এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "শিক্ষামন্ত্রী"

NIOS প্রশ্নফাঁস কান্ডে মর্মান্তিক পরিণতি, প্রাথমিক শিক্ষক তথা পরীক্ষার্থীর মৃত্যু

রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকদের এক বৃহদংশের অভিযোগ, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ওপেন স্কুলিং বা NIOS কর্তৃপক্ষের অমানবিক ও অনৈতিক সিদ্ধান্তে, বর্তমানে রাজ্যের ১ লক্ষ ৬৯ হাজার প্রাথমিক, এস.এস.কে, এম.এস.কে ও বেসরকারী চাকুরীরত শিক্ষক-শিক্ষিকাদের জীবন-জীবিকা আজ বিপন্ন। আর তাই, প্রশ্নফাঁস কাণ্ডের জেরে কর্তৃপক্ষের দুই 'অমানবিক' সিদ্ধান্তে চাকরি খোয়ানোর আতঙ্কে ভুগছেন রাজ্যের হাজার হাজার

সরকারি কর্মচারীদের বিরুদ্ধে ‘হিংস্র ও পাশবিক’ আচরণের বিস্ফোরক অভিযোগ উঠল মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিরোধী নেত্রী থাকার সময় থেকেই দাবি করে এসেছেন তিনি রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের উন্নয়নে অত্যন্ত আন্তরিক। তিনি বারেবারেই বিভিন্ন জনসভায় দাবি করেছেন, বাম আমলের বিপুল পরিমান ঋণের বোঝা মাথায় নিয়েও তিনি রাজ্যের উন্নয়ন করে চলেছেন এবং একই সাথে যখন যেটুকু সম্ভব হয়েছে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের প্রাপ্য মেটানোর

শিক্ষাক্ষেত্রে ‘ইন্টার্ন’ নিয়োগ নিয়ে রাজ্যপাল থেকে শিক্ষামন্ত্রী, WBPTTA-এর জোড়া বড়সড় উদ্যোগ

গত ১৪ ই জানুয়ারী রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেন যে রাজ্যের শিক্ষাক্ষেত্রে শিক্ষকদের অপ্রতুল অবস্থা সামাল দিতে এবং রাজ্যের শিক্ষিত বেকার যুবক-যুবতীদের কথা ভেবে আগামীদিনে রাজ্যের প্রাথমিক থেকে উচ্চমাধ্যমিক স্তর পর্যন্ত ইন্টার্ন নিয়োগ করা হবে। আর, রাজ্যের প্রাথমিক স্কুলগুলিতে ইন্টার্নদের মাসিক ২,০০০ টাকা এবং উচ্চ-প্রাথমিকের ক্ষেত্রে ২,৫০০ টাকা করে ইন্টার্নশিপ দেওয়া

১ লক্ষ ৬৯ হাজার শিক্ষকের ভবিষ্যৎ বিপন্ন, উদাসীন কর্তৃপক্ষ থেকে রাজ্য সরকার, বৃহত্তর আন্দোলনে শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চ

রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকদের এক বৃহদংশের অভিযোগ, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ওপেন স্কুলিং বা NIOS কর্তৃপক্ষের অমানবিক ও অনৈতিক সিদ্ধান্তে, বর্তমানে রাজ্যের ১ লক্ষ ৬৯ হাজার প্রাথমিক, এস.এস.কে, এম.এস.কে ও বেসরকারী চাকুরীরত শিক্ষক-শিক্ষিকাদের জীবন-জীবিকা আজ বিপন্ন। প্রসঙ্গত, গত ২০ ও ২১ শে ডিসেম্বর D.EL.ED পরীক্ষার ৫০৬ ও ৫০৭ পেপারের পরীক্ষা ২ টি

প্রাথমিক শিক্ষকদের বকেয়া এরিয়ার মেটানোর দাবিতে বড়সড় আন্দোলনের পথে বিজেপি শিক্ষক সেল

ফের বেতন বঞ্চনার অভিযোগ উঠল প্রাথমিক শিক্ষকদের বিরুদ্ধে। এমনিতেই পিআরটি স্কেলের দাবিতে প্রাথমিক শিক্ষকরা আন্দোলনে নেমেছেন। এবার নতুন করে অভিযোগ উঠেছে দীর্ঘ চার থেকে সাড়ে চার বছর ধরে পূর্ব ও পশ্চিম বর্ধমান জেলার প্রাথমিক শিক্ষকদের বকেয়া এরিয়ারের টাকা মেটানো হচ্ছে না। এমনই অভিযোগ বিজেপি শিক্ষক সেলের প্রাথমিক শাখার রাজ্য কো-ইনচার্জ

