এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "left"

চূড়ান্ত জোট-রফা লড়াই ভুলে বিধানসভা উপনির্বাচনের ফর্মূলা “রেডি” বামফ্রন্ট – কংগ্রেসের

জোটের ব্যাপারে এখনও বাম-কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্বের মধ্যে বৈঠক সম্পন্ন হয়নি। তবে গত লোকসভা নির্বাচনে জোট না করে যে ভুল তারা করেছিল, তা থেকে শিক্ষা নিয়ে এবার পরবর্তী নির্বাচনগুলিতে যাতে সমঝোতা করে এগোনো যায়, সেই ব্যাপারে একপ্রকার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পথে এগিয়ে গেল আলিমুদ্দিন স্ট্রিট এবং বিধান ভবন। সূত্রের খবর, সামনেই রাজ্যের যে

370 ধারা অবলুপ্তি নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে পথে বামেরা, খোঁচা তৃণমূলকেও

সংবিধানের 370 ধারা এবং 35 (ক) ধারার একটি বিশেষ অনুচ্ছেদকে বিলোপ এবং জম্মু-কাশ্মীরের পূর্ণ রাজ্যের মর্যাদা বিলোপ করে ইতিমধ্যেই মাস্টারস্ট্রোক দিয়েছে কেন্দ্র। বিভিন্ন মহলের তরফে কেন্দ্রের এই পদক্ষেপকে সাধুবাদ দেওয়া হলেও এবার তা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে পথে নামতে চলেছে বামেরা। ইতিমধ্যেই সোমবার রাজ্যসভায় এই ব্যাপারে বিল পাস করার জন্য এই দিনকে

তৃনমূল, বিজেপিকে রুখতে অবিলম্বে বাম-কংগ্রেসের জোট হওয়া উচিত বলে জানিয়ে দিলেন এই কংগ্রেস নেতা

গত 2016 বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলকে ক্ষমতার কেন্দ্রবিন্দু থেকে সরাতে হাত ধরে ছিলেন তৎকালীন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী এবং সিপিএমের সূর্যকান্ত মিশ্র। তবে সেইভাবে ভোটের ফলাফলে সাফল্য মেলেনি তাদের। কিন্তু রাজনীতিতে সামরিক বলে কিছু নেই। সবই সময়ের ব্যাপার। অত্যন্ত ধৈর্যের সহকারে সমস্ত কিছুকে অক্ষত রাখতে হয়। তবে এইখানেই মস্ত বড়

নির্বাচনে ধাক্কা খাওয়ার পর ঘুরে দাঁড়াতে এবার সাংগঠনিক বদলের পথে বামেরা,জেনে নিন

এবারের লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় তারা একটি আসনও নিজেদের ঝুলিতে আনতে পারেনি। যার ফলে দলীয় সংগঠনের যেমন ধাক্কা পড়েছে, ঠিক তেমনই কিভাবে তারা ভবিষ্যতে 2021 সালের বিধানসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে এগোবে, তা নিয়েও বিশ্লেষণ শুরু হয়েছে বামেদের আলিমুদ্দিন স্ট্রিটে। আর এই পরিস্থিতিতে এবার ছাটাই প্রক্রিয়া শুরু করার কথা ভাবছেন আলিমুদ্দিনের

বিধানসভায় তৃণমূল সিপিএম ও কংগ্রেসের সাথে জোট বাঁধলে আদতে কতটা লাভ হবে, নাকি ফায়দা তুলতে বিজেপি!

লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল মোটে 22 টি আসন পেয়েছে। অন্যদিকে বিজেপি তাদের আসন সংখ্যা বাড়িয়ে 18 করে নিয়েছে। আর রাজ্যে গেরুয়া শিবিরের এই উত্থানে এখন রীতিমতো তটস্থ ঘাসফুল শিবির। তৃণমূলের দাবি, বাম এবং কংগ্রেসের ভোটব্যাঙ্ক বিজেপির দিকে চলে যাওয়াতেই রাজ্যে বিজেপির এই উত্থান ঘটেছে। অন্যদিকে পাল্টা কংগ্রেস এবং বামেদের দাবি, রাজ্যে বিজেপির

দলীয় কর্মীদের থানায় ডেকে তৃণমূল প্রার্থীদের জেতানোর পাশাপাশি মার্জিন বাড়ানোর চাপ পুলিশের, কমিশনে যাচ্ছে বামেরা

রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস পুলিশ প্রশাসনকে কাজে লাগিয়ে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে ভেঙে দখলের রাজনীতি কায়েম করতে চাইছে বলে বিভিন্ন সময়ে অভিযোগ করতে দেখা গেছে রাজ্যের বিরোধী শিবিরকে। তবে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের দামামা বাজার সাথে সাথেই এই পুরো প্রশাসনিক নিয়ন্ত্রণের ব্যাপারটা নির্বাচন কমিশনের হাতে চলে যাওয়ায় অনেকেই সুষ্ঠ নির্বাচনের ব্যাপারে আশ্বস্ত

ভাঙ্গড়ে বিকাশের মিছিল আটকাল পুলিশ, প্রচারে এবার নয়া ভাবনা বামপ্রার্থীর

প্রচার থেকে রাজনৈতিক কর্মসূচি - বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করছে রাজ্যের শাসক দল বলে বিভিন্ন সময়ই অভিযোগ করতে দেখা গেছে বাংলার বিরোধী দলগুলোকে। আর এবার আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের প্রচার করতে গিয়ে পুলিশের বাধার মুখে পড়তে হল যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্রের বাম প্রার্থী বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য এবং পাওয়ার গ্রিডের জমি কমিটির

বাম-কংগ্রেস জোট ভেঙে যাওয়ার সুবিধা কার বিজেপি না তৃনমূলের?

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল ও বিরোধী দল বিজেপিকে সরাতে হলে হাতে হাত ধরে চলা উচিত বলে প্রথম থেকেই সওয়াল করে এসেছেন বামেদের আলিমুদ্দিন স্ট্রিট ও কংগ্রেসের বিধান ভবনের নেতারা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বাম ও কংগ্রেস এই দুই দলের মধ্যে আসন সমঝোতা নিয়ে ঠিকমত দফারফা না হওয়ায় তাদের

ভোটে জোট করে লড়ছে না বাম কংগ্রেস, কিন্তু এই কাজ করছেন জোট বেঁধেই

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের অনেক আগেই কমিশনের সাথে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলোর বৈঠকে বিগত পঞ্চায়েত নির্বাচনে বাংলায় শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের যেভাবে গণতন্ত্রকে প্রহসনে পরিণত হয়েছে সেই সম্বলিত কয়েকটি প্রমাণ নির্বাচন কমিশনের কাছে পেশ করে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে যাতে এই রকম পরিস্থিতি তৈরি না হয় তার জন্য নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে আরও জোরদার

শ্রীরামপুরে জমিয়ে প্রচার শুরু তৃণমূল প্রার্থীর, পাল্টা জনসংযোগে বাজিমাতের চেষ্টায় বাম প্রার্থী

প্রথমে তৃণমূল আর তারপর বামেরা একের পর এক রাজ্যে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রার্থী ঘোষণার পর থেকেই শুরু হয়ে উঠেছে জোর প্রচার। আর এবার বুধবার শ্রীরামপুর লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় স্নানপিড়ি মাঠে একটি কর্মী বৈঠক এবং পরে রিষড়া থেকে বসন্ত উৎসবে উপস্থিত থেকে জোর প্রচার

Top
error: Content is protected !!