এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "cm mamata banerjee"

লোভ সংবরণ করুন – নিজের দল ও প্রশাসনকে বড়সড় বার্তা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

লোকসভা নির্বাচনে তার দলের খারাপ ফলাফল হওয়ার পেছনে নেতাদের দুর্নীতি যে অনেকাংশেই দায়ী, তা বুঝতে বাকি নেই তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। আর তাইতো খারাপ ফলাফল নজরে আসার পরই কেউ দুর্নীতি করলে তার টাকা তাকেই ফেরত দিতে হবে বলে জানিয়ে দিতে দেখা গিয়েছিল সেই তৃনমূল নেত্রীকে। আর প্রশাসনিক প্রধানের এই

বেকার যুবক-যুবতীর জন্য সুখবর বয়ে আনলো মমতা সরকার, জেনে নিন বিস্তারিত

পশ্চিমবঙ্গে বেকার সমস্যা নতুন কোনো কিছু নয়। দিনে দিনে দিনে যত শিক্ষার প্রসার, প্রচার বেড়েছে, ততই চাকরিপ্রার্থীদের সংখ্যাও বেড়েছে। অতীতে কংগ্রেসের শাসনকাল, পরবর্তীতে বামফ্রন্ট জামানায় এবং বর্তমানে তৃণমূল জাতীয় বেকারদের চিত্রটা কোনো অংশে পরিবর্তিত হয়নি। যদিও রাজ্য সরকার তার নিজের মতো করে স্কিল ডেভলপমেন্ট ভোকেশনাল ট্রেনিং, আইটিআই, আইআইটিআই ইত্যাদির মাধ্যমে বৃত্তীয়

পিকের টিমকে কাজে “বাধা” দিয়েই কি বদলি দুই শীর্ষ সরকারি আধিকারিক? তোলপাড় রাজ্য

লোকসভা নির্বাচনে দলের ভরাডুবির পর দলকে জনসংযোগে পাঠিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দলের রণনীতি নির্ধারণ করতে ভোটগুরু হিসেবে পরিচিত প্রশান্ত কিশোরকে নিয়োগ করেছেন তৃণমূল নেত্রী। আর এরপরই কিছুদিন আগেই "দিদিকে বলো" নামে একটি কর্মসূচি তৈরি করে সাধারণ মানুষ যাতে একটি নির্দিষ্ট নম্বরে সমস্ত অভাব, অভিযোগ সরাসরি মুখ্যমন্ত্রীর কাছে

সবুজায়নের লক্ষ্যে মুখ্যমন্ত্রী রাজপথে হাঁটলেও বৃক্ষনিধনে ব্যস্ত শাসকদলের হেভিওয়েট নেত্রী, সমালোচনা সব মহলে

সবুজকে বাঁচাতে ইতিমধ্যেই সবুজ বাঁচাও অভিযান করে কলকাতার রাস্তায় পদযাত্রা করতে দেখা গেছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। দলীয় জনপ্রতিনিধি থেকে সাধারণ মানুষ, প্রায় সকলের উদ্দেশ্যেই সবুজকে লালন করার কথা বলেছেন তিনি। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী যখন এই কথা বলছেন, ঠিক তখনই রাস্তার ধারে লক্ষাধিক টাকার মূল্যবান গাছ কাটার অভিযোগ উঠল তারই দলের এক

শারদোৎসব নিয়ে মাঠে নেমে পড়লেন মুখ্যমন্ত্রী, পুজো মণ্ডপগুলিকে বিজেপির হাত থেকে বাঁচাতেই কি এত তৎপরতা! জোর গুঞ্জন

লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশের পরই বাংলায় গেরুয়া শিবিরের উত্থান ঘটেছে। রাজনীতির পাশাপাশি সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রেও প্রবেশ করতে শুরু করেছে বিজেপি। খেলার মাঠ, টলিপাড়া থেকে শুরু করে আসন্ন শারদোৎসবে কিভাবে নিজেদের বিস্তার লাভ করা যায়, তার জন্য ছক কষছে তারা। খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দুর্গাপুজোর উদ্যোক্তাদের মাধ্যমে দলীয় সাংসদ এবং নেতাদের জনসংযোগে

