এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "left"

ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্নে বুঁদ বাম-কং জোট প্রার্থীই দিতে পারল না! কতটা লড়াই থাকছে জল্পনা

  2011 সালে যে বামফ্রন্টকে ক্ষমতাচ্যুত করে ক্ষমতায় এসেছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, বিগত আট বছরে 35 বছর ধরে ক্ষমতা ধরে রাখা বামফ্রন্ট কার্যত সাইনবোর্ডে পরিণত হবে, তা বিশ্বাস করতে পারেনি অনেকেই। তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে এই ঘটনাই বারবার সামনে আসছে। পঞ্চায়েত নির্বাচন থেকে শুরু করে লোকসভা নির্বাচন, প্রতিটা

আট বছর শাসন চালিয়ে এখনও পার্শ্বশিক্ষকদের হালের জন্য বাম আমলকেই হাতিয়ার শিক্ষামন্ত্রীর!

  বেশ কিছুদিন হয়ে গেল, রাজ্যে পার্শ্ব শিক্ষকদের অনশন চলছে। প্রচুর পার্শ্বশিক্ষক এবং শিক্ষিকা সেই অনশনে যোগ দিয়েছেন। বিরোধী সমস্ত রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধি থেকে শুরু করে বিভিন্ন শিক্ষামূলক সংস্থাগুলো সেই পার্শ্ব শিক্ষকদের অনশন মঞ্চে গিয়ে তাদের পাশে দাঁড়ানো বার্তা দিলেও এখনও পর্যন্ত সরকারের পক্ষ থেকে কোনো সদর্থক বার্তা মেলেনি। যা নিয়ে

বিজেপি-বাম-কংগ্রেসকে একসঙ্গে বাংলা থেকে বিদায়ের কথা কর্মীদের জানালেন তৃণমূল নেত্রী

  সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে 42 এ 42 এর শ্লোগান তুলেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু বিরোধীদের দাপটে 42 টি আসন দখল করা তো দুরস্ত, উল্টে 22 টি আসনেই আটকে যেতে হয়েছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে। যেখানে দক্ষিণবঙ্গে তৃণমূল কিছুটা ভালো ফল করলেও উত্তরবঙ্গে একটি আসনও দখল করতে পারেনি তারা। কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্র

তীব্র উত্থান হচ্ছে বিজেপির, পুরভোটের আগে মুখ থুবড়ে পড়বে বাম- কংগ্রেস জোট? সংশয়ে একাধিক জোটপন্থীই

  লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির উত্থান এবং নিজেদের ভোট বিজেপি দিকে চলে যাওয়া। এই দুই কারণে দিনকে দিন অস্তিত্ব সংকট হতে দেখা যাচ্ছে বাম এবং কংগ্রেসের। 2016 সালে শেষবার তারা জোট করে লড়াই করলেও তেমন সাফল্য পায়নি। তারপর বহুবার একসাথে লড়াইয়ের কথা হলেও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। কিন্তু 2019 এর লোকসভা নির্বাচনে ভরাডুবির

পুত্রের মৃত্যু নিছক দুর্ঘটনা নয়! সিআইডি তদন্তের দাবি হেভিওয়েট তৃণমূল নেতার, পাশে বিজেপি-বাম

  আলোর উৎসবে যখন ঝলমল করছিল গঙ্গারামপুর, ঠিক তখনই সরকার পরিবারে নেমে এসেছিল অন্ধকার। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সান্ধ্যভ্রমণে গিয়ে প্রাণ হারান গঙ্গারামপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান অমলেন্দু সরকারের ছেলে কুনাল সরকার। জানা যায়, 37 বছরের যুবক কুণালবাবু পেশায় গঙ্গারামপুর মহাবিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞানের অধ্যাপক ছিলেন। তাঁর মৃত্যুতে বর্তমানে শোকাহত গোটা দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা। জানা যায়, পিতা রাজনীতি

