এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "শাসকদল"

কলকাতার নামী সংবাদপত্রের হেভিওয়েট সাংবাদিক কি এবার তৃণমূলের প্রার্থী তালিকায়? জল্পনা চরমে

লোকসভা ভোটের দিন যত এগিয়ে আসছে, ততই রাজ্যের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলির প্রার্থী তালিকা নিয়ে জল্পনা বাড়ছে। বাংলার ৪২ টি আসনের মধ্যে গতবার ৩৪ টি আসনই গিয়েছিল শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের দখলে। তা সত্ত্বেও, আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে সবথেকে বেশি জল্পনা শাসকদলের প্রার্থী তালিকা ঘিরেই। কারণ, শাসকদলের অন্দরে কান পাতলে শোনা যাচ্ছে, গতবারের বিজয়ী

হেভিওয়েট তৃণমূল প্রার্থীকে হারিয়ে তৃণমূলে যোগ দিতেই অস্ত্র মামলায় গ্রেপ্তার “নির্দল” পঞ্চায়েত সদস্য

রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েও বিরোধীদেরকে বোর্ড গঠন করতে দেওয়া হচ্ছে না বলে শাসকদলের বিরুদ্ধে যখন সোচ্চার হচ্ছে বিরোধীরা, ঠিক তখনই বোর্ড গঠনের আগেই গ্রেপ্তার হলেন তৃণমূলের এক পঞ্চায়েত সদস্য। বৃহস্পতিবার এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রবল চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে বেলিয়াবেড়া থানার তপসিয়া গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায়। জানা যায়, এই বেলিয়াবেড়ার ১১

গ্রামীন বিবাদের জেরে সৎকারে বাঁধা – পিছনে বিজেপির ‘চক্রান্ত’ দেখছে তৃণমূল

রাজ্য রাজনীতিতে প্রায়ই বিভিন্ন ইস্যুতে একে অপরের বিরুদ্ধে সরব হয় শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস এবং অন্যতম প্রধান বিরোধী দল বিজেপি। কিন্তু রাজনীতির এই অন্তর্কলহ যে ব্যক্তি জীবনেও এসে পড়বে তা সত্যিই কল্পনার অতীত ছিল প্রত্যেকেরই। এবার মৃতদেহ সৎকারকে কেন্দ্র করেও একে অপরের বিরুদ্ধে তোপ দাগতে শুরু করল বাংলার বর্তমান শাসক ও

আরামবাগে হেভিওয়েট সংখ্যালঘু তৃণমূল নেতাকে পিটিয়ে খুন, অভিযুক্ত যুবরা, এলাকা ছাড়া হতেই পার্টি অফিসের দখল মাদারের

বিভিন্ন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বারবারই বলে আসছেন যে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের কাছে যত না বিজেপির উত্থান চিন্তার, তার থেকেও বেশি মাথা ব্যাথা হতে চলেছে নিজেদের গোষ্ঠীকোন্দল সামাল দেওয়া। আর এই নিয়ে দলের অন্যান্য শীর্ষনেতাদের পাশাপাশি প্রকাশ্যে বার্তা দিয়েছেন স্বয়ং দলের সর্বোচ্চনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু, সেই গোষ্ঠীকোন্দল থামা

“কথা দিয়েও” তৃণমূল নেতারা কথা না রাখায় তৃণমূলকে হারাতে গিয়ে নিজেরাই হেরে গেল বিজেপি? বাড়ছে জল্পনা

সমস্ত কিছু ঠিকঠাকই ছিল - কিন্তু হঠাৎই অনাস্থা প্রস্তাবের ফলাফল প্রকাশ্যে আসাতেই কার্যত মুখ পুড়ল বিজেপির। সূত্রের খবর, রামজীবনপুর পৌরসভার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনাস্থা আনার ব্যাপারে প্রথমে একাধিক তৃণমূল কাউন্সিলরদের সমর্থন পেলেও পরে অনাস্থা প্রস্তাবে মূল কাউন্সিলররা বিজেপির পক্ষে না থাকায় শেষপর্যন্ত ৬-৪ভোটে জয়লাভ করলেন তৃণমূলেরই চেয়ারম্যান নির্মল চৌধুরী। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ১১

