এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "Congress"

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হয়েই কি বদলা নিলেন অমিত শাহ, জল্পনা বিজেপির-কংগ্রেসের অন্দরে

দিল্লির অশোক রোডের 9 নম্বর বাড়িতে থাকতেন দেশের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী তথা প্রবীণ বিজেপি নেতা অরুণ জেটলি। আর অরুণ জেটলির 9 নম্বর বাংলোটির পাশের 11 নম্বর টিই সেই সময় ছিল বিজেপির সদর দপ্তর। সেই সময় অরুণ জেটলি ছিলেন রাজ্যসভার বিরোধী দলনেতা। সেইখানে চুপচাপ বসে থাকতে দেখা যেত এক আগন্তুককে। তিনি আর

কংগ্রেস ও গান্ধী পরিবারকে দ্বিধাবিভক্ত করে শোরগোল তুলে দিলেন দিলীপ ঘোষ

লোকসভা নির্বাচনে এবার কংগ্রেসের ব্যাপক ভরাডুবি হওয়ার পরই দলের সমস্ত পরাজয়ের দায় নিজের কাঁধে নিয়ে সর্বভারতীয় সভাপতির পদ থেকে পদত্যাগ করতে চেয়েছিলেন' রাহুল গান্ধী। কিন্তু তাকে ঘিরেও কম নাটক হয়নি। রাহুল গান্ধী যাতে ইস্তফা না দেন, তার জন্য দলের অন্যান্য সদস্যরা তাকে অনেক জোরাজুরিও করেছিলেন। তবে শেষ পর্যন্ত নিজের অবস্থানে অনড়

চূড়ান্ত জোট-রফা লড়াই ভুলে বিধানসভা উপনির্বাচনের ফর্মূলা “রেডি” বামফ্রন্ট – কংগ্রেসের

জোটের ব্যাপারে এখনও বাম-কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্বের মধ্যে বৈঠক সম্পন্ন হয়নি। তবে গত লোকসভা নির্বাচনে জোট না করে যে ভুল তারা করেছিল, তা থেকে শিক্ষা নিয়ে এবার পরবর্তী নির্বাচনগুলিতে যাতে সমঝোতা করে এগোনো যায়, সেই ব্যাপারে একপ্রকার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পথে এগিয়ে গেল আলিমুদ্দিন স্ট্রিট এবং বিধান ভবন। সূত্রের খবর, সামনেই রাজ্যের যে

জহরলাল নেহেরুকে অপরাধী বলে বিতর্কে বিজেপি নেতা, শোরগোল দেশজুড়ে

জহরলাল নেহেরু একজন অপরাধী ,তাঁর জন্যই আজ কাশ্মীর সমস্যা মেটেনি " এমনি দাবি করলেন এদিন মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ও বিজেপি নেতা শিবরাজ চৌহান। উড়িষ্যার খুরদার কর্মিসভায় এদিন এমনি এক মন্তব্য করে বিতর্ক বাড়ালেন বিজেপি নেতা। প্রসঙ্গত, মোদী সরকার এদিন ৩৫ এ ও ৩৭০ ধারা বিলোপ করেন। যা নিয়ে মন্তব্য করতে গিয়েই

অনেক ঢাক-ঢোল পিটিয়েও গান্ধী পরিবারের আনুগত্য থেকে বেরোতে পারল না কংগ্রেস

অবশেষে যবনিকার পতন হল। রাহুল গান্ধীর পরে সভাপতি হিসেবে সেই গান্ধী পরিবারের উপরই ভরসা রাখল কংগ্রেস। বস্তুত, লোকসভা নির্বাচনে এবার কংগ্রেসের ভরাডুবির পর দলের সমস্ত ব্যর্থতার দায় স্বীকার করে নিয়ে নিজের পদ থেকে পদত্যাগ করতে চেয়ে ছিলেন কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধী। আর তখন থেকেই শুরু হয়েছে তীব্র নাটক। রাহুল গান্ধী

