এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "রাজ্য রাজনীতি"

বিজেপির ‘অফার’ ছিল, পছন্দ হয় নি! দাবি তুলে শোরগোল ফেলে দিলেন প্রাক্তন বিধায়ক

লোকসভা নির্বাচনে এবার রাজ্যে বিজেপির প্রবল উত্থান লক্ষ্য করা গেছে। গত ২০১৪ সালে তারা দুটি আসন পেলেও এবার তাদের দখলে এসেছে প্রায় ১৮ টি আসন। আর নির্বাচনে এই সাফল্যের পরই বাংলায় বিভিন্ন দল থেকে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা পদ্ম শিবিরে যোগ দিতে শুরু করেন। যার জেরে নিজেদের শক্তি দিনকে দিন বৃদ্ধি হতে

মুকুল রায়ের থেকেও বড় চ্যালেঞ্জ মমতা ব্যানার্জির দিকে ছুঁড়ে দিলেন অধীর চৌধুরী

লোকসভা নির্বাচনের যত দিন এগিয়ে আসছে ততই জমে উঠছে রাজ্য রাজনীতি। বাংলায় এক দিকে যখন ৪২ এ ৪২ করে তৃণমূল কংগ্রেস প্রথম বাঙালি প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন উস্কে দিচ্ছে - তখন গেরুয়া শিবির বাংলা থেকে অন্তত ২৩ টি আসন জিতে রাজ্যে তৃণমূলী শাসনের পতনের হুঙ্কার ছাড়ছে। আর এর মাঝেই যেন কোথাও গিয়ে

দিলীপ ঘোষ বিজেপির সভাপতি থাকলে আমাদের লাভ, আমরা চাই উনি আরও ২০ বছর থাকুন – জানিয়ে দিল তৃণমূল

রাজ্য রাজনীতিতে বর্তমানে দুই যুযুধান প্রতিপক্ষের নাম তৃণমূল কংগ্রেস ও ভারতীয় জনতা পার্টি। তৃণমূল বিজেপিকে কেন্দ্র থেকে ক্ষমতাচ্যুত করতে চায় - আবার উল্টোদিকে বিজেপি তৃণমূলকে রাজ্য থেকে ক্ষমতাচ্যুত করতে চায়। ফলে, স্বাভাবিকভাবেই দুই দলের চাপান উতোর থাকবে। কিন্তু তৃণমূল কংগ্রেসের হেভিওয়েট নেতা তথা রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক সবাইকে চমকে দিয়ে

আবার বিজেপি ভেঙে শক্তি বৃদ্ধি করল শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস

রাজ্য রাজনীতিতে যত দিন যাচ্ছে ততই দুই যুযুধান প্রতিপক্ষ তৃণমূল কংগ্রেস ও ভারতীয় জনতা পার্টি একে অপরের ঘর ভাঙার কৌশল নিচ্ছে। কিছুদিন আগেই শাসকদলের বিষ্ণুপুরের লোকসভা সাংসদ সৌমিত্র খাঁ তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও দলের বর্তমান অঘোষিত দুনম্বর নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়ে গেরুয়া শিবিরে যোগদান করেছেন। তারপরেই জল্পনা

বিজেপিতে যোগ দিয়েই বড় প্রাপ্তি প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ সৌমিত্র খাঁর – জানুন বিস্তারিত

রাজ্য রাজনীতিতে এখন খবরের শিরোনামে তৃণমূল কংগ্রেসের বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। কিছুদিন আগেই খবরে প্রকাশিত হয় - তৃণমূল ত্যাগী বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রাখার কারণে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে আর তিনি তৃণমূল কংগ্রেসের টিকিট পাচ্ছেন না - আর তাই তিনি নাকি বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন। এই ব্যাপারে মুকুলবাবুর সঙ্গে

শুধু তৃণমূল ভাঙিয়েই ক্ষান্ত নন, স্বয়ং তৃণমূল নেত্রীর বিরুদ্ধে এবার বিস্ফোরক অভিযোগ সামনে আনলেন মুকুল রায়!

