এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "maharastra"

মহারাষ্ট্রে সাফল্যের পর পিকের টিম সমীক্ষা করতে এল বাংলায়, জেনে নিন বিস্তারিত!

  লোকসভা নির্বাচনে ভরাডুবির পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলের রণনীতিকার হিসেবে নিয়োগ করেছিলেন প্রশান্ত কিশোরকে। আর তৃণমূলের দায়িত্ব নেওয়ার সাথে সাথেই দলকে শৃংখলায় বেঁধে একের পর এক নির্বাচনে তৃণমূলকে যাতে সাফল্য দেখানো যায়, তার চেষ্টা করেছিলেন ভোটগুরু। ইতিমধ্যেই তার সেই চেষ্টাতে সাফল্যও এসেছে। লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল সমীক্ষা চালিয়ে দিদিকে বলো কর্মসূচির মধ্য দিয়ে

মহারাষ্ট্রে কি ভাঙতে চলেছে জোট সরকার! মুচকি হাসি বিজেপির মুখে

মহারাষ্ট্রে এবারও ক্ষমতা দখল করতে চেয়েছিল ভারতীয় জনতা পার্টি। কিন্তু শরিক শিবসেনার সঙ্গে মতানৈক্যের জেরে ফিফটি-ফিফটি মন্ত্রিত্বের ফর্মুলা না মেলায়, অবশেষে সরকার গঠন করার স্বপ্ন পূরণ হয়নি গেরুয়া শিবিরের। যার ফলে এনসিপি, শিবসেনা এবং কংগ্রেস জোট বিজেপিকে অস্বস্তিতে ফেলে মহারাষ্ট্রে গঠন করেছে জোট সরকার। তবে প্রথম থেকেই বিজেপি সেই জোট

মহারাষ্ট্রে জোট সরকার হলেও রাহুলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক শরদ পাওয়ার, জোর জল্পনা

  লোকসভা নির্বাচনের আগে থেকেই সমস্ত বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো একত্রিত হওয়ার চেষ্টা করেছিল। কিন্তু লোকসভা নির্বাচনে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো সেইভাবে সাফল্য পায়নি। উল্টে দ্বিতীয়বারের জন্য বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় এসেছে মোদী সরকার। তবে বর্তমানে এনআরসি থেকে শুরু করে বিভিন্ন বিতর্কিত ইস্যুতে জর্জরিত কেন্দ্রের বিজেপি সরকার। কিন্তু বিরোধীদের সমবেত শক্তি প্রতিষ্ঠিত না

মহারাষ্ট্রে বড়সড় ধাক্কার পরে কি ঝাড়খন্ডেও ব্যাকফুটে চলে গেল বিজেপি? ক্রমশ তীব্র হচ্ছে জল্পনা

  আশা ছিল। অনেক ক্ষেত্রে সেই আশার একদম চূড়ান্ত শিখরে পৌঁছেও গিয়েছিল ভারতীয় জনতা পার্টি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ক্ষমতা ধরে রাখা তাদের পক্ষে সম্ভব হয়নি। মহারাষ্ট্রে শেষ পর্যন্ত ইস্তফা দিতে হয়েছে বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবিশকে। বর্তমানে সেখানে সরকার গড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে এনসিপি, শিবসেনা এবং কংগ্রেস জোট। আর ঝাড়খন্ডের বিধানসভা নির্বাচন শুরুর

চরম ধাক্কা মোদী-শাহের! রণেভঙ্গ ফড়নবীশের! মহারাষ্ট্রে শেষ কথা বললেন সেই পাওয়ার-উদ্ধবই!

  ভারতবর্ষের রাজনীতির চাণক্য বলা হয় বিজেপির নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহ জুটিকে। কিন্তু সেই চানক্যারাই যদি তাদের দাবার ঘুটি ফেলতে ভুল করেন, তাহলে নিঃসন্দেহে তা আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে এসে দাঁড়ায়। সম্প্রতি মহারাষ্ট্র যে ঘটনা ঘটে গেল, তাতে সেই নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহর ভূমিকা নিয়ে নানা মহলে উঠতে শুরু করল প্রশ্ন।

মহারাষ্ট্রে কি এবার যবনিকা পতন হতে চলেছে ?