কংগ্রেস নেতাদের দুর্নীতি নিয়ে “বিস্ফোরণ” ঘটিয়ে দল ছাড়তে চলেছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি

সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে মোদি সরকারকে হটিয়ে তাদের সরকার প্রতিষ্ঠিত হবে বলে আশা প্রকাশ করেছিলেন রাহুল গান্ধী। কিন্তু তা সম্ভব হয়নি। ফলাফল প্রকাশে দেখা গেছে যে সারা দেশে যেমন আরও বেশি করে মোদি ঝড় উঠেছে, ঠিক তেমনই অনেক জায়গাতেই পরাজয় স্বীকার করে নিতে হয়েছে কংগ্রেস প্রার্থীদের। এমনকি অবস্থা এমন পর্যায়ে গিয়েছে

হেভিওয়েট কংগ্রেস নেতা যোগ দিলেন বিজেপিতে, তীব্র অস্বস্তি হাত শিবিরে

দ্বিতীয়বারের জন্য সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনের ফলাফলে ব্যাপক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে ফের কেন্দ্রের ক্ষমতা দখল করেছে নরেন্দ্র মোদী নেতৃত্বাধীন বিজেপি দল। আর গেরুয়া শিবিরের এই ব্যাপক উত্থানের পরই দিকে দিকে বিভিন্ন রাজ্যের বিরোধী দলের নেতারা বিজেপিতে নাম লেখাতে শুরু করেন। যার জেরে নির্বাচনের আগে শুরু হওয়া বিজেপি বিরোধী মহাজোটের স্বপ্ন ভেস্তে যায়। পশ্চিমবাংলায়

সোমেন মিত্র বনাম অধীর চৌধুরীর দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে, অস্বস্তিতে কংগ্রেস

অধীর চৌধুরী প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি থাকার সময়ই তাকে সরিয়ে সোমেন মিত্রকে সেই পদে বসায় কংগ্রেস হাইকম্যান্ড। যার পর থেকেই প্রদেশ কংগ্রেস সোমেন বনাম অধীরের দ্বন্দ্ব তীব্র থেকে তীব্রতর হয়ে উঠতে শুরু করে। আর এবার কাশ্মীর ইস্যুতে সংসদে কংগ্রেসের দলনেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরীর বিতর্কিত মন্তব্যে তার পাশে না দাঁড়িয়ে সেই দ্বন্দ্বকে

কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে রাহুল ঘনিষ্ঠ নেতারা মোদির পাশে, বাড়ছে জল্পনা

মোদি সরকারের কাশ্মীর নিয়ে সাহসী সিদ্ধান্তের বিরোধিতা কংগ্রেসের পক্ষ থেকে করা হলেও এখন রাহুল গান্ধীর ঘনিষ্ঠ নেতা, নেত্রীরা এই ইস্যুতেই বিজেপির পাশে দাঁড়াতে শুরু করেছেন। বস্তুত, সোমবার রাজ্যসভার পর মঙ্গলবার লোকসভায় 370 ধারা বিলোপ এবং জম্মু-কাশ্মীরকে দ্বিখণ্ডিত করার জন্য মোদি সরকারের পক্ষ থেকে বিল পাস করা হয়েছে। ফলে এখন থেকে জম্মু-

তৃনমূল, বিজেপিকে রুখতে অবিলম্বে বাম-কংগ্রেসের জোট হওয়া উচিত বলে জানিয়ে দিলেন এই কংগ্রেস নেতা

গত 2016 বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলকে ক্ষমতার কেন্দ্রবিন্দু থেকে সরাতে হাত ধরে ছিলেন তৎকালীন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী এবং সিপিএমের সূর্যকান্ত মিশ্র। তবে সেইভাবে ভোটের ফলাফলে সাফল্য মেলেনি তাদের। কিন্তু রাজনীতিতে সামরিক বলে কিছু নেই। সবই সময়ের ব্যাপার। অত্যন্ত ধৈর্যের সহকারে সমস্ত কিছুকে অক্ষত রাখতে হয়। তবে এইখানেই মস্ত বড়

Top
error: Content is protected !!