এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "bhatpara"

বড়সড় জয় পেলো তৃণমূল, ভাটপাড়া নিয়ে ধাক্কা বিজেপির

ভাটপাড়া নিয়ে বিজেপির সাথে তৃণমূলের সংঘাত আজকের নয়, সংঘাত শুরু হয়েছিল তৃণমূল ছেড়ে অর্জুন সিং এর বিজেপিতে যোগদানের পর থেকেই। এই দল পরিবর্তনের ফলে অর্জুন সিং এর গড় ভাটপাড়াও রাজনৈতিক রঙ পরিবর্তন করে। এরপর যথারীতি বিরোধিতা চরমে ওঠে ভাটপাড়ায়। নতুন দলে পা দিয়েই অর্জুন সিং নিজের পূর্বতন নেত্রীর বিরুদ্ধে মুখ

আজ অর্জুন বনাম মমতার প্রেস্টিজ ফাইট, ভোট যুদ্ধক্ষেত্র ভাটপাড়া

  রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে অনেকটা অস্বস্তিতে ফেলে এবার ভাটপাড়া পৌরসভায় পুনরায় আস্থা ভোট করার নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট। এই বিষয়ে আজ মঙ্গলবার সম্পূর্ণ পুলিশি নিরাপত্তায় দুপুর একটার সময় পৌরসভার মূল ভবনে আস্থা ভোট অনুষ্ঠিত করতে হবে প্রশাসনকে। এমনকি আস্থা ভোটের নোটিশ দিয়ে কাউন্সিলরদেরকে জানাতে হবে স্বয়ং পৌরসভার চেয়ারম্যান এবং

ভাটপাড়া নিয়ে নাটক অব্যাহত, তৃণমূল আজ ফের বড়সড় ধাক্কা খেলো হাইকোর্টে

ভাটপাড়ায় আস্থা ভোট খারিজের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে কলকাতা হাই কোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে তৃণমূল। তবে সেখানেও ধাক্কা খেল ঘাসফুল শিবির। শুক্রবার দুপুর দুটোয় শুনানির আবেদন জানান তৃণমূলের তিন কাউন্সিলর। তবে দ্রুত শুনানির দাবি খারিজ করে দেন বিচারপতি দীপঙ্কর দত্ত। এরপর পালটা মামলা দায়ের করারও অনুমতি চায় তৃণমূল। বৃহস্পতিবারের নির্দেশনামার কপি না

হাইকোর্টের নির্দেশে এবার অস্বস্তিতে রাজ্যের শাসকদল তথা তৃণমূল শিবির

রাজ্যের যুযুধান দুই রাজনৈতিক শিবির হল তৃণমূল এবং বিজেপি। লোকসভা নির্বাচনের পর এই দুই রাজনৈতিক দল ক্রমাগত রাজনৈতিক যুদ্ধে জড়াতে থাকে এবং তার সাথে পাল্লা দিয়ে পারে দুই রাজনৈতিক দলের মধ্যে সংঘর্ষ। লোকসভা ভোটের আগেই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেন অর্জুন সিং। যথারীতি ভাটপাড়াও অর্জুন সিং এর সাথে সবুজ রং

BIG BREAKING – পুরসভা হাতছাড়া করতে নারাজ বিজেপি , নিতে চলেছে বড়সড় পদক্ষেপ

  নতুন বছরের শুরুতেই বড়সড় ধাক্কা খেলো বিজেপি। হাতছাড়া হলো এবার ভাটপাড়া পুরসভা। জানা যাচ্ছে অনাস্থা ভোটে পুরসভার পুনর্দখল নিল তৃণমূল। এদিন অনাস্থা প্রস্তাবের পক্ষে উপস্থিত ১৯ জন কাউন্সিলরের সবাই তৃণমূলের পক্ষে ভোট দেন। প্রসঙ্গত ভাটপাড়া পুরসভায় বর্তমানে কাউন্সিলরের সংখ্য়া ৩২। এনিয়ে ব্যারাকপুরের সাংসদ অর্জুন সিং জানান যে, এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার হাইকোর্টে

ভাটপাড়ার দখল নিতে নয়া পদক্ষেপ তৃণমূলের, জেনে নিন!

