এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "joining"

বিজেপিতে যাওয়া নিয়ে মুখ খুললেন দেবশ্রী রায়, জেনে নিন

  গত 14 আগস্ট দিল্লিতে বিজেপির সদর দপ্তরে গিয়ে গেরুয়া শিবিরের পতাকা নিজেদের হাতে তুলে নিয়েছিলেন তৃণমূলের শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে শোভনবাবু এবং বৈশাখীদেবীর বিজেপিতে যোগদানের এই ঘটনায় আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে চলে এসেছিলেন রায়দিঘির তৃণমূল বিধায়িকা দেবশ্রী রায়। পরিস্থিতি এমন জায়গায় গিয়ে পৌঁছয় যে, দিল্লিতে বিজেপির সদর দপ্তরে সেই দেবশ্রী রায়কে

ফের শক্তি বাড়ালো ঘাসফুল শিবির, সাংসদের উপস্থিতিতে বড়সড় যোগদান

লোকসভা ভোটের পর থেকে বিভিন্ন দল ছেড়ে বিপুল পরিমাণে সদস্য বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন, কাল ক্রমে দেখা যাচ্ছে একে একে তাঁরা বিজেপির ঘর ছাড়ছেন। 2019 এর লোকসভা ভোটে বিজেপির যে ফলাফল হয়, তার নিরিখে বিজেপি দলে পরবর্তী কালে বিভিন্ন দল থেকে নেতা সদস্যরা এসে যোগদান করেন। কিন্তু এবার ফের নিজেদের ম্যাজিক দেখাতে

তৃণমূল নেত্রীর হাত ধরে বিজেপি থেকে ফিরলেন হেভিওয়েট নেত্রী, জল্পনা তুঙ্গে

লোকসভা ভোটের পর থেকে যে বিপুল পরিমাণে সদস্য বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন, কাল ক্রমে দেখা যাচ্ছে একে একে তাঁরা বিজেপির ঘর ছাড়ছেন। 2019 এর লোকসভা ভোটে বিজেপির যে ফলাফল হয়, তার নিরিখে বিজেপি দলে পরবর্তী কালে বিভিন্ন দল থেকে নেতা সদস্যরা এসে যোগদান করেন। পিছিয়ে ছিলেননা এ রাজ্যের শাসক দলও। সেখানেও বিভিন্ন

কেন যোগ দিয়েছেন বিজেপিতে, কারণ জানালেন মুকুল রায়

এক সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছায়াসঙ্গী ছিলেন তিনি। তৃণমূলে তিনিই ছিলেন সেকেন্ড-ইন-কমান্ড। দলীয় স্তরে পরিস্থিতি এমন জায়গায় পৌঁছে গিয়েছিল যে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অত্যন্ত আস্থাভাজন মুকুল রায় তৃণমূলের সমস্ত ব্যাপার সামলাতেন বলে দলের অনেক কর্মী দলটাকে "তৃণমুকুল কংগ্রেস" বলে অভিহিত করতেন। কিন্তু প্রায় আড়াই বছর আগে সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অত্যন্ত বিশ্বাসের জায়গায় থাকা

শাসকদলকে বড়সড় ধাক্কা দিয়ে বিজেপিতে যোগ হেভিওয়েট তৃণমূল নেতার , জেনে নিন

তৃণমূলকে বড়সড় ধাক্কা দিয়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন হেভিওয়েট তৃণমূল নেতা গঙ্গারামপুরের প্রাক্তন চেয়ারম্যান প্রশান্ত মিত্র।তিনি বিপ্লব মিত্রের ভাই। গত পরশু দাদা বিপ্লব মিত্রের অনুগামী হয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে বিজেপিতে নাম লেখান গঙ্গারামপুরের প্রাক্তন চেয়ারম্যান প্রশান্ত মিত্র।এনআরসি সহ একাধিক বিষয়ে রাজ্যের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নেতৃত্বাধীন তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে আওয়াজ তোলেন সর্বভারতীয় বিজেপি সভাপতি তথা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কথা দিয়েও বিজেপিতে যোগদান অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত কংগ্রেস নেতারা,নিজের গড়ে অস্বস্তিতে বিজেপি রাজ্য সভাপতি

রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের স্বয়ংসেবকদের দ্বারাই প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল ভারতীয় জনতা পার্টি। অটল বিহারী বাজপেয়ী থেকে শুরু করে নারেন্দ্র মোদী, বিজেপির সমস্ত প্রভাবশালী ব্যক্তিরাই একদা সংঘের শাখার সদস্য ছিলেন। কিন্তু জন্মস্থান এক হওয়া সত্ত্বেও বৈচারিক দিক থেকে প্রায়শই ঠোকাঠোকি লাগতে দেখা যায় সঙ্ঘের সঙ্গে ভারতীয় জনতা পার্টির। আর তারই ছাপ এদিন দেখা গেল

ফের বড়সড় ধাক্কা গেরুয়া শিবিরে, ঘরের ছেলে ঘরে ফিরলেন – জেনে নিন

রাজ্য রাজনীতির প্রেক্ষাপটে বর্তমানে দলবদল আর ঘর ওয়াপসি এই দুটোই অত্যন্ত পরিচিত শব্দ হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রায় প্রত্যেক দিনই হয় তৃণমূলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে কেউ বিজেপিতে যোগ দিচ্ছে, না হয় বিজেপিতে যোগ দেওয়া কোনো তৃণমূল নেতা পুনরায় নিজের ঘরে ফিরে আসছেন। আর নিত্যনৈমিত্তিক এই ঘটনায় এবার ফের ধাক্কা খেলেন ভারতীয়

বিজেপিকে ধাক্কা দিয়ে হুগলিতে ফিরহাদ হাকিমের হাত ধরে ‘ঘর ওয়াপসি’! তীব্র কটাক্ষ গেরুয়া শিবিরকে

লোকসভা নির্বাচনে বাংলার 42 টি লোকসভা আসনের মধ্যে বিজেপি 18 টি এবং তৃণমূল 22 টি আসন দখল করে। আর সেদিক থেকে বিজেপি সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় ব্যাপক সাফল্য পেলেও তৃণমূল 34 থেকে 22 এ নেমে আসার পরই বিভিন্ন পৌরসভার রং সবুজ থেকে গেরুয়া হয়ে যায়। তৃণমূল পরিচালিত অনেক পৌরসভার সিংহভাগ

এবার তৃণমূলের ঘর ভাঙলেন বিজেপির হেভিওয়েট নেতা,অস্বস্তি তৃণমূলে

সোমবার গোপীবল্লভপুরের বংশীধরপুর চকের সভা করে বিজেপি। আর সেই সভায় উপস্থিত ছিলেন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু, রিমঝিম মিত্র সমেত স্থানীয় দলীয় নেতৃত্ব। আর সেখানেই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন বহু কর্মী সমার্থক। জানা যাচ্ছে এদিন এলাকার কয়েকজন তৃণমূল কর্মী সমর্থক তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন। তাঁদের হাতে দখলীয় পতাকা তুলে দেন

ফের তৃণমূলের ঘরে ভাঙ্গন ধরালো বিজেপি, বড়োসড়ো শক্তি বৃদ্ধি গেরুয়া শিবিরের-দাবি এমনটাই

লোকসভা ভোট মিটে গেছে অনেকদিন। প্রাথমিকভাবে ভেঙে পড়ার পর ফের ঘুরে দাঁড়িয়েছে ঘাসফুল শিবির। ভোট ম্যানেজার প্রশান্ত কিশোরকে নিয়োগ করে তার নির্দেশ মত সমস্ত কাজ এখন করছে তৃণমূল শিবির। যার ফলে কিছুটা হলেও নিজেদেরকে গোছাতে পেরেছে বলে দাবি তৃণমূলের। কিন্তু ঘর ভাঙ্গা থেকে কিছুতেই রেহাই পাচ্ছে না রাজ্যের শাসক দল। দল

Top
error: Content is protected !!