এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "সপা"

ফেডারেল ফ্রন্ট ভাঙতে ‘অতীতের কথা’ তুলে হেভিওয়েট নেত্রীকে ‘বড় অফার’ বিজেপি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর

আর মাস দুয়েকের মধ্যেই দেশের লোকসভা নির্বাচন - যেখানে ঠিক হয়ে যাবে পরবর্তী পাঁচ বছরের জন্য দেশের শাসনভার থাকবে কার বা কাদের হাতে। একদিকে, যখন সেই নির্বাচনে জিতে পুনরায় ক্ষমতায় ফিরে আসতে আত্মবিশ্বাসী বর্তমান শাসকদল বিজেপি - অন্যদিকে, তখন বিজেপির ঘুম উড়িয়ে দীর্ঘদিনের বৈরিতা ভুলে গাঁটছড়া বাঁধার প্রক্রিয়া শুরু করে

‘পিসি-ভাইপোর’ জোটে শেষ কথা ‘পিসিই’, কংগ্রেসের কপালে শুধুই দয়া!

শনিবারের বারবেলায় এসে অবশেষে ঘোষিত হল বহু প্রতীক্ষিত 'বুয়া-ভাতিজা' বা 'পিসি-ভাইপোর' জোট। উত্তরপ্রদেশে বিজেপিকে হারাতে ও নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষার্থে দীর্ঘদিনের বৈরিতা ভুলে প্রায় আড়াই দশক বাদে জোট করল মায়াবতীর বহুজন সমাজবাদী পার্টি ও অখিলেশ যাদবের সমাজবাদী পার্টি। ২০১৪ এর লোকসভা নির্বাচন উত্তরপ্রদেশের এই দুই দলের কাছে রীতিমত দুঃস্বপ্ন ছিল। প্রবল মোদী

অপমানিত ‘ভাইপোর’ জেদে ‘পিসি-ভাইপোর’ মহাজোটে ঠাঁই নেই কংগ্রেসের, জুটতে পারে মাত্র দুটি আসন!

মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের রাজ্যে অ-বিজেপি মহাজোটের আসন সমঝোতা প্রায় চূড়ান্ত হয়েই গিয়েছে। এই মহাজোটে অখিলেশ যাদবের সপা বা মায়াবতীর বসপা কেউই কংগ্রেসের সঙ্গ চায় না বলে সূত্রের খবর। কার্যত রাহুল গান্ধীকে দূরে রেখেই লোকসভা ভোট যুদ্ধে লড়াই করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন উত্তরপ্রদেশের 'বুয়া-ভাতিজা' বা 'পিসি-ভাইপো' বলে খ্যাত মায়াবতী ও অখিলেশ যাদব।

বারাণসীতে নরেন্দ্র মোদী পুনরায় প্রার্থী হলে তাঁর বিরুদ্ধে লড়তে পারেন এই হেভিওয়েট তরুণ তুর্কি

২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী নরেন্দ্র মোদী একসাথে দুটি লোকসভা আসন থেকে লড়ার সিদ্ধান্ত নেন। তার মধ্যে অন্যতম ছিল উত্তরপ্রদেশের বারাণসী। দুটি আসন থেকেই তিনি জয়ী হওয়ার পর - শেষপর্যন্ত এই বারাণসী আসনটিই নিজের জন্য তিনি রেখে দেন। ২০১৪ সালে তাঁর বিরুদ্ধে আম আদমি পার্টির সুপ্রিমো অরবিন্দ কেজরিওয়াল এই

খুব শিগগিরই বড় ধাক্কা খেতে চলেছে বিজেপি? দল ছেড়ে বহু ‘হবু’ সাংসদ-বিধায়ক ‘পিসি-ভাইপোর’ সঙ্গে যোগ দিচ্ছেন?

কথায় আছে, উত্তরপ্রদেশ যার - দিল্লিতে কুর্শি তার! ভারতের বৃহত্তম রাজ্যের রাজনীতিই সব সময় মোটামুটি 'ডিসাইডিং ফ্যাক্টর' হয়ে থাকে কেন্দ্রের মসনদ দখলের ক্ষেত্রে। আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে উত্তরপ্রদেশে গেরুয়া ঝড় থামাতে দীর্ঘদিনের বৈরিতা ভুলে হাতে হাত মেলানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন উত্তরপ্রেদেশের 'পিসি-ভাইপো' মায়াবতী ও অখিলেশ যাদব। আর এর ফলে যে বহু হেভিওয়েট

সাড়ে ৭ ঘন্টার ভোটগণনার শেষের স্পষ্ট নয় মধ্যপ্রদেশের চিত্র – কোন পথে কে করতে পারে সরকার গঠন?

সকাল ৮ টা থেকে ভোটগণনা শুরু হলেও - এখনও পর্যন্ত মধ্যপ্রদেশের চিত্র পরিষ্কার নয়। কে আসতে চলেছে মধ্যপ্রদেশের কুর্সিতে - সেটাই এখন লক্ষ টাকার প্রশ্ন। ২৩০ আসন বিশিষ্ট এই রাজ্যের বিধানসভাতে স্পষ্ট সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে গেলে দরকার ১১৬ আসন। কিন্তু শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত, মধ্যপ্রদেশে বিজেপি ও কংগ্রেস - উভয় দলের ঝুলিতেই

Top
error: Content is protected !!