এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "mla"

হেভিওয়েট তৃণমূল বিধায়কের খাসতালুকে বড় জয়! ভোটের ফলের আগে বড়সড় সুখবর বিজেপি শিবিরের জন্য

  লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গ জুড়ে তৃণমূল ধরাশায়ী হয়েছিল। তবে লোকসভার ফলাফল মেটার পর বেশ কিছুদিন হয়ে গেল। বর্তমানে বিজেপি ছেড়ে অনেকে তৃণমূলে আসতে শুরু করেছে। যার ফলে একাংশ দাবি করেছিলেন যে, হয়ত বা তৃণমূলের চাকা ঘুরতে শুরু করেছে। কিন্তু এবার স্কুল পরিচালন সমিতির নির্বাচনে তৃণমূল প্রার্থীদের পরাজিত হওয়ার ঘটনা এবং বিজেপির

চরমে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব! দুই পক্ষের মারামারিতে সুরক্ষিত নয় দলেরই বিধায়কের গাড়ি!

  লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের পরাজয়ের পেছনে যেমন জনসংযোগ বিচ্ছিন্নতা রয়েছে, ঠিক তেমনই দলের গোষ্ঠী কোন্দলও দায়ী। বিশ্লেষক থেকে পর্যবেক্ষক সবার ভোট পরবর্তী ফলাফল পর্যালোচনায় এমন কথাই উঠে এসেছে। কিন্তু নির্বাচন পরবর্তী সময়ে দলকে জনসংযোগে পাঠাতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সক্ষম হলেও দলে শৃঙ্খলা যেন আসছে না কিছুতেই। দলে গোষ্ঠীকোন্দল বরদাস্ত করা হবে না বলে

১৭ জন বিধায়ক কি আজ সন্ধ্যেই যোগ দিচ্ছে বিজেপিতে? মন্তব্যে জোর জল্পনা

  মহারাষ্ট্রে নাটকীয় পরিস্থিতি তৈরি হতে না হতেই এবার কর্ণাটকেও অবিস্মরনীয় পরিস্থিতি তৈরি হয়ে গেল। সূত্রের খবর, বুধবারই কর্নাটকে বরখাস্ত হওয়া বিধায়কদের নির্বাচনে লড়ার অনুমতি দেয় দেশের শীর্ষ আদালত। যার ফলে সেই জেডিএস এবং কংগ্রেসের বিধায়কদের নির্বাচনে লড়ার জন্য আর কোনো বাধা রইল না বলে মত বিশেষজ্ঞদের। কিন্তু সকলের মনে একটাই প্রশ্ন

দলীয় বিধায়ক ভাঙ্গানোর আশঙ্কায় শিবসেনা, এখনও অব্যাহত জোট

  অনেকদিন হল মহারাষ্ট্রে ফলাফল ঘোষণা হয়েছে। কিন্তু এখনও পর্যন্ত সরকার গঠন নিয়ে দর কষাকষি চলছেই। বস্তুত, এবারে মহারাষ্ট্রে ফলাফল খুব একটা ভাল হয়নি গেরুয়া শিবিরের। সরকার গঠন করবার জন্য যত সংখ্যা লাগে, তা তাদের কাছে নেই। যার ফলে শিবসেনার দ্বারস্থ হয়েছিল বিজেপি। কিন্তু আশ্চর্যজনকভাবে বিজেপিকে চাপে রাখতে পাল্টা কৌশল করে

বিপক্ষের বিধায়কদের 25-50 কোটি টাকা দিয়ে সরকার গঠনে কেনার অভিযোগ বিজেপির বিরুদ্ধে

  ভারতীয় রাজনীতিতে ঘোড়া কেনাবেচার কথা আমরা প্রায়ই শুনি। ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল নিজেদের বাগে বিরোধীদলের বিধায়কদের টানতে অর্থের প্রলোভন দেখায় বলে দাবি করেন অন্য রাজনৈতিক দলের নেতৃত্বরা। আর এবার সেই ঘোড়া কেনা-বেচার অভিযোগ উঠল বিজেপির বিরুদ্ধে। বস্তুত, অনেকদিন হয়ে গেল মহারাষ্ট্রের ফলাফল ঘোষণা হয়েছে। হাতে আর মাত্র একদিন রয়েছে। তার পরেই

