এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "Hooghly"

“হুগলি জেলাকে কেউ কেউ বিজেপির হাতে তুলে দিতে চেয়েছেন” বিস্ফোরক তৃণমূল সাংসদ

লোকসভা নির্বাচনে এবার তৃনমূল 22 এসে দাঁড়িয়েছে। যার ফলে উত্তরবঙ্গ থেকে তারা একটি আসন না পেলেও দক্ষিণবঙ্গ থেকেই প্রায 22 টি আসন ঘাসফুল শিবিরের দখলে এসেছে। তবে এবার নির্বাচনে জয়লাভ করার পরও হুগলি জেলা নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করতে দেখা গেল শ্রীরামপুর লোকসভা কেন্দ্রে তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়কে। বস্তুত, এবারে হুগলি লোকসভা

কেন পদ হারালেন তৃণমূলের হেভিওয়েট মন্ত্রী, পিছনে কি প্রশান্ত কিশোর – জল্পনা তুঙ্গে

লোকসভা নির্বাচনে খারাপ ফল হওয়ার পর বেশ কয়েকদিন ধরেই জল্পনা শোনা যাচ্ছিল। অবশেষে তা বাস্তবায়িত হল। হুগলি জেলা তৃণমূলের সভাপতির পদ থেকে সরানো হল তপন দাশগুপ্তকে। তপনবাবুকে সরিয়ে তাঁর জায়গায় বসানো হয়েছে দিলীপ যাদবকে। এর আগে তৃণমূলের কার্যকরি সভাপতি হিসেবে আরামবাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত ছিলেন তিনি। এর পাশাপাশি সাংগঠনিক শক্তি বাড়িয়ে জেলায় ঘুরে

জেনে শুনেই কি বিষ পান করতে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী, জেনে নিন বিস্তারিত

এই প্রথম রথের রশিতে টান দিতে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী, হিন্দু ভোটকে টানতেই এই কৌশল দাবি বিরোধীদের।এবারের লোকসভা ভোটে তৃণমূলকে কিছুটা চাপে ফেলে দিয়ে বিজেপি 18 টি আসন নিজেদের দখলে রেখে ঘাসফুল শিবিরের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলতে শুরু করেছে। আর বাংলায় বিজেপির এই উত্থানের পরই জয় শ্রীরাম স্লোগানকে কেন্দ্র করে তীব্র রাজনৈতিক উত্তাপ

হুগলি ও শ্রীরামপুর কেন্দ্রে “কাটে কি টক্কর” বিজেপি ও তৃনমূল – প্রমাণ করছে দুই শিবির

বর্ষ বিদায়ের শেষ দিন অর্থাৎ রবিবারে লোকসভার প্রচার যেন জমে উঠল হুগলি জেলার দুই লোকসভা কেন্দ্রে। শাসক এবং বিরোধী - প্রবল গ্রীষ্মের তীব্র তাপদাহকে উপেক্ষা করে প্রচারে নেমে ঝড় তুলতে মরিয়া সব দলের প্রার্থীরাই। জানা গেছে, এদিন সকাল ন'টা নাগাদ সপ্তগ্রাম বিধানসভার আকনা গ্রাম পঞ্চায়েতের বাড়োল মাঠ থেকে হুডখোলা জিপে

হুগলির লড়াই কঠিন জেনেও প্রচারেই শাসকদলের সঙ্গে সমানে টক্কর দিচ্ছেন লকেট চ্যাটার্জি

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে এই রাজ্যে মূল লড়াই শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস বনাম বিরোধী দল বিজেপির মধ্যে। প্রায় প্রতি কেন্দ্রেই একে অপরের বিরুদ্ধে প্রচারে ঝড় তুলতে রীতিমতো মরিয়া হয়ে উঠেছে দু'পক্ষ। আর সেই রকমই শাসক-বিরোধী দুই দলের প্রচারে রীতিমত ঝড় উঠতে দেখা গেল হুগলি লোকসভা কেন্দ্রে। সূত্রের খবর, মঙ্গলবার ধনেখালিতে যখন জোর

নতুন অস্বস্তিতে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, তাঁর বিরুদ্ধে এফআইআর – কে করল? কেন করল? জানুন বিস্তারিত

যত দিন যাচ্ছে ততই ক্রমশ রাজনৈতিক উত্তাপ বাড়ছে রাজ্যের দুই যুযুধান দল তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপির বিরুদ্ধে। কেউ কাউকে এক ইঞ্চি জমি ছাড়তে রাজি নয়। ইতিমধ্যেই শাসকদল তৃণমূল হুঙ্কার দিয়ে রেখেছে রাজ্য থেকে ৪২ টি আসনেই জয়ী হবে তারা। অন্যদিকে বিজেপির দাবি - অন্তত ২২ টি আসন যাবে তাদের ঝুলিতে। এই

Top
error: Content is protected !!