মুখ্যমন্ত্রীর উন্নয়নে বড় বাধা! কন্যাশ্রী বিশ্ববিদ্যালয় আটকানো পথে বামেরা – জানুন বিস্তারিত

ক্ষমতায় আসার পর থেকে বিভিন্ন সময় রাজ্যের উন্নয়নে বিরোধীরা বাধা দিচ্ছে বলে অভিযোগ করতেন শাসকদলের নেতা মন্ত্রীরা। যদিও বা বিরোধীদের তরফ সেই অভিযোগকে বারবার নস্যাৎ করা হয়েছে। তবে এবার সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বপ্নের কন্যাশ্রী বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের ব্যাপারে প্রবল বিরোধিতায় নামল রাজ্যের একদা ক্ষমতাসীন দল হিসেবে পরিচিত বামফ্রন্টের বড় শরিক

দুষ্কৃতীদের হাতে আক্রান্ত শিক্ষক সরাসরি আঙুল তুললেন শাসকদলের দিকে, দেখে নিন এক্সক্লুসিভ ভিডিও

গতকালই, এক খবরে আমরা জানিয়েছিলাম, গাইঘাটা বিধানসভার অন্তর্গত হাবড়ায় একদল অজ্ঞাত পরিচয় দুষ্কৃতী কৃষ্ণেন্দু পোদ্দার নামে এক শিক্ষককে মেরে মাথা ফাটিয়ে দিয়েছেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তিনি হাবড়া হসপিটালে ভর্তি ছিলেন। কৃষ্ণেন্দুবাবু বারাসত অঞ্চলের শিক্ষকদের কাছে যখন পিআরটি স্কেল নিয়ে আন্দোলনের জন্য প্রচার করছিলেন - তখনই তাঁর উপর দুষ্কৃতীরা আক্রমন করে বলে

ধান কেনায় দালালরাজ নিয়ে এবার তৃণমূল মহাসচিবের কাছে অভিযোগ দলের হেভিওয়েট মন্ত্রী বিধায়কদের

দেশজুড়ে যখন কৃষকদের কৃষি ঋণ মুকুবের দাবিতে কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে ক্রমশ সরব হচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস সহ অন্যান্য বিরোধীরা, ঠিক তখনই এই রাজ্যে সেই কৃষকদেরই ধান কেনা বেচায় দালালরাজের দৌরাত্ম্যের অভিযোগে সরব হলেন খোদ শাসকদলের হেভিওয়েট মন্ত্রী বিধায়কেরাই। সূত্রের খবর, গত কাল কৃষ্ণনগর জেলা পরিষদের সভাগৃহে সরকারি সহায়ক মূল্যে ধান

ব্যাক্তির উপরে রাগ করে সরকারের ওপর রাগ করবেন না, অসুবিধা হলে জানান আমরা পাশে থাকব : শিক্ষামন্ত্রী

কার্ত্তিক গুহ, ঝাড়গ্রম:- ব্যাক্তির উপরে রাগ করে সরকারের ওপর রাগ করবেন না - ঝাড়গ্রামের কুমদকুমারী স্কুলের মাঠে ঝাড়গ্রাম জেলা বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহন করতে এসে একথা বললেন রাজ্যের শিক্ষা মন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জী। তিনি আরো বলেন, কোথাও অসুবিধা হলে আমাদের জানান আমরা অপনাদের পাশে থাকব। জঙ্গলমহলকে নতুন করে অশান্ত করবার

নিজের এমবিএর অভিজ্ঞতা দিয়ে ছাত্রছাত্রীদের সুরাহা-র জন্য নতুন পদক্ষেপের ভাবনায় শিক্ষামন্ত্রী

এবার সিবিএসসি-র কাঠামোয় বড় ধরনের পরিবর্তন আনতে মরিয়া রাজ্যের শিক্ষা দপ্তর। আর এই বদল আনার লক্ষ্যেই গতকাল বিকাশ ভবনে স্কুল এবং উচ্চশিক্ষা দপ্তরের আধিকারিকদের সঙ্গে দীর্ঘ সময় ধরে বৈঠক করেন তিনি। আলোচনা করতে গিয়ে তিনি জানিয়েছেন, নিয়মিত ক্লাসগুলোতে উপস্থিত থাকার উপর জোর দেওয়ায় ব্যাপক হারে পড়ুয়ারা পরীক্ষা দিতে পারছে না। এই সংশ্লিষ্ট

Top
error: Content is protected !!