এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "bengal"

2021 এ রাজ্য বিজেপির মুখ্যমন্ত্রীর মুখ কে? জানালেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি! জেনে নিন!

  লোকসভায় সাফল্য পাওয়ার পর 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনে বাংলার ক্ষমতা দখল করতে এখন তৎপর হয়ে উঠেছে ভারতীয় জনতা পার্টি। ইতিমধ্যেই এই ব্যাপারে তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ইস্যুতে সরব হয়ে রাজ্যজুড়ে নানা রাজনৈতিক কর্মসূচি নিতে শুরু করেছে তারা। কিন্তু তৃণমূলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধান মুখ হলেও ভারতীয় জনতা পার্টির নির্বাচনী বৈতরণী পার করার

দিলীপের পর বাংলার বুদ্ধিজীবীদের আক্রমণ আর এক বিজেপি সাংসদের, সমালোচনায় মুখর সব মহল!

  বঙ্গ রাজনীতিকে কুকথা যেন কমছে না কিছুতেই। যত দিন যাচ্ছে, ততই বিভিন্ন ইস্যুতে শাসক-বিরোধী তরজা যেমন বৃদ্ধি পাচ্ছে, ঠিক তেমনই অশালীন আক্রমণের মাত্রাও বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। প্রায় বিভিন্ন সময়েই বঙ্গ বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ বিতর্কিত মন্তব্য করে খবরের শিরোনামে উঠে আসেন। আর এবার নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন ইস্যুতে বিরোধীদের আক্রমণ

মহারাষ্ট্রে সাফল্যের পর পিকের টিম সমীক্ষা করতে এল বাংলায়, জেনে নিন বিস্তারিত!

  লোকসভা নির্বাচনে ভরাডুবির পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলের রণনীতিকার হিসেবে নিয়োগ করেছিলেন প্রশান্ত কিশোরকে। আর তৃণমূলের দায়িত্ব নেওয়ার সাথে সাথেই দলকে শৃংখলায় বেঁধে একের পর এক নির্বাচনে তৃণমূলকে যাতে সাফল্য দেখানো যায়, তার চেষ্টা করেছিলেন ভোটগুরু। ইতিমধ্যেই তার সেই চেষ্টাতে সাফল্যও এসেছে। লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল সমীক্ষা চালিয়ে দিদিকে বলো কর্মসূচির মধ্য দিয়ে

মহারাষ্ট্রে সাফল্যের পর পিকের টিম সমীক্ষা করতে এল বাংলায়, জেনে নিন বিস্তারিত!

  লোকসভা নির্বাচনে ভরাডুবির পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলের রণনীতিকার হিসেবে নিয়োগ করেছিলেন প্রশান্ত কিশোরকে। আর তৃণমূলের দায়িত্ব নেওয়ার সাথে সাথেই দলকে শৃংখলায় বেঁধে একের পর এক নির্বাচনে তৃণমূলকে যাতে সাফল্য দেখানো যায়, তার চেষ্টা করেছিলেন ভোটগুরু। ইতিমধ্যেই তার সেই চেষ্টাতে সাফল্যও এসেছে। লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল সমীক্ষা চালিয়ে দিদিকে বলো কর্মসূচির মধ্য দিয়ে

  ঝাড়খণ্ডে বাজিমাতের পর এবার বাংলাতেও জোট করে ক্ষমতা দখলের স্বপ্ন জেএমএম-এর

  সম্প্রতি ঝাড়খন্ড বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষিত হয়েছে। যেখানে ক্ষমতা দখল করেছে কংগ্রেস-ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চার জোট। পর্যদুস্ত হয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি। আর পশ্চিমবঙ্গের পড়শি রাজ্য ঝাড়খন্ডে এইভাবে বিজেপি ক্ষমতা হারানোর পর, তার প্রভাব যে বাংলাতে পড়বে, তা আঁচ করেছিল রাজনৈতিক মহল। এমনকি ফলাফল ঘোষণার পরবর্তী সময়ে প্রিয়বন্ধু বাংলার খবরে উঠে এসেছিল, ঝাড়খন্ডে

