এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "baisakhi banerjee"

শোভনকে ফের ডাক তৃণমূলের, কি বলছেন প্রাক্তন মেয়র, জোর জল্পনা রাজ্য রাজনীতিতে

  প্রায় অনেকদিন হল, বান্ধবী বৈশাখী বন্দোপাধ্যায়কে নিয়ে গেরুয়া শিবিরে নাম লিখিয়েছেন তিনি। তবে বিজেপিতে নাম লেখালেও সেভাবে বিজেপির অন্দরে গুরুত্ব না পাওয়ায় ঘরে বসে যেতে দেখা গিয়েছিল সেই শোভন চট্টোপাধ্যায়কে। জ যা নিয়ে নানা জল্পনা শুরু হয়েছিল রাজ্য রাজনীতিতে। তবে মাঝে ভাইফোঁটার দিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে যাওয়া এবং পরবর্তীতে কলকাতা চলচ্চিত্র

দলীয় কর্মসূচিতে ডাক শোভন- বৈশাখীকে, উপস্থিত থাকবেন কি? জোর জল্পনা

বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে অপমান করেছিল তৃণমূল। আর সেই অভিযোগেই দীর্ঘদিনের দল তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে গত 14 আগস্ট সেই বৈশাখী বন্দোপাধ্যায়কে নিয়ে গেরুয়া শিবিরের পতাকা হাতে তুলে নিয়েছিলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা কলকাতা পৌরসভার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়। তবে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের মত রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় বিজেপি তাকে ভালোমতো কাজে

ফের বাড়লো তৃণমূল শোভনের দূরত্ত্ব, কারণ ফের সেই বৈশাখী, জেনে নিন

  শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দোপাধ্যায়কে নিয়ে রাজ্য রাজনীতিতে অনেকদিন থেকেই নানান রকমের ঘটনার সূত্রপাত হয়েছে। তাদের দুইজনের জুটিকে নিয়ে চর্চারও শেষ নেই। তবে  ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগদানের পরে কলকাতার প্রাক্তন মেয়র তথা রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে ভাইফোঁটা নিতে যান ।সম্প্রতি কিছুদিন আগে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ও পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের

কেউ বাচ্চা নয় যে ললিপপ দিয়ে দলে এনেছি, শোভন-বৈশাখী কী করবেন, সেটা ব্যক্তিগত ব্যাপার: দিলীপ

শোভন চট্টোপাধ্যায়কে বিজেপি দলে টেনে তৃণমূলকে ধাক্কা দেওয়ার কৌশল নিয়েছিল বিজেপি। কিন্তু সেটা প্রথম থেকেই বুমেরাং হয়েছে। সামলাতে গিয়ে নাজেহাল দশা হয়েছে বিজেপির। উল্লেখ্য, লোকসভা ভোটের পরে দলবদলের হাওয়ায় শোভন-বৈশাখী তৃণমূল ছেড়ে রীতিমতো সাংবাদিক সম্মেলন করে বিজেপিতে প্রবেশ করেন। কিন্তু তারপর থেকেই বিতর্কের সূত্রপাত হয়। দলে প্রবেশ করেও দলীয় কোনো কাজকর্মে

ফের তৃনমূল – শোভন দূরত্ব, চলচিত্র উৎসবের শেষ দিনে দেখা মিললো না দিদির কাননের

  নিজের স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়কে নিয়ে ঘর করতে নারাজ তিনি। তৃণমূলে থাকার সময় সেই রত্নাদেবীর সঙ্গে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা রাজ্যের শাসক দলকে চরম সমস্যায় ফেলে দিয়েছিল। পরবর্তীতে তৃণমূল দল রত্নাদেবীর পাশে থাকলেও শোভন চট্টোপাধ্যায় বান্ধবী বৈশাখী বন্দোপাধ্যায়কে নিয়ে কার্যত অস্তাচলে চলে গিয়েছিলেন। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছে যায় যে, তৃণমূল রত্না

অবশেষে কি তৃনমূলে শোভন চট্টোপাধ্যায়? বান্ধবীর কথায় বাড়ল জল্পনা!

