এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "calcutta"

বিজেপি বিরোধীতার বৃহৎ মঞ্চে মমতার আমন্ত্রণ নিয়ে কি বলছেন বিরোধীরা?

ধর্মতলায় শহীদ সমাবেশে লক্ষ মানুষের সমাগম হয়েছিল। তবে সেখানে উপস্থিত ছিলেন শুধুমাত্র ঘাসফুল সমর্থকেরাই। এবার বিজেপি বিরোধী দলগুলোকে নিয়ে সভা করে লোকসভা ভোটের আগে মোদীজির ঘুম উড়িয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো। ২০১৯ এর গোড়ার দিকেই প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনী যুদ্ধের দিন ঘোষণা হওয়ার প্রবল সম্ভাবনা। সেকথা মাথায় রেখেই ১৯ জানুয়ারি বিজেপি

কুমোরটুলির মৃৎশিল্পকে বাঁচাতে অভিনব পদক্ষেপ কেন্দ্রের, হাসি ফুটছে প্রতিমা শিল্পীদের

পুজোর বাকি মেরেকেটে ২ মাস। তার আগে কুমোরটুলির মৃৎশিল্পীদের কেন্দ্র সরকার নিয়ে এল পুজো উপহার। মৃতশিল্পীদের দেওয়া হবে ব্লোয়ার মেশিন। ফলে মাটি শুকনোর কাজ হবে নিশ্চিন্তে। দুর্গাপ্রতিমা গড়ার কাজে সবচেয়ে বড় সমস্যা কাঁচা মাটির শুকোনো। বিদেশেও প্রতিমার অর্ডার থাকে। ফলে বর্ষাকাল থেকেই কাজ শুরু করে দেন কুমোরটুলির মৃতশিল্পীরা। কিন্তু মাঝে

আবার দুদিনের বঙ্গ সফরে অমিত শাহ – ৩ রা আগস্ট জোড়া ফলায় বিদ্ধ করবেন তৃণমূলকে?

আগামী ৩রা আগস্ট মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের পশ্চিমবঙ্গের পঞ্চায়েত ভোটে দুর্নীতি সংক্রান্ত মামলায় রায় বেরনোর দিনই কলকাতার রানি রাসমণি রোডে মহা যুব সম্মেলন মঞ্চে ভাষণের দিন ঠিক করল বিজেপি। বিজেপির এই সিদ্ধান্ত থেকে পরিষ্কার একই দিনে ঘাসফুল শিবিরকে জোড়া ধাক্কা দিয়ে রাজনৈতিক আক্রমণকে আরও শাণিত করতে চাইছে বিজেপি। ঠিক হয়েছে বিজেপি’র

শহীদ দিবসে এসেছিলেন কিন্তু শহীদ দিবস কি জানা নেই কর্মীদের

শহীদ দিবসে তৃণমূলের জনসভা চত্বরে ভিড় জমিয়েছেন লক্ষ লক্ষ সমর্থক। মঞ্চ থেকে তৃণমূলের নেতারা জ্বালাময়ী ভাষণ দিচ্ছেন। দর্শকাসনে মুর্হুমুহু হাততালি দিচ্ছেন উপস্থিত জনতা। বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের প্রতিনিধিরা কথা বলছিলেন দর্শকাসনে বসে থাকা তৃণমূল সমর্থকদের সঙ্গে। তাঁদের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন করা হল, শহীদ দিবস কী? দর্শকাসনে উপস্থিত দলীয় কর্মীদের একাংশ ঘাড় নাড়লেন,

অভিষেকের উপরেই তৃণমূলের সব দায়িত্ব দিতে চলেছেন মমতা? নেতাদের বক্তৃতায় জল্পনা

বারবার প্রশ্ন উঠেছে, মমতা ব্যানার্জির পর তৃণমূলের হাল কে ধরবে? মমতা স্বয়ং এই প্রশ্নের সরাসরি কোনও উত্তর দেননি। এড়িয়ে গিয়েছেন। একটি সর্বভারতীয় চ্যানেলকে শুধু বলেছিলেন, 'সেসব ঠিক করা আছে।' এতদিনে বোধহয় সেই প্রশ্নের উত্তর মিলল। সঙ্গে জন্ম দিয়ে গেল আরও অনেক অনেক প্রশ্নের। গতকাল অর্থাৎ শনিবার ধর্মতলায় শহীদ দিবসের মঞ্চ মুখ্যমন্ত্রী