তৃণমূল-বিজেপির হাওয়া একযোগে কেড়ে নিতে উপনির্বাচনের আগেই বাম- কংগ্রেস জোট নিয়ে বড় ভাবনা

এক সময় রাজ্যে লাল পার্টিদের বাড়বাড়ন্ত ছিল চোখে পড়ার মত। কিন্তু 2011 সালে ক্ষমতা হারানোর পর থেকেই আলিমুদ্দিনের রং যেন খসে পড়তে শুরু করে। রাজ্যের শাসন ক্ষমতায় তৃণমূল আসার পর বামফ্রন্ট বিরোধীদলের আসন দখল করলেও যতগুলো নির্বাচন হয়েছে, প্রায় সব নির্বাচনেই অস্তিত্ব বিপন্ন হয়েছে তাদের। পরবর্তীতে 2016 সালের তৃণমূল বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা

রাজ্যে বাম – কংগ্রেস জোট কি আবারও বিশ বাঁও জলে? সিপিএমের পদক্ষেপে বাড়ছে জল্পনা!

গত 2016 সালের রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনের সময় জোট বদ্ধ হয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নেমেছিল কংগ্রেস-বামফ্রন্ট। তবে একদিকে যেমন নীতির প্রশ্নে এই সোনার পাথরবাটি জোটকে প্রশ্নের মুখে ফেলেছিলেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা, অন্যদিকে তেমনই জনতার রায়ে মুখ থুবরে পড়তে হয় এই কংগ্রেস-বামফ্রন্ট জোটকে। সেবারের বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেস-বামফ্রন্ট জোট শুধু যে তৃণমূলের কাছে

কেন্দ্রবিরোধী আন্দোলন জোরদার করতে এবার বাম- কংগ্রেসের হাত ধরতেও প্রস্তুত তৃণমূল!

কথায় আছে,শত্রুর শত্রু আমার বন্ধু। কিন্তু যে শত্রুর বিরুদ্ধে লড়াই করে মানুষ প্রতিষ্ঠিত হয়, সেই শত্রুকে কখনও সে বন্ধু ভাবতে পারে না। তবে রাজনীতিতে অসম্ভব বলে কোনো কথা নেই। আর তাইতো 2011 সালে প্রবল বামবিরোধী দল হিসেবে পরিচিত তৃণমূল বামেদেরকে সরিয়ে ক্ষমতায় এসেছিল। মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অনেকে বলেন,

BIG BREAKING -হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে মেয়র, জেনে নিন

শিলিগুড়ির মেয়র অশোক ভট্টাচার্য আজ রবিবার সকালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন বলে জানা গেছে। তবে বর্তমানে তাঁর অবস্থা স্থিতিশীল বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা যাচ্ছে। আজ রবিবার সকালে তিনি বুকে ব্যাথা অনুভব করেন পারিবারিক চিকিত্‍সক তাঁকে ইসিজি করেন এবং হাসপাতালে ভর্তি করার পরামর্শ দেন।হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে ওখানকার চিকিৎসকরা পরীক্ষা

চূড়ান্ত জোট-রফা লড়াই ভুলে বিধানসভা উপনির্বাচনের ফর্মূলা “রেডি” বামফ্রন্ট – কংগ্রেসের

জোটের ব্যাপারে এখনও বাম-কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্বের মধ্যে বৈঠক সম্পন্ন হয়নি। তবে গত লোকসভা নির্বাচনে জোট না করে যে ভুল তারা করেছিল, তা থেকে শিক্ষা নিয়ে এবার পরবর্তী নির্বাচনগুলিতে যাতে সমঝোতা করে এগোনো যায়, সেই ব্যাপারে একপ্রকার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পথে এগিয়ে গেল আলিমুদ্দিন স্ট্রিট এবং বিধান ভবন। সূত্রের খবর, সামনেই রাজ্যের যে

Top
error: Content is protected !!