এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "bjp"

ডিসেম্বরের মধ্যেই বিজেপিতে নতুন সভাপতি? জল্পনা বাড়ালেন খোদ অমিত শাহ!

নতুন বছর শুরুর আগেই ভারতীয় জনতা পার্টির সর্বভারতীয় সভাপতি পদে নতুন মুখ আসতে চলেছে বলে খবর। সোমবার সেরকমই ইঙ্গিত দিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ সম্বন্ধে এরম গুজব আগেও উঠেছিল যে তিনি বিজেপি সভাপতি পদ ছেড়ে দিচ্ছেন। 2019 সালের গত লোকসভা নির্বাচনের পরেও পুনরায়

দলত্যাগী হেভিওয়েট নেতার সঙ্গে এখনও যোগাযোগ রাখছেন দলীয় নেতা নেত্রীরা, মিলেছে প্রমান , বেজায় ক্ষুব্ধ নেত্রী

পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য রাজনীতিতে একেবারে সীমান্তবর্তী এলাকা হলেও দক্ষিণ দিনাজপুরের গুরুত্ব কোনদিনই কম ছিল না। বিশেষত তৃণমূল কংগ্রেস ক্ষমতায় আসার পরে ভারত- বাংলাদেশ বর্ডার লাগোয়া এই জেলায় সিংহভাগ বিধানসভা আসন দখল করে সদর্পে শাসন ক্ষমতা ধরে রাখে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। আর এরকম একটি সাংগঠনিক শক্তির জেলায় জেলা সভাপতি হিসেবে

এবার বড়সড় চাপ বাড়ল বিজেপি নেত্রী ভারতী ঘোষের! জেনে নিন বিস্তারিত

শারদীয় উৎসবের মধ্যেই শাসক-বিরোধী দল একে অপরের প্রতি অভিযোগ করতে থাকে, একটি খুন নিয়ে। উল্লেখ্য, লোকসভা ভোট পরবর্তী সময়ে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে ক্রমাগত বেড়েছে খুনোখুনির রাজনীতি। দুর্গাপূজার মধ্যেও এই হানাহানির জেরে বেশ কয়েকটি প্রাণ গেছে। তার মধ্যে ছিলেন, তৃণমূলের দলীয় নেতা কুরবান আলী শাহের মৃত্যুর ঘটনা। পাঁশকুড়া এলাকায় এই হত্যার ঘটনাটি ঘটে।

বাংলায় সরকার গড়লে কোন পথে প্রশাসন-উন্নয়ন? এখন থেকেই রুপরেখা তৈরির জন্য পদক্ষেপ বিজেপির

2017 সালে রাজ্যে যেভাবে ভারতীয় জনতা পার্টির উত্থান ঘটেছে, যেভাবে দুটি আসন থেকে 16 টি আসন বাড়িয়ে নিয়ে শাসক দলের ঘাড়ে রীতিমত নিঃশ্বাস পেয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি, সেই পরিস্থিতিতে বঙ্গ বিজেপি নেতৃত্বরা অনেক আগেই 2021 সালের বিধানসভা নির্বাচনে নিজেদের জয়যুক্ত হওয়ার স্বপ্ন দেখে ফেলেছেন। শুধু বঙ্গ বিজেপি নেতৃত্ব নয়, বিজেপির সর্বভারতীয়

সৌরভ গাঙ্গুলির বিজেপিতে যোগদানের জল্পনা বেশ কয়েকগুন বাড়িয়ে দিলেন দিলীপ ঘোষ

বাংলার মহারাজ সৌরভ গাঙ্গুলি আরেকবার বাঙালির গর্বের কারণ হতে চলেছেন। এবার বিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্ট হতে চলেছেন ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। 23 অক্টোবরের বার্ষিক সভায় বোর্ড প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব হাতে নেবেন মহারাজ। আর সৌরভ গাঙ্গুলী যদি এবার বিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্ট হন তাহলে ভারতীয় ক্রিকেটের ইতিহাসে তিনি দ্বিতীয় অধিনায়ক যিনি বোর্ডের প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব

বিধানসভা নির্বাচনের আগে গেরুয়া ঝড়ের প্রবল ইঙ্গিত সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের সমীক্ষায়

2014 সালে প্রথমবার নরেন্দ্র মোদী নেতৃত্বাধীন বিজেপি সরকার কেন্দ্রের ক্ষমতা দখল করার পর 2019 এ তাদের 5 বছর পূর্তি হলে 2019 এর লোকসভা নির্বাচনের আগে বিভিন্ন মহলের তরফে দাবি করা হয়েছিল, এবার হয়ত বা 2014 সালের থেকে অনেক কম আসন পাবে বিজেপি। এমনকি কেউ কেউ এই দাবিও করেছিল যে, এবার

সৌরভ গাঙ্গুলীর বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী মুখ হওয়া নিয়ে এবার মুখ খুললেন স্বয়ং অমিত শাহ

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি হিসেবে এখন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় এখন চর্চার চর্চিত কেন্দ্র। হঠাৎ করেই বিসিসিআইয়ের সভাপতি পদে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের বসার ঘটনায় গোটা বাংলা গর্বিত হয়েছে, ঠিক তেমনই অনেকেই এই ব্যাপারে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন। বোর্ড সভাপতি হিসেবে ব্রিজেশ প্যাটেলের দায়িত্ব নেওয়া যখন প্রায় নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল, তখন শেষ মুহূর্তে বঙ্গসন্তান সৌরভ

বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী মুখ হওয়ার ‘শর্তেই’ বোর্ড প্রেসিডেন্ট সৌরভ? ক্রমশ তীব্র হচ্ছে জল্পনা

পৃথিবীর সবথেকে ধনী ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআইয়ের সর্বোচ্চ পদে বসেছেন বাংলার গর্ব সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। জগমোহন ডালমিয়ার পর আরেক বাঙালি প্রশাসক হিসাবে ভারতীয় ক্রিকেটের সর্বোচ্চ পদে। কিন্তু, এই দুর্দান্ত আনন্দের অবহেও প্রবলভাবে ভেসে উঠছে রাজনীতি। সৌরভ গাঙ্গুলি বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট হতেই জল্পনা চলছে যে - বাংলার পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী মুখ হিসাবে বিজেপিকে সবুজ সঙ্কেত

বিজেপির গো-রক্ষকের ভূমিকা ‘কাড়তে’ এবার বড়সড় পদক্ষেপ এই মুখ্যমন্ত্রীর

বিজেপি এমনিতেই পরিচিত গো রক্ষক হিসেবে‌। ইতিমধ্যে গো রক্ষাকারী হিসেবে বহু বিতর্কের সম্মুখীন হয়েছে বিজেপি ও তাদের সঙ্গী গোষ্ঠী। গো রক্ষা করতে গিয়ে মানুষ পিটিয়ে মেরে ফেলার ঘটনাও ঘটেছে তাঁদের হাত দিয়ে। যা নিয়ে চূড়ান্ত আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে দেশজুড়ে। বিজেপি, বিশ্ব হিন্দু পরিষদ ও আরএসএস দাবি করেন গরুকে পুরাণ অনুসারে

আবার গেরুয়া শিবিরকে বড়সড় ঝটকা দিল তৃণমূল, বিজেপির ঘর ভেঙে সংগঠনে নতুন ‘অক্সিজেন’!

2019 এর লোকসভা ভোটের পর থেকেই দলবদল এর হওয়ায় বিজেপির দিকেই ঝোঁক বাড়ে সবার। লোকসভা ভোটে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কোনরকমে জিতে নিজেদের ঘর বাঁচিয়েছিল। পশ্চিমবঙ্গের 42 টি আসনের মধ্যে তাঁরা অধিকার করেছিল 22 টি আসন। অন্যদিকে, বিজেপি 2014 থেকে 2019, এই 5 বছরে তাদের সংগঠনকে পশ্চিমবঙ্গে এমন জায়গায় নিয়ে গেছে,

Top
error: Content is protected !!