রাজ্য রাজনীতি আজ দুপুরের পর থেকে তোলপাড় হয়ে যায় দু-দুটি ঘটনায়। প্রথমেই, তৃণমূল কংগ্রেসের বিষ্ণুপুর লোকসভার বর্তমান সাংসদ সৌমিত্র খাঁ স্বয়ং তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও দলের অঘোষিত দুনম্বর নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে একরাশ ক্ষোভ উগরে দিয়ে প্রবল প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপিতে যোগদান করেন। আর এই ঘটনার পরে তৃণমূল কংগ্রেস মহাসচিব পার্থ

সৌমিত্র খাঁয়ের বিজেপিতে যোগদানের রেশ মেলাতে না মেলাতেই দল থেকে বহিস্কৃত আরেক তৃণমূল সাংসদ!

আজ দুপুরের পর থেকেই রাজ্য রাজনীতিতে শোরগোল ফেলে দিয়েছিল যে খবর তা হল - রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের বিষ্ণুপুর লোকসভা কেন্দ্রের বর্তমান সাংসদ সৌমিত্র খাঁ দল ছেড়ে মুকুল রায়ের হাত ধরে বিজেপিতে যোগদান করেন। গতকাল রাতেই নিজের ফেসবুক লাইভে তিনি বিষ্ণুপুরের এসডিপিও সুকমল দাসের বিরুদ্ধে তাঁকে হত্যার চক্রান্ত ও তাঁর

লোকসভা নির্বাচনের আগে আরও বড় দায়িত্ত্ব অনুব্রত মন্ডলের কাঁধে – জানুন বিস্তারিত

রাজ্য রাজনীতিতে কোনো জনপ্রতিনিধি না হয়েও সব সময়েই যিনি খবরের শিরোনামে থাকেন তিনি আর কেউ নন, বীরভূম জেলা তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি অনুব্রত মন্ডল। কিছুদিন আগেও যিনি বিখ্যাত ছিলেন - পুলিশের উপর বোমা মারার নিদান দিয়ে, বা বিরোধীদের গুড়-বাতাসা বা ঢাকের চরাম চরাম বোলের জন্য। পঞ্চায়েত নির্বাচন থেকে অবশ্য উনি বিশেষ

বলিউডের নামী বাঙালি অভিনেত্রী এবার বাংলা থেকে বিজেপির টিকিটে লোকসভা নির্বাচনে? জল্পনা চরমে

আসন্ন লোকসভা নির্বাচন উপলক্ষে সব রাজনৈতিক দলই ঘুঁটি সাজাতে শুরু করে দিয়েছে। কোন দলের হয়ে কে কোথায় প্রার্থী হচ্ছেন - সেই জল্পনায় সরগরম রাজ্য রাজনীতি। তবে বাংলার ক্ষেত্রে সবথেকে বেশি আগ্রহ দুটি দলকে নিয়ে - তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপি। আর সেটাই স্বাভাবিক - কেননা একদিকে তৃণমূল কংগ্রেসের দলনেত্রী হুঙ্কার দিয়েছেন বাংলায়

আটকাতে পারল না অনুব্রত মন্ডলের ‘উন্নয়ন মন্ত্র’, বিজেপির ‘ঘরের ছেলে ঘরে’ – জানুন বিস্তারিত

রাজ্য রাজনীতিতে এই মুহূর্তে খবরের শিরোনামে থাকা অন্যতম জেলার নাম বীরভূম - আর তার সৌজন্যে তৃণমূল কংগ্রেসের দাপুটে জেলা সভাপতি অনুব্রত মন্ডল। পঞ্চায়েত নির্বাচনে 'রাস্তায় উন্নয়ন দাঁড় করিয়ে' বা 'মশারির ব্যবস্থা' করে গোটা জেলাকেই কার্যত তৃণমূল কংগ্রেসের দখলে রেখেছিলেন তিনি। তবে, হাতে গোনা যে কয়েকটা জায়গায় নির্বাচন হয়েছিল - সেখানে

Top
error: Content is protected !!