এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "রাজ্য প্রশাসন"

কাট-আউটে গোবর ল্যাপা থেকে পোস্টার ছেঁড়া – অমিত শাহের সভার আগে একের পর এক বিস্ফোরক অভিযোগ

আজ থেকে বাংলায় 'পরিবর্তনের পরিবর্তন' করার লক্ষ্যে একাধিক পদক্ষেপের পথে গেরুয়া শিবির। আর তারই প্রাথমিক পদক্ষেপ হিসাবে সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহকে দিয়ে মালদায় জনসভা করাতে চলেছে বঙ্গ-বিজেপি। এমনিতেই অমিত শাহের শারীরিক অসুস্থতার কারণে - তাঁর এই জনসভা একাধিকবার পিছোতে হয়েছে। তার উপরে অভিযোগ উঠেছে প্রশাসনিক অসহযোগিতার। কখনও জনসভার জন্য জমি বা

রথযাত্রা নিয়ে কি বলল সুপ্রিম কোর্ট? শেষ হাসি কার? জানুন বিস্তারিত

রাজ্য জুড়ে গেরুয়া ঝড় তোলার জন্য বিজেপি আস্থা রেখেছিল রথযাত্রার উপর। কিন্তু, রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলার অবনতি হতে পারে এই যুক্তিতে কিছুতেই রাজি হয় নি রাজ্য প্রশাসন। ফলে, বিষয়টি গড়ায় আদালত পর্যন্ত - কিন্তু কলকাতা হাইকোর্টেও তার সুষ্ঠু সমাধান না হওয়ায়, মামলা গড়িয়েছিল সুপ্রিম কোর্টে। বিজেপির রথযাত্রা নিয়ে আজ সুপ্রিম কোর্টের শুনানিতে বড়সড়

গো-বলয়ের তিন রাজ্যের পাশাপাশি এই রাজ্যেও বড়সড় ধাক্কা বিজেপির, লোকসভার আগে ধুয়ে মুছে সাফ গেরুয়া শিবির!

শিরোমনি আকালি দলের সঙ্গে জোট বেঁধে দীর্ঘদিন পাঞ্জাব নিজেদের দখলে রেখেছিল বিজেপি। কিন্তু, বিগত বিধানসভা নির্বাচনেই ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংয়ের নেতৃত্ত্বে পঞ্চনদের তীরের এই রাজ্য দখল করে কংগ্রেস। তবে, কংগ্রেসের সৌজন্যে শুধু বিজেপি বা তার জোটসঙ্গীই নয়, কপাল পোড়ে অরবিন্দ কেজরিওয়ালের আম আদমি পার্টিরও। আর লোকসভা নির্বাচনের আগে, পাঞ্জাব আরও একবার দেখিয়ে

পুনরায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হেভিওয়েট জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে, ফের অস্বস্তি বিজেপিতে

রাজ্য প্রশাসন এবং তৃণমূল সরকার মিলে বিভিন্ন জায়গায় উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে তাঁদের কর্মীদের গ্রেফতার করছে বলে দীর্ঘদিন ধরেই এই অভিযোগ তুলে আসছে বাংলার বর্তমান বিরোধী দল বিজেপি। কিছুদিন আগেই উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপির সভাপতি শঙ্কর চক্রবর্তীকে গ্রেপ্তার করা নিয়ে রাজ্যের বিরুদ্ধে প্রবল ভাবে সরব হয়েছিল গেরুয়া শিবির। এমনকি এই ইস্যুকে কাজে লাগিয়ে

বেহালা থেকে কোচবিহার – বিজেপির আইন অমান্য কর্মসূচি ঘিরে তুলকালাম, পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি দুই রাজ্য সম্পাদকের

রাজ্য রাজনীতির মোর ঘোরাতে রাজ্যজুড়ে বিজেপি গণতন্ত্র বাঁচাও যাত্রার পরিকল্পনা করেছিল। কিন্তু, রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা বিঘ্নিত হতে পারে বলে সেই রাজনৈতিক কর্মসূচিতে কিছুতেই অনুমতি দিতে রাজি ছিল না রাজ্য প্রশাসন। ফলে বল গড়ায় আদালতে। সেখানেও, রাজ্য সরকারের কাছে বারবার বাধা প্রাপ্ত হয়ে গেরুয়া শিবির তা টেনে নিয়ে গিয়েছে সুপ্রিম কোর্টে। কিন্তু, দেশের