মুখ্যমন্ত্রীর নজিরবিহীন পদক্ষেপ – রাজ্যের অফিসারদের অক্সফোর্ডে ট্রেনিং

কর্মদক্ষতা বাড়াতে কর্মীদের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠাতে চলেছে রাজ্য সরকার। এজন্য বাছা হচ্ছে ২৫ থেকে ৩০ সরকারি কর্মীর একটি দল। নবান্নের এক কর্তার মতে, মুখ্যমন্ত্রী ও রাজ্য সরকার রাজ্যের অফিসারদের বিদেশে পাঠিয়ে সরকারি কাজে আরও অভিজ্ঞ করতে চাইছেন। জানা গেছে, বিদেশের বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠানোর জন্য অর্থ দপ্তরের অডিট অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস বিভাগের 25-30 জন

চাকরি দেবার নামে লক্ষ লক্ষ টাকার প্রতারণা চক্রের হাদিস, গ্রেপ্তার পান্ডারা

সরকারি চাকরি দেওয়ার লোভ দেখিয়ে বেকারদের থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছিল একটি দুষ্কৃতী চক্র। এমনকি অনেককে বিনা মাগনায় খাটিয়েও নিয়েছিল তারা। কিন্তু মাইনের টাকা না আসতেই সন্দেহ শুরু। এরপরই ভুয়ো চাকরির প্রতিশ্রুতি দেওয়ার অভিযোগে ৩ দুষ্কৃতীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ধৃতদের ব্যাঙ্কশাল কোর্টে তোলা হলে বিচারক প্রত্যেকের ১৪ দিনের পুলিশ

দুর্গাপুজোর হাত ধরে পর্যটনে ঘুরে দাঁড়াতে বিশেষ উদ্যোগ রাজ্য সরকারের

শারদোৎসবে মেতে ওঠার পাশাপাশি টু-পাইস রোজগারের অভিনব কৌশল বের করল তৃণমূল কংগ্রেস। কলকাতার পুজো দেখতে দেশ-বিদেশের পর্যটকদের আমন্ত্রণ জানাবে রাজ্য সরকার। বিদেশি অতিথিদের থাকার জন্য করা হচ্ছে হোম স্টে-র ব্যবস্থা। ঘর ভাড়া বাবদ যে টাকা আসবে সেটাই লাভ সরকারের। আর এভাবেই উপায় করতে চাইছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। পর্যটন দফতরের প্রধান সচিব অত্রি

সিপিএমের মহিলাদের মিছিল ঘিরে উত্তেজনা

হারানো সংগঠনকে চাঙ্গা করতে মঙ্গল ও বুধবার দু দিন ব্যাপী রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে নারী নির্যাতন বন্ধ করার দাবিতে রাতভর বিক্ষোভ দেখালেন সিপিএমের মহিলা সংগঠন। মঙ্গলবারের পর ঠিক একই ভাবে বুধবার সংগঠনের নেতৃত্বরা এক মহামিছিলের আয়োজন করেছিলেন। সেই মিছিল আটকাতে কার্যত নাভিশ্বাস উঠল পুলিশ প্রশাসনের। জানা গেছে, এদিন মিছিল আটকাতে সিপিএমের

কলকাতার বুকে দুই হেভিওয়েট বিধায়ক-মন্ত্রীর গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে তীব্র অস্বস্তিতে তৃণমূল

আবার গোষ্ঠী কোন্দলে জড়িয়ে পড়লেন রাজ্যের শাসক দলের দুই নেতা। দেওয়াল তোলাকে কেন্দ্র করে সামনে এল মানিকতলার বিধায়ক মন্ত্রী সাধন পাণ্ডে এবং বেলেঘাটার বিধায়ক পরেশ পালের তরজা। তবে এবার বিষয়টা একটু অন্যরকম। কাঁকুড়গাছিতে এক পাঁচিল নির্মাণ করা হচ্ছিল। তাতেই বিপত্তি। দুই নেতা এবং তাদের অনুগত লোকজন পরস্পর পরস্পরের বিরুদ্ধে অভিযোগ

Top
error: Content is protected !!