এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "সুজন চক্রবর্তী"

লোকসভার লড়াই: যাদবপুর লোকসভা ও অন্তর্গত বিধানসভার সর্বশেষ জনমত সমীক্ষার ফলাফল

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে বাংলার ৪২ টি লোকসভা আসনের সাম্ভাব্য ফলাফল কি হতে পারে – প্রতিটা বিধানসভা ধরে ধরে আমরা আপনাদের সামনে তুলে আনার চেষ্টা করছি। এর আগে আমরা পর্যায়ক্রমে ৩ টি সমীক্ষা আপনাদের সামনে তুলে ধরি – লোকসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে এটি আমাদের চতুর্থ স্যাম্পল সার্ভে। এরপর প্রার্থী তালিকা

এখন শাসকদলের রাজ্যসভার সাংসদ মানস ভুঁইয়া, তাই জয়দেব জানাকে ‘কেউ খুন করে নি!’

গত ২০১৬-র বিধানসভা ভোটে সবংয়ের দুবরাজপুরে খুন হতে হয় তৃণমূল কর্মী জয়দীপ জানাকে। আর এই ঘটনায় তৎকালীন বাম- কংগ্রেস জোটে থাকা কংগ্রেস নেতা তথা বর্তমান তৃণমূল সাংসদ মানস ভূঁইয়ার নাম জড়িয়ে পড়ে। তবে শুধু মানসবাবুই নয়, এই ঘটনায় বাম এবং কংগ্রেসের মোট ২৩ জনের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন

পিবি এক্সক্লুসিভ: এই মুহূর্তে লোকসভা ও বিধানসভা ভোট হলে কি হবে যাদবপুরের চিত্র?

এগিয়ে আসছে লোকসভা নির্বাচন - আর তার সাথেই বাড়ছে রাজ্যজুড়ে রাজনৈতিক উত্তাপ। একদিকে যখন তৃণমূল নেত্রীর ৪২-এ-৪২ করার ডাক, অন্যদিকে তখন গেরুয়া শিবিরের রাজ্য থেকে ২২ টি আসন জয়ের দাবি। পিছিয়ে নেই বামফ্রন্ট বা কংগ্রেসও, ২০১৬ বিধানসভার মত আবারো জোট করে তৃণমূল-বিজেপির সব অঙ্ক তারা গুলিয়ে দেবে? প্রশ্ন অনেক -

বেদনাতুর দীর্ঘ যন্ত্রনা থেকে মুক্তি পেতে এবার রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত লড়াইয়ের পথে রাজ্যের হাজার হাজার শিক্ষাবন্ধু

যতদিন যাচ্ছে ততই যেন রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উপচে পড়ছে রাজ্যের সরকারি ও সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত কর্মীদের মধ্যে। এতদিন রাজ্য সরকারকে অস্বস্তিতে ফেলে বড়সড় আন্দোলনের পথে হেঁটেছিলেন রাজ্য সরকারি কর্মচারী ও রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকরা। আর এবার রাজ্য সরকারের অস্বস্তি বহুগুন বাড়িয়ে তীব্র আন্দোলনের পথে রাজ্যের হাজার হাজার শিক্ষাবন্ধুরা। আজ ও আগামীকাল -

রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকদের পিআরটি স্কেলের দাবিকে জোরদার করতে আগামীকাল বিজেপি-বাম-কংগ্রেসকে একমঞ্চে আনার প্রচেষ্টা

যতদিন যাচ্ছে ততই রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে নিজেদের 'বঞ্চনা' নিয়ে আন্দোলন জোরদার করছেন রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকরা। এর আগে, পিআরটি স্কেলের দাবিতে শহীদ মিনারের পাদদেশে প্রাথমিক শিক্ষকদের সংগঠন উস্থি ইউনাইটেড প্রাইমারি টিচার্স অ্যান্ড ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন বা ইউইউপিটিডব্লুএ অক্টোবরের শেষে দুদিন ব্যাপী মহা আন্দোলন করে ঝড় তুলে দিয়েছিল। সেই প্রথম শিক্ষকদের সমর্থনে রাজনৈতিক দূরত্ত্ব

একদা দুই মমতা-ঘনিষ্ঠ ‘সৈনিক’ এখন সম্মুখসমরে, প্রথম রাউন্ডের লড়াই গেল গতকাল

একসময়ের দুই হেভিওয়েট পিটিটিআই নেতা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাশে পেয়ে বাম জামানায় নাস্তানাবুদ করে ছেড়েছিলেন লালশিবির কর্তাদের। এরাই পরবর্তীকালে নেত্রী রাজ্যের ক্ষমতায় এলে তৃণমূলের সক্রিয় কর্মী হয়ে যান। কথা হচ্ছে অশোক রুদ্র এবং পিন্টু পাড়ুই-এর। অশোক রুদ্র এখনো তৃণমূলের একনিষ্ঠ সাধক থাকলেও পিন্টু পাড়ুই কিন্তু দল ছেড়েছেন বহুদিন আগেই। প্রত্যাশা অনু্যায়ী দলে

শিক্ষক আন্দোলনে নয়া মোড়, দাবী না মানলে একযোগে অনাস্থা তিন প্রধান বিরোধী দলের

রাজ্যের শিক্ষক আন্দোলন ক্রমশ জোরালো হচ্ছে - ক্রমশ দানা বাঁধছে। দল মত নির্বিশেষে বহু শিক্ষক সংগঠন এগিয়ে এসে নিজেদের দাবির স্বপক্ষে জোরালো সওয়াল করছেন এবং একের পর এক আন্দোলনে নাজেহাল করে ছাড়ছেন রাজ্য সরকারকে। সবথেকে বড় কথা নিজেদের দাবির স্বপক্ষে তাঁরা পাশে পাচ্ছেন রাজ্যের প্রধান তিন বিরোধী দলকেই। এরকমই এক শিক্ষকদের

Top
error: Content is protected !!