মুখ্যমন্ত্রীর আশ্বাসে অবশেষে উঠল অনশন, খুশির হাওয়া কর্মপ্রার্থীদের – জানুন বিস্তারিত

অনেকেই আশা করেছিলেন, মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার পর হয়ত বা অচলাবস্থা কেটে যাবে। আর যেমনটা আশা ছিল, ঠিক তেমনটাই হল। প্রসঙ্গত, নদীয়ার বিভিন্ন পঞ্চায়েতে প্রায় 121 জন কর্মপ্রার্থী কর্মী নিয়োগের পরীক্ষায় পাশ করেছিলেন। তবে সফল কর্মপ্রার্থীদের তালিকা প্রকাশের পর বছর ঘুরে গেলেও তাদের নিয়োগপত্র দেওয়া হচ্ছিল না বলে অভিযোগ ওঠে।

ছিল মুখ্যমন্ত্রীর ছবি দেওয়া অফিস, হয়ে গেল বাংলার আবাস যোজনা ঘর

দীর্ঘক্ষণ বিক্ষোভ চলার পর অবশেষে ঘরের দেওয়ালে বাংলার আবাস যোজনার প্রকল্পের আইডি নম্বর এবং উপভোক্তার নাম লিখে দিতে বাধ্য হল পূর্ব বর্ধমানের জামালপুর 2 পঞ্চায়েত। কিন্তু ঘরটি তালাবন্ধ থাকায় সেইখানে উপভোক্তা বৃদ্ধ শঙ্কর মাঝি ঢুকতেই পারেননি। প্রশাসনের পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে, দুদিন এই ঘরটি পুলিশ পাহারা দেবে। তারপরই শুক্রবার

টলিপাড়ায় ক্রমশ ঝড় তুলছে শঙ্কুদেবের সংগঠন, থামাতে আসরে নামছেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী? জল্পনা চরমে

শঙ্কুদেব পণ্ডা যখন তৃণমূল কংগ্রেস করতেন, তখন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অত্যন্ত স্নেহধন্য ছিলেন তিনি। পারিবারিক 'খুঁটির জোরে' নয়, সম্পূর্ণ নিজের 'সাংগঠনিক দক্ষতায়' তৃণমূলে ওই জায়গাটি নিয়েছিলেন তিনি বলে অভিমত রাজনৈতিক মহলের। শঙ্কুদেব তৃণমূল নেত্রীর এতটাই কাছের মানুষ ছিলেন যে তিনি তৃণমূল নেত্রীকে 'দিদি' নয় 'পিসি' বলেই ডাকতেন। আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও

মমতার হাত ছেড়ে কে কে মোদির হাত ধরছেন আজ দিল্লিতে , জেনে নিন

লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের তৃণমূলের ভরাডুবি হওয়ার পর এই ঘাসফুল শিবিরের অন্দরমহল ভাঙতে শুরু করেছে।লোকসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর থেকেই রাজ্যের তৃণমূলের ভরাডুবি এবং বিজেপির উত্থানের পর একের পর এক পৌরসভার কাউন্সিলর এবং বিধানসভার বিধায়করা বিজেপিতে যোগদান করতে শুরু করেন। ইতিমধ্যেই রাজ্যে প্রধান বিরোধী দল হয়ে ওঠা গেরুয়া শিবিরে নাম লেখাতে

নদীয়াতে মোদির সভায় জনসমুদ্র! “স্টিকার দিদি” নামে তৃণমূল নেত্রীকে তীব্র আক্রমণ প্রধানমন্ত্রীর

কেন্দ্রের বিজেপি নেতৃত্বরা ফের ক্ষমতায় আসতে দেশের অন্যান্য রাজ্যগুলির সাথে এবার বাড়তি নজর দিয়েছে বাংলায়। আর তাইতো নির্বাচনের দামামা বাজবার পর একাধিক বার বাংলায় এসে গেরুয়া ঝড় তুলে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী থেকে শুরু করে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। বুধবার ফের বঙ্গ সফরে আসলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এদিন নদীয়ার তাহেরপুরের

Top
error: Content is protected !!