এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "রাম মন্দির"

চা-ওলাকে প্রধানমন্ত্রী করার পর এবার কাগজ কুড়ানিকে গুরুত্বপূর্ণ শহরের মেয়র করে চমকে দিল বিজেপি

লোকসভা নির্বাচনে বিরোধী দলগুলি বিজেপিকে পরাভূত করতে হাতে হাত মেলাচ্ছে, দীর্ঘদিনের বৈরিতা ভুলে এক ছাতার তলায় আসছে - একে অপরের বিরুদ্ধে লড়তে থাকা দলগুলি। বিরোধীদের অভিযোগ বিজেপির নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহ জুটি দেশে একনায়কতন্ত্র কায়েম করে গণতন্ত্রকে হত্যা করছে। এমনকি, আম আদমি পার্টির সুপ্রিমো অরবিন্দ কেজরিওয়াল এক ধাপ এগিয়ে দাবি করেছেন

দিদি প্রধানমন্ত্রী হলে দেশের কল্যাণ হবে – ওঁর সততা আছে, দিদির শ্রীবৃদ্ধি হোক : মোহন্ত মহারাজ

রাজ্যের শাসকদলের সিংহভাগ নেতারাই যখন ভবিষ্যতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেখতে চাওয়ার দাবি তুলছেন, ঠিক তখনই সেই প্রধানমন্ত্রী পদে সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই দেখতে চাওয়ার কথা শোনা গেল কপিলমুনি মন্দিরের প্রধান মোহন্ত স্বামী জ্ঞানদাস মহারাজের গলায়। বস্তুত দেশজুড়ে যখন বিজেপির ওপর রাম মন্দিরের স্থাপন নিয়ে চাপ বাড়াচ্ছে বিভিন্ন হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলো,

গো-বলয়ে ধাক্কার পর এই ইস্যু কি বড়সড় চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়াল মোদী-শাহর? বাড়ছে জল্পনা

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে অযোধ্যায় রামমন্দির নির্মাণ কি একটি বড়সড় ইস্যু হতে চলেছে রাজনৈতিক দলগুলির কাছে? এই প্রশ্ন যখন ঘুরপাক খাচ্ছে জাতীয় রাজনীতির অলিন্দে, ঠিক তখনই রামমন্দিরের দাবীতে লক্ষাধিক মানুষকে জমায়েত করে সাড়া ফেলে দিল বিশ্ব হিন্দু পরিষদ। মাস খানেক আগেই এই দাবীতে আওয়াজ তুলেছিল এই সংগঠন - কিন্তু, সেভাব প্রভাব

ব্রিগেডে জেলা থেকে ৫ লক্ষ লোক নিয়ে যেতে ব্লকে ব্লকে মিটিং অনুব্রতর, বেআইনি কাজ বা তোলাবাজি হলেই জেলে পোড়ার নিদান

আগামী বছরের শুরুতেই শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের ব্রিগেডে কেন্দ্র বিরোধী মহা-সমাবেশ। লোকসভা ভোটকে টার্গেট করে বিজেপি বিরোধী এই বৃহত্তর মহা জন সমাবেশে জেলাস্তর থেকে রেকর্ড পরিমান লোক নিয়ে যাওয়ার নিদান রয়েছে স্বয়ং তৃণমূল নেত্রীর বলে দলীয় সূত্রে খবর। সেই নির্দেশ অক্ষরে অক্ষরে পালন করতেই জেলায় জেলায় সভা করতে শুরু করেছেন শাসকদলের

জিতেও চিন্তা যাচ্ছে না কংগ্রেসের, ২০১৯ এ কি এই ফ্যাক্টর গুলো বিপদে ফেলতে পারে উঠছে প্রশ্ন

পাঁচটি রাজ্যের বিধানসভা ভোটের ফলাফলের উপর দাঁড়িয়ে ছিল ১৯ 'এর লোকসভা ভোটের জন্য রণকৌশলের পরিকল্পনা, এমনটাই বহুবার বক্তব্যে ইঙ্গিত দিয়েছেন হেভিওয়েট রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরা। লোকসভা ভোটে লড়াই করার জন্যে বিজেপি বনাম বিরোধীজোটের নতুন করে ঘুঁটি সাজানোর প্রক্রিয়া শুরু হল এখন থেকেই। অপ্রত্যাশিত ভাবে পাঁচটি রাজ্যের মধ্যে তিনটেই হার হল বিজেপির। বিশেষ করে

লোকসভা নির্বাচনেও ‘রাস্তায় বিরোধীদের উন্নয়ন’ দেখতে অনুব্রত মণ্ডলের হাতে রুপো ও বাসের পাচন অনুগামীদের

এতদিন নিজের বক্তব্যে পাচনের কথা বলে বাজিমাত করেছিলেন তিনি। কিন্তু বাস্তবে সেই পাচন জিনিসটা কি তা দেখিনি কেউই। তবে এবারে সেই বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের হাতেই প্রতীকী রুপোর পাচন ও বাসের আসল পাচন তুলে দিলেন তাঁরই দলের অন্যতম কর্মী তথা মুরারই 2 ব্লকের তৃণমূল সভাপতি আফতাবউদ্দিন মল্লিক। সূত্রের খবর,

Top
error: Content is protected !!