  প্রায় অনেকদিন হয়েছে তিনি তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। বান্ধবী বৈশাখী বন্দোপাধ্যায়কে নিয়ে দলের অন্দরে আপত্তির জন্য মন্ত্রিত্ব, মেয়রপদ ত্যাগ করেছেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। আর তারপর গত 14 আগস্ট দিল্লিতে গিয়ে বিজেপির সদর দপ্তরে গেরুয়া শিবিরের পতাকা নিজের হাতে তুলে নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দীর্ঘদিনের সম্পর্ক ছিন্ন করতে দেখা গেছে তাকে।

“সত্যের জয় হল-আজ বৈশাখীর সম্মানের জন্য লড়ে জিতলাম তো?” রত্নাকে মেসেজ শোভনের? জোর শোরগোল

  বঙ্গ রাজনীতিকে শোভন চট্টোপাধ্যায়, বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় এবং রত্না চট্টোপাধ্যায়কে নিয়ে নাটকীয় পরিস্থিতি ফের চরম আকার নিল। কথায় আছে, একটি পুরুষ কে কেন্দ্র করে দুই নারীর তরজা ভয়াবহ আকার ধারণ করে। আর যদি সেই পুরুষ রাজনৈতিক কোনো নেতা হন, তাহলে তো কথাই নেই। বান্ধবীর জন্য সর্বস্ব ত্যাগ করেছিলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। প্রথমে মন্ত্রিত্ব

তৃণমূলের সাংগঠনিক বৈঠকে কি হাজির হলেন শোভন চট্ট্যোপাধ্যায় ? জেনে নিন

শেষ রক্ষা হলো না তৃণমূলের, বৈঠকে এলেন না কানন !যা নিয়েই নয়া জল্পনা শুরু রাজনৈতিক মহলে। আজ বৃহস্পতিবার ৭ ই নভেম্বর কালীঘাটের দলীয় কার্যালয়ে সংগঠনের বৈঠক করেন তৃণমূল কংগ্রেস। আর সেখানে বিজেপি নেতা শোভন চট্টোপাধ্যায়কে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল।আর তা ঘিরেই রাজনৈতিকমহলের ধারণা ছিল এ দিনই তিনি গেরুয়া শিবির ছেড়ে তৃণমূলে

এই দিনেই ফের পুরোনো দলে ফিরছেন শোভন? জল্পনা তুঙ্গে

  বান্ধবী বৈশাখী বন্দোপাধ্যায়কে নিয়ে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের আপত্তিকে কেন্দ্র করে তৃণমূলের সঙ্গে দূরত্ব বাড়ান শোভন চট্টোপাধ্যায়। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে চলে যায়, যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে একসময় মা বলে ডাকতেন শোভন চট্টোপাধ্যায়, সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সংসর্গ ত্যাগ করে তিনি বিরোধী দল বিজেপিতে নাম লেখান। গত 14 আগস্ট দিল্লিতে গিয়ে বান্ধবী বৈশাখী বন্দোপাধ্যায়কে নিয়ে গেরুয়া

বিজেপির সাথে বরফ গলল না? তৃণমূলে ফেরার রাস্তা তীব্র হতেই শোভনকে নিয়ে বিস্ফোরক দিলীপ ঘোষ

একসময় বান্ধবী বৈশাখী বন্দোপাধ্যায়কে নিয়ে তৃণমূল দলের শীর্ষ নেতৃত্বের আপত্তির কারণে দীর্ঘদিনের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ত্যাগ করেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। মন্ত্রিত্ব থেকে মেয়র পদে ইস্তফা দিয়ে তিনি বুঝিয়ে দেন, তার কাছে বন্ধুত্বের সম্পর্ক সব থেকে আগে।পরবর্তীতে রাজ্যে তৃণমূলের বিরোধী শক্তি হিসেবে পরিচিত বিজেপিতে নাম লেখান শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে বিজেপিতে

Top
error: Content is protected !!