এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "kaliagang"

কালিয়াগঞ্জ তুমি কার? বুঝতে পারছেন না বিভিন্ন দলের ভোট ম্যানেজাররাও! চলছে 500-1000 বাজির খেলা

  বিভিন্ন নির্বাচনে সাধারণ মানুষদের আলোচনায় উঠে আসে কোন প্রার্থী এগিয়ে রয়েছেন, আর কে পিছিয়ে রয়েছেন। তবে এক্ষেত্রে এবার কিছুটা ব্যতিক্রম ভূমিকা পালন করেছেন কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের জনসাধারণ। নির্বাচনের দামামা বেজেছে। প্রচার হয়েছে। আর প্রত্যেক দলের প্রার্থীদেরকেই সমর্থন জানানোর কথা বলেছেন আমজনতা। কিন্তু সেইভাবে চায়ের ঠেক থেকে খবরের কাগজের দোকানে এই ভোট

ক্রমশ বাড়ছে স্নায়ুর চাপ! চুপ থাকা কালিয়াগঞ্জের হিসাব বুঝতে পারছে না কোনো পক্ষই

  নীরবতা বড়ই অদ্ভুত জিনিস। "গোপনো কথাটি রবে না গোপনে" গানে থাকলেও ভোটের প্রচারপর্বে মানুষের গোপন কথাটি কিছুতেই প্রকাশ্যে আনতে পারছেন না রাজনীতিবিদরা। হ্যাঁ, কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনের আগে অবস্থা ঠিক এমনটাই। প্রায় এক মাস ধরে চলছে প্রচার। সাধারণ মানুষের কাছে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রার্থীরা। মানুষ তাতে

পঞ্চানন বর্মা থেকে স্বপ্না বর্মন! কালিয়াগঞ্জ দখলে কোনো “সিড়িকেই” ছাড়তে নারাজ তৃণমূল

  কংগ্রেসিদের আঁতুড়ঘর হিসেবে পরিচিত উত্তর দিনাজপুর জেলা। গত 2016 সালে কালিয়াগঞ্জ বিধানসভায় জয়যুক্ত হন কংগ্রেসের বিধায়ক প্রমথনাথ রায়। কিন্তু তিনি পরলোকগমন করার ফলে তার ছেড়ে যাওয়া এই কেন্দ্রে আগামী 25 নভেম্বর উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। যেখানে সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলোই এই কেন্দ্র দখল করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল পর্যদস্তু হওয়ার পর

পুড়ল বিজেপির দলীয় পতাকা, বিক্ষোভ-অবরোধে উত্তাল কালিয়াগঞ্জ, ক্রমশ চড়ছে উত্তেজনার পারদ

  হাতে আর মাত্র কিছুদিন বাকি। তারপরেই কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা উপনির্বাচন। প্রশাসন থেকে শুরু করে সমস্ত রাজনৈতিক দল, প্রায় সকলেই চাইছে সুষ্ঠুভাবেই হোক এই নির্বাচন। কিন্তু বাংলায় নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হবে, এমন ধারণা প্রায় কম লোকেরই আছে। তবে তিন বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচন শান্তিপূর্ণ হবে হবে বলেই মনে করেছিল একাংশ। কিন্তু এবার কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা

কালিয়াগঞ্জ উপনির্বাচনে “গায়েব” হেভিওয়েট তৃণমূল নেতা, বসে গেছেন অনুগামীরাও! বাড়ছে জল্পনা

  উত্তর দিনাজপুর জেলায় তিনিই ছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতিনিধি। কিন্তু লোকসভা নির্বাচনের পর জেলা সভাপতির পদ থেকে তাঁকে সরিয়ে দেওয়ার পরই অপ্রাসঙ্গিক হতে শুরু করেন তিনি। তিনি আর কেউ নন, ইটাহারের তৃণমূল বিধায়ক অমল আচার্য। জেলার প্রায় প্রতিটি নির্বাচনেই তাকে মুখ্য ভূমিকা পালন করতে দেখা যেত। দলীয় প্রার্থীদের জয়ের লাভ করানোর জন্য

খড়গপুরের পর কালিয়াগঞ্জেও “প্রাক্তন” বিজেপি প্রার্থীর ক্ষোভে টালমাটাল গেরুয়া শিবির!

  কথায় আছে, "দশে মিলি করি কাজ, হারি জিতি নাহি লাজ।" সে সংস্থা হোক, ক্লাব হোক বা রাজনৈতিক দল, প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রেই একতা যদি না থাকে, তাহলে বিপর্যয় নেমে আসে। কথা ছিল, রাজ্যের তিন বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনের একতার ভিত্তিতে বিজেপি লড়াই করবে। কিন্তু প্রবল মতানৈক্যই যেন সামনে আসতে শুরু করেছে। প্রথমেই

কালিয়াগঞ্জ উপনির্বাচন: কোন পথে বাজিমাত? কি ভাবছে প্রধান তিন দল?

  লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের শাসক বিরোধী সমস্ত রাজনৈতিক দলই তাদের অবস্থা প্রত্যক্ষ করে নিয়েছে। তবে সকলেই একটা সুযোগ খুঁজছিলেন, যাতে আগামী 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে নিজেদের অবস্থা আরও একবার যাচাই করে নেওয়া যায়। সেইমতো তাদের কাছে সেই সুযোগও চলে এল। জানা গেছে, আগামী 25 নভেম্বর রাজ্যের 3 কেন্দ্রের বিধানসভা উপনির্বাচন। যার

কালিয়াগঞ্জ বিধানসভার উপনির্বাচনে কে হচ্ছেন বিজেপির প্রার্থী? নাম ঘোষণা করলো গেরুয়া শিবির

লোকসভা নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী দেবশ্রী চৌধুরী বেশ ভালো ভোটেই জয়লাভ করেছেন রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্র থেকে। কিন্তু লোকসভা নির্বাচনের পর অনেক সময় পেরিয়ে গেছে। রাজ্য রাজনীতিতে যে বিষয়গুলো নিয়ে এখন সবথেকে তোলপাড় হচ্ছে পরিস্থিতি, তার মধ্যে অন্যতম এনআরসি থেকে গান্ধী সংকল্প যাত্রা। যে গান্ধী সংকল্প যাত্রায় রায়গঞ্জের বিজেপি সাংসদ তথা কেন্দ্রীয়

লোকসভায় পিছিয়ে থাকলেও একাধিক স্থানীয় নির্বাচনে জয়, কালিয়াগঞ্জ নিয়ে আত্মবিশ্বাসী করছে তৃণমূলকে

  সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গে একটি আসনও নিজেদের দখলে রাখতে পারেনি ঘাসফুল শিবির। দক্ষিণপন্থীদের ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত রায়গঞ্জে হাত বা ঘাসফুল ফোটা তো দূর অস্ত, বরঞ্চ সেখানে ফুটে গিয়েছে পদ্মফুল। আর জেলায় একটি লোকসভা কেন্দ্র দখল করতে না পেরে এই ফলাফলের পরই উত্তর দিনাজপুর জেলার সংগঠনে পরিবর্তন আনেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অমল

Top
error: Content is protected !!