এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "Assembly"

‘নিয়ম ভেঙে’ মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য, ক্ষুব্ধ বিরোধীরা, উঠল শিক্ষায় স্বাধিকার ভঙ্গের অভিযোগ

ক্ষমতায় আসার পর প্রথমেই শিক্ষার উন্নতিতে নব দুয়ার খুলে দেওয়ার চেষ্টা করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জেলায় জেলায় প্রচুর বিশ্ববিদ্যালয় গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য। আর এবার বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রী বলেন, "রাজ্যে আরও বিশ্ববিদ্যালয় হবে। অলচিকি বিশ্ববিদ্যালয়ও গড়ে তোলার চিন্তাভাবনা হচ্ছে।" বস্তুত, বুধবার হিন্দি বিশ্ববিদ্যালয় গঠনের জন্য বিধানসভায় একটি বিল পাশ হয়েছে। আর এই বিল

কর্ণাটকের জোটের সর্বশেষ পরিস্থিতি কি? জেনে নিন

অবশেষে কি বিদ্রোহী বিধায়কদের মন ঘুরতে শুরু করেছে! জানা গেছে, শনিবার কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামী এবং কংগ্রেস নেতা সিদ্দারামাইয়ার সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক হয় বিদ্রোহী কংগ্রেস বিধায়ক এমটিবি নটরাজনের। আর সেই বৈঠকেই বরফ গলতে শুরু করেছে বলে মনে করছে বিশ্লেষকরা। যেখানে এমটিবি নটরাজন নিজের পদত্যাগপত্র ফিরিয়ে নেওয়ার পাশাপাশি যে সমস্ত বিধায়করা

চাকুরীপ্রার্থীদের সুখবর, সরকারি পদে বিপুল নিয়োগের ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী, জেনে নিন

দীর্ঘদিন ধরে পশ্চিমবঙ্গে কর্মসংস্হানের অভাবকে কেন্দ্র করে সাধারণ মানুষের মধ্যে তৈরী হয়েছে তীব্র অসন্তোষ।এছাড়া এই ইস্যুতে বিরোধীরাও মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সরকারকে বারংবার কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছেন।মুখ্যমন্ত্রী যতই লাখ লাখ নিয়োগের পরিসংখ্যান দিন না কেন রাজ্যের যুবসমাজের বড় অংশই তৃণমূলের প্রতি বিরূপ থেকেছে তার গেছে গত লোকসভা নির্বাচনে। তৃণমূল সরকারের প্রতি বিরোধী দল ও

সিঙ্গুরের চাষীরা কি করছেন না করছেন তার দায়িত্ব আর নিতে রাজি নন মমতা? বিস্মিত রাজনৈতিকমহল

তবে কি এতদিনে সিঙ্গুর নিয়ে ধৈর্যচ্যুতি ঘটল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের? গতকাল বিধানসভায় বিরোধীদের সিঙ্গুর প্রশ্নে মেজাজ হারালেন তিনি।বিরোধীদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান রাজ্যসরকার সিঙ্গুরের চাষিদের সব রকম সাহায্য করেছে। কিন্তু তবুও কেন চাষের পরিমাণ কমেছে, আমি কী করে বলব ? ২০১১ তে এই রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পথে সিঙ্গুর আন্দোলন তাঁর সবচেয়ে বড়

বিকৃত ইতিহাস শিখে বড় হচ্ছে স্কুলপড়ুয়ারা, স্বীকার পার্থর, সংশোধনের আশ্বাস দিয়ে কমিটি গঠন

বেশ কিছুদিন ধরেই সরকার অনুমোদিত পাঠ্যবইগুলিতে তথ্যবিকৃতি নিয়ে বিরোধীরা অভিযোগ তুলে আসছিল।সিঙ্গুর আন্দোলনকে ইতিহাসের অন্তর্ভুক্ত করা, বেচারাম মান্নাকে ঐতিহাসিক চরিত্র হিসেবে তুলে ধরা থেকে শুরু করে মুখ‍্যমন্ত্রীর কবিতা সরাসরি সিলেবাসে অন্তর্ভুক্ত করার পর থেকেই সিলেবাস নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছিল।বিরোধীদের তরফে প্রতিবাদও অনেকদিন ধরেই করা হচ্ছে। কিন্তু বিরোধীরা যতই সরব হোক তৃণমূল

