এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "লোকসভা নির্বাচন"

পুলিশ কর্মীদের জন্য সুখবর, বড়সড় নির্দেশিকা জারি নবান্ন থেকে – জেনে নিন বিস্তারিত

এবারের লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের খারাপ ফলাফল হওয়ার পেছনে সরকারি কর্মীদের সমর্থন যে অনেকাংশেই কম ছিল, তা বুঝতে বাকি নেই কারোরই। কেননা দীর্ঘদিন ধরেই মহার্ঘ ভাতা না দেওয়ার ফলে রাজ্যের শাসকদলের বিরুদ্ধে সরকারি কর্মচারীদের মনে তীব্র ক্ষোভ তৈরি হয়েছিল। আর সরকারি কর্মীদের সেই ক্ষোভ প্রশমিত না হলে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচন যে

বিধানসভায় ক্রমশ শক্তি বাড়াচ্ছে বিজেপি, দলীয় বিধায়কদের কড়া নির্দেশিকা তৃণমূলের

বেশ কিছুদিন আগেই তৃণমূলের কোর কমিটির বৈঠকে দলীয় বিধায়কদের বিধানসভায় হাজিরা দেওয়ার ব্যাপারে কড়া নির্দেশ দিতে দেখা যায় তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। কিন্তু নেত্রীর সেই নির্দেশ যে দলীয় বিধায়কদের কানে এখনও পৌঁছায়নি তা ফের স্পষ্ট হয়ে গেল। লোকসভা নির্বাচনের পর যখন বাংলায় বিজেপির শক্তি দিনকে দিন বৃদ্ধি হচ্ছে,

বিজেপির ‘অফার’ ছিল, পছন্দ হয় নি! দাবি তুলে শোরগোল ফেলে দিলেন প্রাক্তন বিধায়ক

লোকসভা নির্বাচনে এবার রাজ্যে বিজেপির প্রবল উত্থান লক্ষ্য করা গেছে। গত ২০১৪ সালে তারা দুটি আসন পেলেও এবার তাদের দখলে এসেছে প্রায় ১৮ টি আসন। আর নির্বাচনে এই সাফল্যের পরই বাংলায় বিভিন্ন দল থেকে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা পদ্ম শিবিরে যোগ দিতে শুরু করেন। যার জেরে নিজেদের শক্তি দিনকে দিন বৃদ্ধি হতে

মুকুল-শঙ্কুর হাত ধরে এবার খোদ কলকাতার বুকে তৃণমূলের যুব সংগঠনে বড়সড় ভাঙন ধরালো বিজেপি

লোকসভা নির্বাচনে বাংলা থেকে বিজেপি ১৮ টি আসন জেতার পরেই, রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে শাসকদল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদানের হিড়িক লেগেছে। রাজনৈতিক গুরু মুকুল রায় যখন তৃণমূলের মাদার সংগঠনকে ভেঙে ছিন্নভিন্ন করে দিচ্ছেন, তখন প্রিয়তম শিষ্য শঙ্কুদেব পণ্ডা একই দায়িত্ব নিয়ে নিয়েছেন তৃণমূলের ছাত্র ও যুব সংগঠনে থাবা বসাতে। এতদিন, শঙ্কুদেব পণ্ডার

বিগ ব্রেকিং নিউজ – এই সপ্তাহের মধ্যেই কলকাতা পুরসভার দখল নিতে চলেছে বিজেপি?

লোকসভা নির্বাচনের পরেই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে নাম লেখানোর ধুম পরে গেছে গোটা রাজ্য জুড়ে। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের একাধিক বিধায়ক তৃণমূল, বামফ্রন্ট বা কংগ্রেস ছেড়ে যোগ দিচ্ছেন বিজেপিতে। সেই বিধায়কদের সঙ্গে গেরুয়া শিবিরে যোগ দিচ্ছেন একাধিক কাউন্সিলরও - ফলে ইতিমধ্যেই বেশ কিছু পুরসভার দখল নিয়েছে বিজেপি। আজ দক্ষিণ দিনাজপুর থেকে প্রাক্তন তৃণমূল