শিক্ষা ব্যাবস্থায় নৈরাজ্য চলছে, বিস্ফোরক রাজ্যপাল

  রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধানের দায়িত্বে আসার পর থেকেই সরকারের সঙ্গে দূরত্ব বাড়তে থাকে রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকারের। বিভিন্ন ইস্যুতে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে দ্বৈরথ তৈরি হয় রাজভবনের প্রধান ব্যক্তির। কখনও শিক্ষাক্ষেত্রে, আবার কখনও বা আইনশৃঙ্খলা বিষয়ে রাজ্য সরকারকে পরামর্শ আবার কটাক্ষ করতেও দেখা যায় রাজ্যপালকে। যা নিঃসন্দেহে রাজ্যের প্রশাসনিক বনাম

নাড্ডার পাল্টা মমতা, বাংলায় এনআরসি হতে দেব না, গর্জে উঠলেন অগ্নিকন্যা

  সম্প্রতি দেশজুড়ে লাগু হয়েছে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন। আর এই আইন লাগু হওয়ার পর থেকেই তার তীব্র বিরোধিতা করে আসছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। ইতিমধ্যেই এই আইনের বিরোধিতা করে কলকাতার রাজপথে নামতে দেখা গেছে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। একাধিক পদযাত্রার মধ্যে দিয়ে সভা-সমিতি করে এই আইনের বিরুদ্ধে গর্জে উঠেছেন তিনি।

বাংলা থেকে এক লক্ষ চিঠি যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর কাছে, অস্বস্তিতে তৃণমূল

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন লাগু হওয়ার পর থেকেই তার চরম বিরোধিতা করে ময়দানে নেমেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বাংলায় কোনোভাবেই এনআরসি হতে দেবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন তিনি। পাল্টা বিজেপির তরফে দাবি করা হচ্ছে, সারা দেশের পাশাপাশি বাংলাতেও এই এনআরসি করা হবে। যা নিয়ে তৃণমূল বনাম বিজেপির মধ্যে দড়ি টানাটানি অব্যাহত। আর এই পরিস্থিতিতে

ঝাড়খন্ডে ভরাডুবি কি দিল্লি ও বিহারে বিজেপিকে চাপে ফেলে দিল? বাংলা নিয়েও শঙ্কার মেঘ?

  2019 সালের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির সংখ্যাগরিষ্ঠতা বিরোধীদের কার্যত তটস্থ করে তুলেছিল। দ্বিতীয়বারের জন্য কেন্দ্রের ক্ষমতায় বসার মোদি সরকারের সংখ্যাগরিষ্ঠতা দেখে বিরোধী শিবির হয়ে গিয়েছিল হতাশ। তবে রাজনীতি সব সময় এক গতিতে চলে না। আর তাই তো লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি ভালো ফল করলেও, একের পর এক রাজ্যে বর্তমানে তারা পর্যুদস্ত হতে

বড়সড় রদবদল বঙ্গ বিজেপিতে, জেনে নিন বিস্তারিত

  বেশ কয়েক মাস ধরেই ভারতীয় জনতা পার্টিতে কিছু সাংগঠনিক রদবদলের আভাস পাচ্ছিল রাজনৈতিক মহল। আর এবার বাস্তবিক পরিস্থিতিতেই সামান্য পরিমাণে রদবদল ঘটল বঙ্গ বিজেপিতে। তবে রদবদলে বলার থেকে সংযোগ বলাই ভালো। বস্তুত, পশ্চিমবঙ্গ ভারতীয় জনতা পার্টির সাংগঠনিক সাধারণ সম্পাদকের পদে সুব্রত চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে আরও একজন সাংগঠনিক সাধারন সম্পাদক যুক্ত হয়েছেন।

Top
error: Content is protected !!