এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "mla"

পুজোর মধ্যেই ধর্না নাটকের শাসক দলকে ব্যতিব্যস্ত করে তুললেন দলীয় বিধায়ক-কাউন্সিলর!

এমনি সময় প্রায় বিভিন্ন জায়গাতেই রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের অভ্যন্তরীণ গোষ্ঠী কোন্দল প্রকাশ্যে এসেছে। কিন্তু পুজোর সময় যেখানে সৌজন্যের বাতাবরণের মধ্যে দিয়ে শারদ উৎসব পালন করার নির্দেশ দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী, সেখানে তা না করে ফের শাসকদলের কোন্দলের ছাপ পড়ল সেই দুর্গাপুজোতেও। মহা ষষ্ঠীর দিনে মায়ের বোধনে তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দলে

বাজি পোড়ানো নিয়ে এবার বিধায়ককে হেনস্তার অভিযোগ তৃনমূল প্রধানের বিরুদ্ধে, এলাকায় চাঞ্চল্য

এমনি সময় প্রায়শই রাজ্যের শাসক বনাম বিরোধী দলের নেতাদের মধ্যে তরজা লেগেই থাকে। কিন্তু বাংলার প্রিয় দুর্গোৎসবেও যে শাসক-বিরোধী নেতার ঝামেলা বজায় থাকবে তা ভাবতে পারেননি কেউই। তবে মঙ্গলবার দশমীর রাতে বাজি পোড়ানো নিয়ে প্রবল বচসায় জড়াতে দেখা গেল, কান্দির কংগ্রেস বিধায়ক সফিউল আলম খান এবং আন্দুলিয়া পঞ্চায়েতের তৃণমূলের প্রধান

এবার কি এই হেভিওয়েট নেতাও বিজেপি ছেড়ে ফিরছেন তৃণমূলে, মন্তব্য নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে

এবার অবশেষে পদত্যাগ করলেন গারুলিয়া পৌরসভার চেয়ারম্যান তথা বিজেপি নেতা সুনীল সিংহ। বস্তুত, গত জুন মাসেই দিল্লিতে গিয়ে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে নাম লেখান এই সুনীল সিংহ। যেখানে তার সঙ্গে ভাইস চেয়ারম্যান সুব্রত মুখোপাধ্যায় ছাড়াও বেশ কয়েকজন তৃণমূল কাউন্সিলর বিজেপিতে যোগ দেন। কিন্তু কিছুদিন আগেই সুনীল সিংহ বিজেপিতে থেকে গেলেও এই

বিজেপিকে বড়সড় ধাক্কা দিয়ে পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে জল্পনা বাড়ালেন হেভিওয়েট বিধায়ক,শোরগোল রাজ্যে

বিজেপিকে বড়সড় ধাক্কা দিয়ে এবার গারুলিয়া পুরসভার চেয়ারম্যান সুনীল সিং চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করলেন। কয়েকদিন আগেই তার বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব আনা হয়েছিল তৃণমূলের তরফ থেকে। আর আজ তিনি নিজেই পদত্যাগপত্র তুলে দেন পুরসভার একজিকিউটিভ অফিসারকে। যা ঘিরে ব্যাপক শোরগোল শুরু রাজ্যে। গাড়ুলিয়ার চেয়ারম্যান সুনীল সিং কয়েকমাস আগেই বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন।

মাদ্রাসা ভোটে জিততেও বিরোধী বিধায়ককে হেনস্তার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে

পশ্চিমবঙ্গ এবং নির্বাচনে অশান্তি - এই দুটো শব্দ যেন এখন প্রায় সমার্থক হয়ে দাড়িয়েছে। কেননা বর্তমানে দেখা যাচ্ছে, পঞ্চায়েত নির্বাচন থেকে শুরু করে স্কুল ভোট হোক বা মাদ্রাসা ভোট, প্রায় সমস্ত নির্বাচনেই ক্ষমতা ধরে রাখতে শাসকদলের রোষের মুখে পড়তে হচ্ছে বিরোধী দলের নেতা-নেত্রীদের। তবে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা এমন অভিযোগ করলেও তা বরাবরই

