এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "internal clash"

খুন হওয়া তৃণমূল নেতার পদ নিয়েই চলছে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব – জোর জল্পনা

কিছুদিন আগেই খুন হয়েছেন পাঁশকুড়ার মাইশোরা এলাকার দাপুটে তৃণমূল নেতা কুরবান শা। আর তার মত এহেন তরতাজা এবং প্রভাবশালী নেতার মৃত্যুর পরেই তার দাদা আফজল শাকে মাইশোরা এলাকার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা তথা মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর অনুরোধেই নিহত নেতার দাদা এই দায়িত্ব পেয়েছেন বলে দাবি একাংশের। কিন্তু নিহত

জিলাপি কেনা নিয়ে বিবাদের জেরে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব! গুলিবিদ্ধ হয়ে আশঙ্কাজনক তৃনমূল নেতার স্ত্রী

লোকসভা নির্বাচন সম্পন্ন হওয়ার পর থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় শাসক দল তৃণমূল বনাম বিরোধী দল বিজেপির রাজনৈতিক সংঘর্ষ তীব্র আকার ধারণ করে। তবে বাঙালির প্রিয় উৎসব দুর্গাপূজোতে সেই রাজনৈতিক সংঘর্ষ কিছুটা হলেও বিরতির আকার নেবে বলে মনে করেছিল বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু তা তো হলই না, উল্টে বিভিন্ন জায়গায় প্রত্যক্ষ করা গেল

ফের তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে সভাপতির বিরুদ্ধে মন্ত্রীর দ্বারস্থ

জলপাইগুড়িতে শাসকদলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব যত দিন যাচ্ছে, ততই বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। এবার জলপাইগুড়িতে তৃণমূলের অন্দরে অন্তর্দ্বন্দ্ব চরম আকার ধারণ করেছে। সূত্রের খবর, তৃণমূলের নতুন জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে মন্ত্রীর কাছে ক্ষোভ দেখিয়ে গেলেন ময়নাগুড়ি তৃণমূল বিধায়ক সহ ব্লক-সভাপতিরা। সূত্রের খবর, এদিন এই বিষয়ে জলপাইগুড়ি সার্কিট হাউসে পর্যটন মন্ত্রীর সাথে বৈঠক করলেন

ফের বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে, দলীয় কর্মীর স্ত্রীর উপর হামলার অভিযোগ বিজেপির মন্ডল সভাপতি

লোকসভা ভোটের আগে থেকেই বঙ্গে বিজেপির বাড়বাড়ন্ত লক্ষণীয়। বর্তমানে শাসকদলকে টেক্কা দিতে পারে এখন বঙ্গের সেরকম একটি দল আছে তাহলে বিজেপি।লোকসভা ভোটের পর চিত্র পরিষ্কার হয়ে গেছে 42 টি আসনের মধ্যে 18 টি আসন বিজেপি নিজের দখলে রেখেছে। সাথে অন্য দল ভেঙে নিজেদের ঘর গুছিয়েছে গেরুয়া শিবির। এখনো সে ধারা

হেভিওয়েট নেতাকে বহিস্কার করেও রেহাই নেই! আরও চওড়া শাসকদলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফাটল!

উত্তর দিনাজপুর জেলায় তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব কিছুতেই কমছে না। রায়গঞ্জ সেন্ট্রাল কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্কের চেয়ারম্যান মাসুদ মহম্মদ নাসিম এহসানকে দল থেকে বহিষ্কার ইস্যুতে এবার গোয়ালপোখর ব্লকে শাসকদলের গোষ্ঠীকোন্দল প্রকাশ্যে চলে এল। বস্তুত, বর্তমানে রাজ্যের পঞ্চায়েত দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী গোলাম রব্বানির খাসতালুকে খোদ শাসকদলের এই পরিণতি জেলাজুড়ে রাজনৈতিক মহলের তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। সূত্রের খবর, বুধবার

দুই হেভিওয়েট নেতার দ্বন্দ্বে তৃণমূলের সাংগঠনিক পরিবর্তন নিয়ে তুলকালাম দলের মধ্যেই

