পর কি এই পৌরসভাও দখল করতে চলেছে বিজেপি! জেনে নিন বিস্তারিত

লোকসভার নির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 42 এ 42 এর স্লোগান দিয়েছিলেন। কিন্তু তার সেই স্লোগান বাস্তবে রূপায়িত হয়নি। উল্টে 22 টি আসন দখল করেই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে তৃণমূলকে। অন্যদিকে 18 টা আসন দখল করে তৃণমূলের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলতে শুরু করেছে বিজেপি। আর এই পরিস্থিতিতে বাংলায় বিজেপি ভালো ফল করার পরই দিকে

পুরভোট নিয়ে বড়সড় সিদ্ধান্ত মমতা সরকারের, জানালেন কলকাতার মেয়র, জেনে নিন

ভোট বড় বালাই। আর তা প্রশাসনিক ব্যবস্থাপনার নিরিখেই হোক বা রাজনৈতিক পালাবদলের নিরিখেই - বরাবরই ভোটের ব্যাপারে শাসকদলের কিন্তু অনাগ্রহ থেকেই যায়। আর সেটা যদি নিজের সত্তা বিরোধী ভোট হয় তাহলে তো কথাই নেই। তাই এবার বিধানসভায় পৌরসভাগুলোতে প্রশাসক বসানোর মেয়াদ বাড়ানোর বিল আনলে রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়নমন্ত্রী কথা কলকাতার

মুকুলকে বড়সড় ধাক্কা মমতার, হারানো জমি পুনরুদ্ধার

"রাজনীতিতে এক দলে থেকে কেউ কখনও লাভ করতে পারে না" বলে বিশিষ্ট হাস্যকর অভিনেতা ভানু বন্দ্যোপাধ্যায় তার একটি সিনেমায় সেই কথা তুলে ধরেছিলেন। বর্তমানে লোকসভা নির্বাচনের পর থেকে দলবদলের সেই চূড়ান্ত নিদর্শন চোখে পড়ছে বঙ্গ রাজনীতিতেও। বস্তুত, লোকসভা নির্বাচনে এবার তৃণমূল 22 এবং বিজেপি এক ধাক্কায় 18 আসন নিজেদের দখলে রেখেছে।

কলকাতা পুরসভা নিয়ে নতুন আইন আনছে তৃণমূল সরকার, জোর জল্পনা

ফের রাজ্যে নতুন নিয়ম আসতে চলেছে। আর যে আইনে ভোটে না জিতেও মেয়র বা চেয়ারম্যান হওয়া যাবে বলে জল্পনা ছড়িয়েছে। সূত্রের খবর, কলকাতা পৌরসভার হাত ধরে রাজ্য এমনই এক প্রকার আইন আনতে চলেছে। বস্তুত, কলকাতা পৌরসভার বর্তমান মেয়র ফিরহাদ হাকিম নির্বাচনে না জিতেই মেয়র হয়েছিলেন। মূলত কলকাতা পৌরসভার পুর আইনে আনা

এবার এই পুরসভা গুলিও উপর হাত বাড়ালো বিজেপি, তৃণমূলের অন্দরেই শোরগোল

লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের ভরাডুবি এবং বিজেপির প্রবল উত্থানের পরই শাসক দল ভেঙে একাধিক কাউন্সিলার এবং বিধায়করা বর্তমানে গেরুয়া শিবিরের নাম লিখিয়েছেন। আর একের পরে এক এই দলবদলে কিছুটা হলেও অস্বস্তিতে পড়েছে শাসক দল।কয়েকটি পুরসভায় হাতছাড়া হয়েছে তৃণমূলের, আর এবার সেই দলেই নাম লেখাতে চলেছে বলে জোর জল্পনা ছড়িয়েছে। জানা যাচ্ছে আজ

Top
error: Content is protected !!