মমতাদেবী, আপনার কুকীর্তির কথা মানুষ জানতে পারলে আপনাকে আস্তাকুঁড়ে ছুড়ে ফেলে দেবে: মুকুল রায়

আজ ব্যারাকপুরে বিজেপি নেতা মুকুল রায় রেল স্টেশন সংলগ্ন মঞ্চে বিজেপির গণতন্ত্র বাঁচাও সমাবেশ কর্মসূচি উপলক্ষে উপস্থিত হয়ে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস ও তৃণমূল কংগ্রেসের শীর্ষনেতাদের তীব্র আক্রমন করেন। মুকুলবাবু বলেন, বিজেপির তরফ থেকে ২৯ শে অক্টোবর থেকে রাজ্য সরকারকে বারবার জানানো হয়েছে এই রথযাত্রা উপলক্ষে তাঁরা রাজ্য সরকারের সঙ্গে

দিনভর অপেক্ষার পর অবশেষে এল রথযাত্রা নিয়ে রাজ্য সরকারের সিদ্ধান্ত – কি হল, জানুন বিস্তারিত

বিজেপির 'গণতন্ত্র বাঁচাও' যাত্রার নামে রথযাত্রায় অনুমতি দেয় নি রাজ্য প্রশাসন - আর তার পরিপ্রেক্ষিতে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করে রাজ্য বিজেপি। সেই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে আদালতের নির্দেশ - রাজ্য প্রশাসনের সঙ্গে বসে বিজেপি নেতাদের বৈঠকের ভিত্তিতে এই নিয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নিতে হবে। সেই বৈঠক নিয়েও একপ্রস্থ টালবাহানা শেষে লালবাজারে হয় বৈঠক। এরপর,

রথযাত্রা নিয়ে প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠকের আগে ‘সুপার চমক’ গেরুয়া শিবিরের – জানুন বিস্তারিত

গেরুয়া শিবিরের রথযাত্রা নিয়ে জমজমাট রাজ্য রাজনীতি। রাজনৈতিক লড়াই এখন রাজনীতির ময়দান ছেড়ে আদালতের দোরগোড়ায়। আর আদালতের নির্দেশে আপাতত স্থগিত সেই রাথযাত্রা। কিন্তু, একইসঙ্গে আদালতের নির্দেশ - প্রশাসনের শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গে গেরুয়া শিবিরের নেতাদের বসে আলোচনা করে এর ফয়সালা করতে হবে। কিন্তু, সেই আলোচনার প্রাক্কালেও রাজ্য সরকার আবার ছুটেছিল আদালতের দরবারে।

রাজ্যের দেড় লক্ষ কৃষকের জন্য একলপ্তে বড়সড় ঘোষণা রাজ্য সরকারের – জানুন বিস্তারিত

লোকসভা ভোটের আগে রাজ্যের কৃষকদের জন্যে বড়সড় ঘোষণা রাজ্য প্রশাসনের। এবার ৩১ শে ডিসেম্বরের মধ্যে দেড় লক্ষ চাষীদের ফসল বিমা যোজনার আওতায় আনতে উদ্যোগ নিতে দেখা গেল বীরভূম জেলা প্রশাসন ও কৃষি দপ্তরকে। দিন দুয়েক আগে বীরভূম জেলার ফসল বিমার দায়িত্বপ্রাপ্ত বিমা কোম্পানির প্রতিনিধি, কৃষি দপ্তর সহ সংশ্লিষ্ট সব আধিকারিকদের

পাঁচ রাজ্যের ভোটগণনার মাঝেই তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে বড় জয় ছিনিয়ে নিলেন গেরুয়া শিবিরের হেভিওয়েট নেতা

রাজ্যজুড়ে বিজেপির রথযাত্রা তথা 'গণতন্ত্র বাঁচাও' যাত্রা আপাতত গড়িয়েছে আদালতে। আদালতের রায়ে, এই নিয়ে বিজেপি নেতৃত্ত্বের সঙ্গে রাজ্য প্রশাসনকে বসে আলোচনা করে এর ভবিষ্যৎ নির্নয় করতে হবে। আর তাই. বিজেপি নেতৃত্ত্বের তরফে মুকুল রায় ও জয়প্রকাশ মজুমদার পৌঁছে গিয়েছিলেন নবান্নের দোরগোড়ায়। কিন্তু, বিজেপি শিবিরের এই দুই শীর্ষনেতার বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা আছে

Top
error: Content is protected !!