চাকুরিপ্রার্থীদের জন্য সুখবর, বড়সড় ঘোষণা মমতা সরকারের

লোকসভা নির্বাচনে ভরাডুবির পর থেকে আক্ষরিক অর্থেই সবক্ষেত্রে কল্পতরু হয়ে ওঠার চেষ্টা করছে মমতা বন্দ‍্যোপাধ‍্যায়ের সরকার। ইতিমধ্যে সরকারি কর্মচারীদের বেতন কমিশন চালু করার পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। আজ বিধানসভায় দাঁড়িয়ে রাজ্য সরকারি চাকরিতে প্রচুর শূন্যপদে নিয়োগের ঘোষনা করলেন তিনি। এদিন মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেন, রাজ্যে মোট ৩৩৬৮৭ সরকারি শূন্য পদ দ্রুত পূরণ করবে

বিজেপিতে যোগ বহু বিধায়কের, এবার তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিতে উদ্যোগী তৃণমূল

লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি বাংলায় অভূতপূর্ব ফলাফল করার পরই দিকে দিকে শাসকদল তৃণমূল থেকে প্রচুর জনপ্রতিনিধি গেরুয়া শিবিরে নাম লেখাতে শুরু করেন। যার ফলে প্রবল অস্বস্তিতে পড়ে তৃণমূল। আর এই পরিস্থিতিতে এবার সেই দলবদলু বিধায়কদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিতে উদ্যোগী ঘাসফুল শিবির। জানা গেছে, বিধানসভার বাজেট অধিবেশনে শেষে দল ছেড়ে যাওয়া বিধায়কদের

মন্ত্রীসভার বেতনবৃদ্ধি নিয়ে তোপ দেগে রাজ্যের বঞ্চিত সরকারি কর্মীদের ক্ষোভ বাড়ালেন এই বিধায়ক, জোর শোরগোল রাজ্যে

বিধায়ক ও মন্ত্রীদের বেতন বৃদ্ধির তীব্র প্রতিবাদ করলেন বাম দলনেতা সুজন চক্রবর্তী। গত সপ্তাহে বিধানসভায় মুখ‍্যমন্ত্রী ঘোষনা করেন যে মন্ত্রীদের দৈনিক ভাতা বাড়িয়ে করা হল ৩০০০ আর বিধায়কদের ২০০০।এইভাবে দৈনিক ভাতা বাড়ায় মুখ‍্যমন্ত্রী সহ অন‍্যান‍্য মন্ত্রী ও বিধায়কদের এক ধাক্কায় অনেকটাই বেড়ে গেল। যা চাঞ্চল‍্য ছড়িয়েছে রাজ‍্যের সাধারণ মানুষের মধ‍্যে। নতুন

ইউপিএ জামানার শেষের দিকের মতোই প্রবল বিরোধী হট্টগোলে মুলতুবি সংসদের অধিবেশন, চাপ বাড়ছে সরকারের?

পাঁচটি রাজ্যের বিধানসভা ভোটের ফলাফলের পরই এদিন শুরু হল সংসদের শীতকালীন অধিবেশন। নির্ধারিত সময় মেনেই সকাল ১১ টায় শুরু হলেও প্রথম থেকেই প্রত্যাশামতো উত্তাপ বাড়তে থাকে অধিবেশনের। সুষ্ঠুভাবে সংসদের কাজকর্ম চালাতে দিতে বিরোধীদের অনুরোধ করা হলেও তাতে বিন্দুমাত্র কর্ণপাত করেননি তাঁরা। বিরোধীদের হই-হট্টগোল এতোটাই বেশি ছিল যে দুপুর দুটোর পরই মুলতুবি

প্রয়োজনীয় সংখ্যা থাকলেও ‘সময়াভাব’ দেখিয়ে বিধানসভায় অনাস্থা আলোচনাই করতে দেওয়া হল না!

ফের উত্তেজনা ছড়ালো রাজ্য বিধানসভায়। এবার পূর্বঘোষণা মত অনাস্থা প্রস্তাব জমা দিয়েও তা নিয়ে আলোচনা না হওয়ায় প্রবল ক্ষোভে ফেটে পড়ল বিরোধী দল বাম এবং কংগ্রেস। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, রাজ্য বিধানসভার চলতি অধিবেশনে রাজ্যের শবর মৃত্যু, ডেঙ্গু, আইসিডিএস কর্মীদের ভাতা বিভ্রান্তি, সরকারি কর্মীদের বেতন কমিশন, নেতাজির জন্মদিনকে দেশপ্রেম হিসেবে ঘোষণা, রাজ্যের

Top
error: Content is protected !!