পারলেন না প্রশান্ত কিশোর? বিজেপিতে আসতে চেয়ে ১০৮ বিধায়ক চিঠি দিয়েছেন অমিত শাহকে

তৃণমূল বিধায়ক দেবশ্রী রায় বিজেপিতে আসতে চেয়ে বিজেপির সদর দপ্তরে উপস্থিত হয়েছিলেন।বাদ সেধেছিলেন শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। এ খবর কারোর অজানা নয়। কিন্তু আর এক চাঞ্চল্যকর খবর সামনে এলো। আর তা হলো " নিরাপত্তা পেলে বিজেপিতে যোগদান করতে চাই" এই মর্মে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহকে নাকি চিঠিও দিয়েছেন তৃণমূল

অন্যদল ভেঙে বিধায়ক দলে টানতে ১০০০ কোটি টাকা খরচ করেছেন মুখমন্ত্রী, বিস্ফোরক তথ্যে শোরগোল রাজ্যে

অন্য দল ভেঙ্গে বিধায়ক নিজের দলে টেনে মুখ্যমন্ত্রী হতে ১০০০ কোটি টাকা খরচ করেছেন বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী ইয়েদুরাপ্পা এমনটাই দাবি কর্নাটক বিধানসভায় বিধায়ক পদ খারিজ হয়ে যাওয়া নারায়ণ গৌড়ার। এদিন তিনি দাবি করেছেন নিজের নির্বাচনী কেন্দ্র কৃষ্ণরাজপেটের উন্নয়নের জন্য তিনি ৭০০ কোটি টাকা চেয়েছিলেন ইয়েদুরাপ্পার কাছে কিন্তু তাকে ১০০০ কোটি টাকা

জল্পনা বাড়িয়ে এক মঞ্চে হেভিওয়েট তৃণমূল বিধায়ক ও প্রাক্তন সিপিএম সাংসদ! জানুন বিস্তারিত

  লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির উত্থান দেখার পরই বাংলায় সকল দলকে এক হওয়ার আর্জি জানিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেক্ষেত্রে দীর্ঘদিনের শত্রু হিসেবে পরিচিত বামফ্রন্টকেও পাশে পাওয়ার কথা শোনা গিয়েছিল তৃণমূলের সর্বাধিনায়িকার গলায়। রাজনৈতিক মহলের তরফে এই বিষয়টি তুলে ধরে কেউ কেউ তাঁর চরম নিন্দাও করেছিলেন। তবে বাম এবং কংগ্রেস বরাবরই

নিজের সংস্থাকে দিয়ে টোটো দেওয়ার নাম করে আসলে 80 লক্ষ টাকা তোলার অভিযোগ তৃণমূল বিধায়কের বিরুদ্ধে

কিছুদিন আগে বিজেপির সদর দপ্তরে তাঁর যাওয়া নিয়ে জল্পনা ছড়িয়ে ছিল। তবে পরবর্তীকালে তিনি তৃণমূলেই রয়ে গেছেন। তবে তার দলবদলের জল্পনা কমে গেলেও এবার দুর্নীতির অভিযোগ বিদ্ধ করলো রায়দিঘির তৃণমূল বিধায়ক দেবশ্রী রায়কে। অভিযোগ, গরিব মানুষকে টোটো দেওয়ার নাম করে এই তৃণমূল বিধায়ক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ টাকা তুলেছেন।

নতুন “টাস্ক” জানিয়ে টিম পিকের ফোন সব তৃণমূল বিধায়কের কাছে! ক্ষোভ বাড়ছে তৃণমূল শিবিরে

  দলের জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে সাধারণ মানুষের যোগাযোগ ছিল না। আর এই কারনেই লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল কে 22 টি আসন পেতে হয়েছে বলে দাবি রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের। এমনকি ভোটের পরবর্তী ফলাফল পর্যালোচনায় তৃণমূলের অন্দরেও সেই কথা উঠে এসেছে। তবে দলকে যে জনসংযোগে পাঠাতে হবে এবং আগামী বিধানসভা নির্বাচনে যে আরও ভালো ফলাফল করতে

Top
error: Content is protected !!