বিজেপির জয় নিশ্চিত, বহু আসনে তৃণমূল তৃতীয়! সুনীল দেওধরের গোপন রিপোর্টে খুশির হাওয়া গেরুয়া শিবিরে

এবারের লোকসভা নির্বাচনে দিল্লিতে পুনরায় ক্ষমতার ফেরার পাশাপাশি বাংলায় দুর্দান্ত ফলাফল করার ব্যাপারে বেশ আত্মবিশ্বাসী গেরুয়া শিবির। নির্বাচনের বহু দিন আগে থেকেই বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ দাবি করে আসছিলেন, বাংলা থেকে এবারে নাকি গেরুয়া শিবির কমপক্ষে ২২-২৩ টি আসন জিততে চলেছে। কিন্তু, বাংলায় বিজেপির সংগঠন এখনও সেভাবে পোক্ত হয়

তিন আসনে প্রার্থী চূড়ান্ত – বাকি ৩৯ আসনের গেরুয়া শিবিরের প্রার্থীপদ নিয়ে ঝড় উঠতে চলেছে আজ

পরবর্তী লোকসভা নির্বাচনের জন্য বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলি সন্তপর্ণে ঢুকে পড়ছে 'ইলেকশন মোডে'। জাতীয় নির্বাচন কমিশন এখনও নির্বাচনের দিন নিয়ে কোনো ইঙ্গিত না দিলেও - বিভিন্ন সূত্রের খবর থেকে মনে করা হচ্ছে মার্চ মাসের প্রথম তিন দিনের মধ্যেই ঘোষণা হয়ে যেতে পারে নির্বাচনের দিন - চালু হয়ে যেতে পারে আদর্শ নির্বাচনী

লোকসভার আগে প্রধানমন্ত্রীকে বড় ধাক্কা দিয়ে ৪৩ বছরের পুরোনো ‘বন্ধুর’ ‘চায়েওয়ালা’ ভাবমূর্তি নিয়ে বিস্ফোরক দাবি

২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে থেকেই নিজেকে 'চায়েওয়ালা' হিসাবে দেশবাসীর সামনে তুলে ধরেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী স্বয়ং। কংগ্রেসকে দেশ থেকে মুছে দিতে 'পরিবারতন্ত্রের' বিরুদ্ধে এক 'চায়েওয়ালার' লড়াইকে সবার সামনে এনেছে গেরুয়া শিবির। আর আমজনতার কাছে তা যে অত্যন্ত গ্রহণযোগ্য হয়েছে - তা বিজেপির আকাশচুম্বী সাফল্যেই প্রমাণিত। কিন্তু, ঠিক তার পাঁচ বছর

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় কিভাবে হবে বিজেপির প্রার্থী বাছাই? কারা পেতে পারেন টিকিট জানুন বিস্তারিত

প্রিয় বন্ধু বাংলা এক্সক্লুসিভ - দেখতে দেখতে এসে পড়ল আরেকটা লোকসভা নির্বাচন। এবারের লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস হুঙ্কার দিয়ে রেখেছে রাজ্যের ৪২ টি আসনের মধ্যে ৪২ টিই তাদের চায় - অন্যদিকে, বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহও জানিয়ে রেখেছেন বাংলায় এবারে বিজেপি অন্তত ২২-২৩ টি আসন পেতে চলেছে। অন্যদিকে,

ফেডারেল ফ্রন্ট ভাঙতে ‘অতীতের কথা’ তুলে হেভিওয়েট নেত্রীকে ‘বড় অফার’ বিজেপি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর

আর মাস দুয়েকের মধ্যেই দেশের লোকসভা নির্বাচন - যেখানে ঠিক হয়ে যাবে পরবর্তী পাঁচ বছরের জন্য দেশের শাসনভার থাকবে কার বা কাদের হাতে। একদিকে, যখন সেই নির্বাচনে জিতে পুনরায় ক্ষমতায় ফিরে আসতে আত্মবিশ্বাসী বর্তমান শাসকদল বিজেপি - অন্যদিকে, তখন বিজেপির ঘুম উড়িয়ে দীর্ঘদিনের বৈরিতা ভুলে গাঁটছড়া বাঁধার প্রক্রিয়া শুরু করে

Top
error: Content is protected !!