শাসকদলের অস্বস্তি তীব্র করে দলীয় নেতার বিরুদ্ধে কাটমানি নিয়ে একরাশ তৃণমূল বিধায়কের

অতীতে কাটমানি নিয়ে বিভিন্ন সময় দলীয় নেতাকর্মীদের একাংশের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দলের কেউ যাতে অনৈতিক কাজে জড়িত না-থাকেন সেই ব্যাপারেও সতর্ক করেছেন তিনি। চালু হয়েছে ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচিও। এরপরেও বাগনানের ওড়ফুলি এবং শরৎ পঞ্চায়েত এল‌াকায় এক তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে মুম্বই রোডের ধারের কারখানাগুলি থেকে তোলাবাজি এবং বেআইনি ভাবে

দেবশ্রী রায় বিতর্কে নয়া মোড় তৃণমূল বিধায়কের নতুন পদক্ষেপে বাড়লো জল্পনা – জেনে নিন

যেদিন থেকে শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপিতে যোগদান করেছেন, সেদিন থেকেই রাজ্য রাজনীতিতে মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে দেবশ্রী রায় বিতর্ক। দেবশ্রী বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন কিনা সে নিয়ে জল্পনা এতই প্রবল হয়ে যায় যে, বিজেপিতে যোগ দেওয়ার এক মাসের মধ্যেই শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় দল ত্যাগ করার কথাও ঘোষণা করেন।

দলের অন্দরমহলে “ভাবমূর্তি নষ্ট” করা নেতাদের নিয়ে বিস্ফোরক বিধায়ক, চাঞ্চল্য তৃণমূলে

2014 সালের লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল 42 টি আসনের মধ্যে 34 টি আসন নিজেদের দখলে রেখেছিল। কিন্তু বিজেপি ঝড়ে 2019 এর লোকসভা নির্বাচনে থেমে গিয়েছে তৃণমূলের সেই বিজয়রথ। 42 এ 42 দখল করা তো দূর অস্ত, মোটে বাইশটা আসন পেয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে ঘাসফুল শিবিরকে। অপরদিকে বিজেপি বাংলা থেকে 18 টা আসন

দল ছেড়ে প্রাক্তন বিধায়ক তৃণমূলে, তবুও আঁকড়ে রয়েছেন পদ! বড় পদক্ষেপ নিতে চলেছে বামফ্রন্ট

বঙ্গ রাজনীতির আঙিনায় দলবদল খোলামকুচি ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। মুড়ি-মুড়কির মত হামেশাই কখনও বিজেপি নেতা তৃণমূল হয়ে যাচ্ছে, কখনও তৃণমূল নেতা বিজেপি, আবার কখনও বা বামফ্রন্ট তৃণমূল হয়ে যাচ্ছে। কখনও আবার কংগ্রেস বিজেপিতে চলে যাচ্ছে। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই চোখে পড়ছে এক দল থেকে অন্য দলে গেলেও পদ ছাড়তে চাইছেন না কিছু

দিদিকে বল কর্মসূচিতে দেখা নেই অভিষেকের কেন্দ্রের হেভিওয়েট তৃণমূল বিধায়কের! জোর গুঞ্জন শাসক দলে – জেনে নিন বিস্তারিত

লোকসভা নির্বাচনের পর থেকেই পায়ের তলার জমি শক্ত করতে শাসকদল শুরু করেছে পিকে প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী দিদিকে বল জনসংযোগ কর্মসূচি। রাজ্যের প্রতিটি জেলায় জেলায় কার্যকর করা হচ্ছে এই কর্মসূচি। রাজ্যের মন্ত্রী থেকে স্থানীয় নেতা প্রত্যেকেই পথে নেমে জনসংযোগ করছেন। তবে এদিন 'দিদিকে বল' কর্মসূচি নিয়ে গুঞ্জন তৈরি হল তৃণমূল শাসক দলেরই

Top
error: Content is protected !!