বিনা পয়সায় আর কী কী দিলে ছাত্রছাত্রীরা শুধু উপস্থিতির হারের জন্য আন্দোলন করবে না! তীব্র উষ্মা শিক্ষামন্ত্রীর

লোকসভা ভোটের আগে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে কোনোরকম বিক্ষোভ আন্দোলন চায় না শাসকদল। ভোটব্যাঙ্ক বাঁচাতে নিজেদের ভাবমূর্তিকে রাজ্যবাসীর কাছে স্বচ্ছভাবে তুলে ধরতে মরিয়া মা মাটি মানুষের সরকার। তাই কিছুদিন আগে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উপস্থিতির হার নিয়ে ছাত্রছাত্রীদের করা আন্দোলন নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করতে দেখা গেল শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে। দাড়িভিট কান্ড, স্কুল সার্ভিস

জয়নগরে তৃণমূল বিধায়কের গুলি কাণ্ডে বিস্ফোরক তথ্য হাতে এলো তদন্তকারী অফিসারদের

জয়নগরে তৃণমূল বিধায়ককে লক্ষ্য করে গুলি চলার ঘটনার পিছনেও উঠে এল শাসকদলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের কথা। পাশাপাশি একই সঙ্গে তাৎপর্যপূর্ণভাবে উঠে এলো আরেকটি চাঞ্চল্যকর তথ্য। তদন্তে নেমে বারুইপুর জেলা পুলিশ, এসওজি এবং সিআইডি অফিসাররা জানতে পারেন, খুন হওয়া জয় হিন্দ বাহিনীর সভাপতি সরফুদ্দিনের বিরুদ্ধে খুন, তোলাবাজি, শ্লীলতাহানি, জমি দখল সহ একাধিক মামলা রয়েছে।

জঙ্গলমহলে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব মেটাতে সুপারিশ তালিকা উড়িয়ে অভিনব পদক্ষেপ তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের

জঙ্গলমহলের গোষ্ঠীকোন্দল মেটাতে নয়া পরিকল্পনা শাসকদলের। তৃণমূলের এই শক্ত ঘাঁটিতেই পদ্মের উত্থান ঘটেছে এবারের পঞ্চায়েত নির্বাচনে। তাই আগামী লোকসভা নির্বাচনে জঙ্গলমহলের মাটিতে ফের নিজেদের দাপট বোঝাতে মরিয়া তৃণমূল কংগ্রেস। আর তাই, এসব এলাকায় শাসকদলের সংগঠনকে ঢেলে সাজাতে আসরে নেমেছে তৃণমূলের রথী-মহারথীরা। সুপারিশ তালিকা বাদ দিয়েই কিছুদিন আগে সর্বসম্মতিতে ঝাড়গ্রাম জেলা পরিষদের

গো-বলয়ে গেরুয়াকে ফিকে করে “গণতন্ত্র বাঁচানোর লড়াইয়ের” অঙ্গীকারে মহাজোটের মহা শপথ

হিন্দুত্বের পোস্টার বয় বলে পরিচিত কেন্দ্রের শাসকদল বিজেপি। আর, বিজেপির সম্প্রতি পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফলে শোচনীয় পরাজয়ে বাড়তি অক্সিজেন জুগিয়েছে বিরোধী মহাজোটকে। আর এদিন বিরোধী মহাজোটের সেই সমবেত বৈঠকেও এল ঐক্যের সুর। সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর থেকে আরও জানা যাচ্ছে, এদিনের এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী

পুরসভায় 26 টি পদের জন্য পরীক্ষার্থী 4 হাজার, বিরোধীদের অভিযোগ অস্বচ্ছতার, সংযত থাকার আবেদন শাসকের

রাজ্যের কর্মসংস্থানের বেহাল দশা নিয়ে বিভিন্ন সময়েই সরকারকে কটাক্ষ করে বিরোধীরা। কিন্তু এবারে শাসকদল পরিচালিত কান্দি পুরসভা সেই কর্মসংস্থানের জন্য পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হলেও বিরোধীদের সমালোচনার মুখ থেকে কিছুতেই ফিরে আসতে পারছে না শাসকদল। কিন্তু যেখানে বিরোধীদের দাবি অনুযায়ী কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করছে শাসকদল পরিচালিত পৌরসভা, সেইখানে কেন হইচই শুরু করছে বিরোধীরা?

Top
error: Content is protected !!