লোকসভা নির্বাচনের সময় থেকে উত্তর 24 পরগনা জেলায় তৃণমূলের অবস্থা খুব একটা ভাল যাচ্ছিল না। একের পর এক পৌরসভা দখল করতে শুরু করেছিল ভারতীয় জনতা পার্টি। কেননা তৃণমূলের হেভিওয়েট দাপুটে নেতা অর্জুন সিং ব্যারাকপুর লোকসভা কেন্দ্র থেকে এবার দাঁড়িয়েছিলেন বিজেপির টিকিটে। আর তার পরেই তিনি জয়লাভ করায় তার প্রভাব প্রতিপত্তি

সিএবি নয়! ভাটপাড়া ক্রমশ উত্তপ্ত হচ্ছে তৃণমূল- বিজেপির দখলদারি নিয়ে! বাড়ছে রাজনৈতিক উত্তেজনা

  কিছুদিন আগে পর্যন্ত রাজ্যের যে কোনো প্রান্তে কোনো অশান্তি ঘটনার খবর পেলে তাকে শাসক-বিরোধী গন্ডগোল বলেই আখ্যা দিতে রাজনৈতিক মহল। এমনকি খোঁজখবর নিয়ে রাজনৈতিক মহলের সেই আখ্যাতেই সীলমোহর পড়ত। তবে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল আইনে পরিণত হওয়ার পর রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে শাসক-বিরোধী গন্ডগোল তো দূর অস্ত, উল্টে সেই গন্ডগোল বিক্ষোভকারীদের বিক্ষোভে

ভাটপাড়ায় মুকুল-অর্জুনের ঘুম ওড়াতে আরও বড় ধাক্কার পরিকল্পনায় ঘাসফুল শিবির

  লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি ফলাফল করার পরেই উত্তর 24 পরগনা জেলায় তৃণমূলের ভাঙ্গন ধরতে শুরু করে। ভাটপাড়া থেকে শুরু করে হালিশহর, নৈহাটি থেকে শুরু করে কাঁচরাপাড়া, একাধিক পৌরসভা বিজেপি নিজেদের দখলে আনতে শুরু করে। তবে বিজেপি এই সমস্ত পৌরসভার তৃণমূল কাউন্সিলরদের নিজেদের দখলে আনলেও কিছুদিন পরেই অবস্থার পরিবর্তন হতে শুরু করে। সম্প্রতি

বিজেপি ছেড়ে ফের ঘরে ফিরেই দায়িত্ব কাঁধে তুলল কাউন্সিলররা, তাও পুরসভা নিয়ে বড়সড় দাবি মুকুল পুত্রের

এক সময় বঙ্গ রাজনীতির নজর কেড়েছিল সিঙ্গুর এবং নন্দীগ্রাম। কৃষিজমি বনাম শিল্পের দ্বন্দ্বে তখন উত্তাল বঙ্গসমাজ। রাজনীতির আনাচে-কানাচে কিংবা সুশীল সমাজের মধ্যে তখন ন্যায়-অন্যায়ের চুলচেরা বিশ্লেষণ চলছে। আর এই সব কিছুর মধ্যেই সিঙ্গুর নন্দীগ্রাম আন্দোলনের নেতৃত্ব দিতে ঝাঁপিয়ে পড়েন তদানীন্তন বিরোধী নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূল নেত্রী সেইসময় নির্ভীকভাবে কৃষকদের পাশে

রিপোর্ট দিতে ঢুকেছিলেন, বেরোলেন রিপোর্ট নিয়ে,ভাটপাড়া কাণ্ডে নয়া মোর

লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশের পর থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় রাজনৈতিক হিংসার ঘটনা ঘটতে থাকে। যার মধ্যে অন্যতম উত্তর 24 পরগনার ভাটপাড়া। কখনও বোমা আবার কখনও বা গুলির লড়াইয়ে সেখানকার মানুষেরা তীব্র আতঙ্কে রয়েছেন। পরিস্থিতি মোকাবিলা সরকারের পক্ষ থেকে কড়া বার্তা দেওয়া হলেও রাজ্যের পুলিশ প্রশাসনের বিরুদ্ধে পাল্টা সরব হয়েছে বিরোধীরা। এমন

Top
error: Content is protected !!