মহারাষ্ট্রের রাজনৈতিক পট পরিবর্তনের যেন এবার যবনিকা হতে চলেছে। জানা যাচ্ছে, আগামী পয়লা ডিসেম্বর মুখ্যমন্ত্রীর আসনে আসীন হতে চলেছেন শিবসেনা প্রমুখ উদ্ধব ঠাকরে। রাজ্যপালের কাছে সরকার তৈরি করার দাবি নিয়ে যাওয়ার আগেই মুম্বাইয়ের ট্রাইডেন্ট হোটেলে বৈঠকে বসেন কংগ্রেস, এনসিপি এবং শিবসেনা নেতারা। আর সেই বৈঠক থেকেই সর্বসম্মতিক্রমে আগামী পাঁচ বছরের

শিক্ষা দিয়েছে মহারাষ্ট্র ও হরিয়ানা! এবার দ্রুত স্ট্র্যাটেজি বদলের পথে গেরুয়া শিবির?

  কথায় আছে, মানুষ ভুল থেকে শিক্ষা নেয়। বিগত দিনে একাধিক বিধানসভা নির্বাচনের প্রচারে ভারতবর্ষের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বিশেষ করে জাতীয় স্তরের রাজনীতিতে মোদি সরকারের সফলতার উপাখ্যান করেই প্রচার করেছেন। তার সুফলও মিলেছে। তবে সম্প্রতি মহারাষ্ট্র এবং হরিয়ানায় নির্বাচনে দলের আশানুরূপ ফল না হওয়ায় নির্বাচনী প্রচারে স্থানীয় ইস্যুকে বেশি গুরুত্ব দিতে

মহারাষ্ট্রে ফের বড়সড় নাটক, পদ খোয়ালেন নেতা, জেনে নিন বিস্তারিত

  দীর্ঘ টানাপোড়েনের পর অবশেষে শনিবার সকালে মহারাষ্ট্রে সরকার গড়ল ভারতীয় জনতা পার্টি। মন্ত্রীত্বের ব্যাপারে ফিফটি- ফিফটি ফর্মুলা দিয়ে প্রথমেই বিজেপিকে চাপে ফেলে দেয় শিবসেনা। তাই প্রথম থেকে শিবসেনার সঙ্গে বিজেপির জোটে এখানকার সরকার হবে বলে মনে করা হলেও পরবর্তীতে সেই জোট ভেস্তে যায়। আর এরপরই বেশ কিছুদিন ধরে রাষ্ট্রপতি শাসন

বিজেপিকে চাপে ফেলতে নয়া সিদ্ধান্ত বিরোধীদের, ফের বদল মহারাষ্ট্রে! জানুন বিস্তারিত

  দীর্ঘ টালবাহানার পর পরিস্থিতি যে দিকে এগোচ্ছিল, তাতে মনে করা হয়েছিল, এনসিপি, কংগ্রেস এবং শিবসেনা জোট মহারাষ্ট্র সরকার গঠন করবে। কিন্তু শেষ রাতে বিড়ালটা ভালই মারল ভারতীয় জনতা পার্টি। শেষ পর্যন্ত এখানে সরকার গড়তে সক্ষম হল তারা। যেখানে এনসিপির অজিত পাওয়ারের সমর্থন নিয়ে সরকার গঠন করতে সক্ষম হয়েছে গেরুয়া শিবির। আর

মহারাষ্ট্রে বিজেপিকে সমর্থন এনসিপির, শরদ পাওয়ারের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন

  বেশ অনেকদিন হয়ে গেল, মহারাষ্ট্রের বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশ হয়েছে। তবে ফলাফল প্রকাশের পর থেকেই শুরু হয়েছিল নাটকীয় পরিস্থিতি। প্রথমদিকে অবস্থা যেদিকে মোড় নিয়েছিল, তাতে আঁচ করা গিয়েছিল যে, বিজেপি- শিবসেনা জোট এই রাজ্যে সরকার গঠন করবে। কিন্তু মন্ত্রিত্বের ব্যাপারে শিবসেনার ফিফটি-ফিফটি ফর্মুলাতে রাজি হয়নি গেরুয়া শিবির। আর তাইতো প্রথম দিকে

Top
error: Content is protected !!