এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "black money"

রশিদ ছাড়া বাড়িতে আছে বিপুল পরিমান সোনা? এবার বিপুল ফাইনের মুখে পড়তে পারেন আপনি!

এবার কালোটাকা অপসারণ করতে মোদি সরকার নতুন পদক্ষেপ গ্রহণ করতে চলেছে। ইতিপূর্বে নরেন্দ্র মোদী কালোটাকা অপসারণের জন্য নোট বাতিলের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছিলেন। সে সময় দেশজুড়ে তুমুল বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছিল। এবার আরো একবার কালোটাকা আটকাতে মোদি সরকারের নতুন পদক্ষেপ। বাড়তি সোনা কেনার ওপ‍র রাশ টানা হতে চলেছে। কালো টাকা দিয়ে সোনা

ভোটের মুখে কোলকাতায় উদ্ধার হওয়া কালো টাকা নিয়ে বড়সড় সূত্র ইডির হাতে

লোকসভা ভোটের মুখে কোলকাতায় উদ্ধার হওয়া কালো টাকা নিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য হাতে এলে ইডির। প্রাথমিক তদন্ত সূত্রে জানা গিয়েছে,এই কালো টাকা হওলার মাধ্যমে শহরে আনা হচ্ছিল। একাধিক রাজ্য ঘুরিয়ে কতগুলো কাগজের কোম্পানি খুলে ভুয়ো অার্থিক লেনদেন দেখিয়ে কোলকাতায় আনা হচ্ছিল টাকাগুলো। উদ্ধারিকৃত এই টাকা কাদের কাছে যেতে সে বিষয়ে প্রাথমিকভাবে

লোকসভা নির্বাচনকে কালোটাকার প্রভাব মুক্ত করতে বড়সড় পদক্ষেপ কমিশনের

কালো টাকা মুক্ত ভারত গড়ার উদ্যোগ আগেও নিয়েছিল ভারত সরকার। ২০১৬ সালে নোটবন্দির ঘোষণা করে দেশবাসীকে চমকে দিয়েছিলেন মোদী। ফের একবার দেশকে কালো টাকার প্রভাবমুক্ত করতে বড়সড় পদক্ষেপ নিল বিজেপি সরকার। লোকসভা ভোট ঘোষণার পর মোদী সরকারের এই পদক্ষেপ যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। ভোটের কাজে যাতে কোনোভাবেই হিসাব বহির্ভূত

গো-বলয়ে হারের শিক্ষা নিয়ে লোকসভার আগে মধ্যবিত্ত মানুষ ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের জন্য বড় সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের? জানুন বিস্তারিত

জিএসটি থেকে নোট বাতিল - কেন্দ্রের একের পর এক সিদ্ধান্তে কংগ্রেসের তোপের মুখে পড়তে হয়েছে বিজেপিকে। সদ্যসমাপ্ত দেশের পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে কার্যত ধ্বস নেমেছে পদ্ম শিবিরের ভোটব্যাঙ্কে - পরাভূত হতে হয়েছে কংগ্রেসের কাছে। আর গো-বলয়ে এই পরাজয়ের পর বিরোধীরা স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে - বিজেপির পরাজয়ের পিছনে জিএসটি, নোট বাতিল

দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি পেতে এই নোট বন্দি ও কালো টাকা নিয়ে বিস্ফোরক মুখ্য নির্বাচন কমিশনার

এবার দেশের মুখ্য নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব ছাড়ার সাথে সাথেই কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদি সরকারের নোট বন্দি ও কালো টাকা নিয়ে বিস্ফোরক হলেন সুনীল আরোরা। প্রসঙ্গত 2016 সালের নভেম্বর মাসে হঠাৎই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নোট বাতিলের সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেন। আর প্রধানমন্ত্রীর এই ঘোষণায় সেই পুরনো 500 এবং 1000 টাকার নোট কিভাবে

কালো টাকা সংক্রান্ত রিপোর্ট প্রকাশ্যে আনতে অনিচ্ছুক কেন্দ্র সরকার,বাড়ছে জল্পনা

কালো টাকা নিয়ে আমজনতার কৌতূহল বরাবরই তুঙ্গে । ২০১৬-তে মোদী সরকার এই কালো টাকা রুখতেই নোটবন্দি-র মতো বড় পদক্ষেপ নিয়েছিল। অথচ এই সরকাররেই কালো টাকা সংক্রান্ত নথি প্রকাশ্যে আনতে তীব্র আপত্তি দেখা যাচ্ছে। রাজনৈতিক সূত্রের খবর, ২০১১ সালে ইউপিএ সরকার দিল্লির 'ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ পাবলিক ফিনান্স অ্যান্ড পলিস'-সহ তিনটি সংস্থাকে কালো

Top
error: Content is protected !!