এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "mednipur"

শুভেন্দু অধিকারী “হানা” দেওয়ার আগেই নিজের খাসতালুক নিয়ে বিশেষ পদক্ষেপ দিলীপ ঘোষের

রাজনীতিতে সেয়ানে সেয়ানে লড়াই না হলে ঠিক জমে না। লোকসভা নির্বাচনের পরবর্তী সময় থেকে বঙ্গ রাজনীতিতে সেই সেয়ানে সেয়ানে লড়াই হতেই দেখা যাচ্ছে। তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা তথা রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী রাজ্য রাজনীতিতে যে একটা বড় মুখ, সেই ব্যাপারে বলার অপেক্ষা রাখে না। অপরদিকে রাজ্যে বিজেপির ক্রমশ উত্থানের জন্য যে ব্যক্তির

“পশ্চিম মেদিনীপুরে তৃণমূলের সর্বনাশ করে দেওয়ার” দায় এনার ঘাড়েই চাপালেন শুভেন্দু

একসময় জঙ্গলমহলে তৃণমূলের অন্যতম আস্থা ভরসার নাম ছিল প্রাক্তন আইপিএস অফিসার তথা বর্তমান বিজেপি নেত্রী ভারতী ঘোষ। কিন্তু লোকসভা ভোটের আগেই সেই ভারতীদেবীর সাথে তৃণমূলের সম্পর্কের অবনতি হতে শুরু করে। এমনকি পরিস্থিতি এমন জায়গায় যায় যে, গত 2017 সালের ডিসেম্বর মাসে সেই পশ্চিম মেদিনীপুরের পুলিশ সুপারের পদ থেকে ভারতী ঘোষকে

বিজেপির “মুখ্যমন্ত্রী গো-ব্যাক” পোস্টার ঘিরে তীব্র উত্তেজনা মেদিনীপুরে, পুলিশের বেদম প্রহারে আহত গেরুয়া-কর্মীরা

কদিন আগেই বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে কালো পতাকা ও গো ব্যাক স্লোগান দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল তৃনমূলের বিরুদ্ধে, আর এবারে খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সফরের আগের দিন কেশিয়াড়িতে সেই মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধেই গো ব্যাক পোস্টারকে ঘিরে প্রবল উত্তেজনা ছড়াল। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গতকালই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেশিয়াড়িতে একটি প্রশাসনিক সভা করেন। আর

গেরুয়া-ঝরে আক্রান্ত পশ্চিম মেদিনীপুরে ঘাসফুলের জমি ফিরিয়ে নিতে আসরে স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী, হতে পারেন কল্পতরু

জঙ্গলমহলে জোড়াফুলের শক্তি ফেরাতে দুদিনের জেলা সফরে পশ্চিম মেদিনীপুরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পঞ্চায়েত নির্বাচনে যেভাবে পদ্মের উত্থান হয়েছে তৃণমূলের শক্তিকেন্দ্রে সেই জায়গা থেকে শাসকদলকে স্বমহিমায় ফেরাতে বিগ্রেড সমাবেশের আগে দলীয় কর্মীদের চাঙ্গা করতেই পশ্চিম মেদিনীপুরে পাড়ি জমালেন নেত্রী। প্রথমে কেশিয়াড়ি পরিষেবা প্রদান অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন তিনি। সেখান থেকে প্রায় শ'খানেক প্রকল্পের

মেদিনীপুর কি ক্রমশ ঘাসফুলের হাতের বাইরে? জল্পনা বাড়িয়ে পদত্যাগ একাধিক স্থায়ী সমিতির সদস্যের!

জেলা তৃণমূলের অস্বস্তিকে বাড়িয়ে বেনজিরভাবে একের পর এক সদস্য পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা পরিষদের স্থায়ী সমিতি থেকে পদত্যাগ করলেন। এখনো পর্যন্ত ৯ জন সদস্যের পদত্যাগপত্র জমা পড়েছে বলেই খবর দলীয় সূত্রের। এই পদত্যাগপত্র জমা পড়ার কথা জেলা পরিষদের সভাধিপতির কাছে, এমনটাই নিয়ম পঞ্চায়েত আইনের। কয়েকজন সদস্য পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন বলেই জানান সভাধিপতি

Top
error: Content is protected !!