লোকসভা ভোটে দলের ভরাডুবির পর জেলা সভাপতির পরিবর্তন হলে জেলায় প্রবল গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের আশঙ্কা করেছিলেন একাংশ। তবে এতদিন তা প্রকাশ্যে সেইভাবে দেখা না গেলেও সোমবার জলপাইগুড়ির সমাজপাড়ায় তৃণমূল কংগ্রেসের কার্যালয়ে জেলা সভাপতির সঙ্গে প্রবল বাকবিতণ্ডায় জড়াতে দেখা গেল দলেরই বিধায়কদের। মূলত বুথ কমিটির নিয়ন্ত্রণ কার হাতে থাকবে, তা নিয়েই প্রকাশ্যে চলে

নিজের ছেলেকে বড় পদ দিয়ে ‘মনের মত’ সাংগঠনিক পরিবর্তন বিধায়কের! তীব্র দ্বন্দ্ব শাসকদলে

উত্তর দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের অন্দরে বিতর্ক যেন কমছে না কিছুতেই। এবার ইসলামপুর ব্লকের অঞ্চল কমিটি ঘোষণা করে ফের বিতর্ক তৈরি করে দিলেন ইসমপুরের তৃণমূল বিধায়ক আবদুল করিম চৌধুরী। সূত্রের খবর, সোমবার বিকালে গোলঘরে করিম সাহেব একটি সাংবাদিক বৈঠক করেন। আর ওই বৈঠকেই তাঁর ছেলে তথা ঘোষিত ব্লক কমিটির সভাপতি মেহেতাব

রাজ্য নেতৃত্বে ডাকা বৈঠকে গরহাজির প্রাক্তন মন্ত্রী, জোর জল্পনা

সম্প্রতি মালদা ইংরেজবাজার পুরসভায় গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফলে তৃণমূল পরিচালিত পৌরসভায় নিহার রঞ্জন ঘোষ এর বিরুদ্ধে 15 জন কাউন্সিলর অনাস্থা প্রস্তাব আনেন। দলীয় নেতাদের অনুমান বিক্ষুব্ধদের নেতৃত্বে আছেন প্রাক্তন পৌর প্রধান কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী। অনাস্থা প্রস্তাব কাটাতে বিক্ষুব্ধ কাউন্সিলরদের কলকাতার বৈঠকে ডাকা হয়েছিল। কিন্তু বৈঠক গরহাজির ছিলেন প্রাক্তন পুরপ্রধান কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী। বৈঠকে পুরমন্ত্রী

রাজ্য বিজেপির দপ্তরে বিক্ষোভ দলীয় কর্মীদের, সামনে এলো গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব বড়সড় অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির

2019 এর লোকসভা ভোটের পর থেকেই রাজ্যে বিজেপি 2021 এর বিধানসভা ভোটের লক্ষ্যে সংগঠন বিস্তার করতে শুরু করেছে। এ ব্যাপারে তারা সদস্য সংগ্রহ অভিযান চালায় পশ্চিমবঙ্গে। যেখানে দেখা গেছে, সারা ভারতে বাংলা থেকে সবথেকে বেশি সদস্য সংগ্রহ হয়েছে। কিন্তু বিজেপি নেতৃত্বকে ভাবাচ্ছে এখন অন্য চিন্তা। সংগঠন বাড়ার সাথে সাথে দলে

দুই হেভিওয়েট নেতার দ্বন্দ্ব স্পষ্ট হয়ে গেল প্রকাশ্য মঞ্চেই, তীব্র অস্বস্তিতে শাসকদল

লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গ জুড়ে দলের খারাপ ফলাফলের পর বেশ কিছু জেলার সাংগঠনিক রদবদল করেছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেক্ষেত্রে ব্যতিক্রম নয় জলপাইগুড়ি জেলাও। এতদিন সেইখানে সৌরভ চক্রবর্তী দায়িত্বে থাকলেও তারই বিরুদ্ধ গোষ্ঠীর নেতা হিসেবে পরিচিত কিষান কল্যানীকে লোকসভা নির্বাচনের পর দায়িত্ব দেয় তৃণমূল। যার ফলে সেই জলপাইগুড়ি জেলায় প্রাক্তন বনাম

Top
error: Content is protected !!