এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ"

আরামবাগে হেভিওয়েট সংখ্যালঘু তৃণমূল নেতাকে পিটিয়ে খুন, অভিযুক্ত যুবরা, এলাকা ছাড়া হতেই পার্টি অফিসের দখল মাদারের

বিভিন্ন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বারবারই বলে আসছেন যে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের কাছে যত না বিজেপির উত্থান চিন্তার, তার থেকেও বেশি মাথা ব্যাথা হতে চলেছে নিজেদের গোষ্ঠীকোন্দল সামাল দেওয়া। আর এই নিয়ে দলের অন্যান্য শীর্ষনেতাদের পাশাপাশি প্রকাশ্যে বার্তা দিয়েছেন স্বয়ং দলের সর্বোচ্চনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু, সেই গোষ্ঠীকোন্দল থামা

দক্ষিণের রাজনীতির ‘শূন্যস্থানের’ দখল নিতে আসরে হেভিওয়েট অভিনেতা, নতুন দলের জোট ভবিষ্যৎ নিয়ে জিইয়ে রাখলেন ধোঁয়াশা

২০১৬ সালে তামিলনাড়ুর তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতা মারা যাওয়ার পরই শূন্যতা সৃষ্টি হয় সেখানকার রাজনৈতিক মহলে। আর সেই শূন্যস্থান পূরণে সেখানকার প্রায় সিংহভাগ মানুষই চাইছিলেন যে, আম্মার রাজ্যে নতুন কোন মুখ উঠে আসুক।সেইমতো কিছুদিন আগেই সেই তামিলনাড়ুতে নিজের তৈরি রাজনৈতিক দল "মাক্কাল নিধি মাইয়ম" কে প্রতিষ্ঠা করে সকলকে চমক লাগিয়ে দেন

পুরসভার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ হেভিওয়েট তৃণমূল কাউন্সিলরের, তীব্র অস্বস্তি অনুব্রত-গড়ে

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের কাছে বিজেপির উত্থান যত না মাথাব্যথার কারণ হবে তার থেকে অনেক বেশি গুন অস্বস্তি বাড়াবে দলীয় গোষ্ঠীকোন্দল বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। এই নিয়ে দলের শীর্ষনেতারা তো বটেই - স্বয়ং দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ইতিমধ্যেই বহুবার প্রকাশ্যে কড়া বার্তা দিয়েছেন। কিন্তু, সেই গোষ্ঠীকোন্দল কমার তো

দিলীপ-রাহুল-সুব্রতদের অমিত শাহের দিল্লিতে জরুরি তলব – জল্পনা বাড়ছে গেরুয়া শিবিরের অন্দরে

পাঁচ রাজ্যের নির্বাচনে, বিশেষ করে গো-বলয়ে কংগ্রেসের কাছে ধরাশায়ী হতে হয়েছে গেরুয়া শিবিরকে। ফলে, সম্মিলিত বিরোধী শক্তি আরও বলীয়ান হয়ে ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনে ঝাঁপাবেই। এই পরিস্থিতিতে, কেন্দ্র দ্বিতীয়বারের জন্য নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্ত্বাধীন সরকার গড়া বেশ কঠিন - মেনে নিচ্ছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। আর তাই, পশ্চিম ও মধ্যে ভারতের যে আসন সংখ্যা গেরুয়া

রথযাত্রা নিয়ে প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠকের আগে ‘সুপার চমক’ গেরুয়া শিবিরের – জানুন বিস্তারিত

গেরুয়া শিবিরের রথযাত্রা নিয়ে জমজমাট রাজ্য রাজনীতি। রাজনৈতিক লড়াই এখন রাজনীতির ময়দান ছেড়ে আদালতের দোরগোড়ায়। আর আদালতের নির্দেশে আপাতত স্থগিত সেই রাথযাত্রা। কিন্তু, একইসঙ্গে আদালতের নির্দেশ - প্রশাসনের শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গে গেরুয়া শিবিরের নেতাদের বসে আলোচনা করে এর ফয়সালা করতে হবে। কিন্তু, সেই আলোচনার প্রাক্কালেও রাজ্য সরকার আবার ছুটেছিল আদালতের দরবারে।

ঔদ্ধত্যের কারণেই বিজেপির শেষের শুরু হয়ে গেছে – পাঁচ রাজ্যের ফল দেখে ‘বিশ্লেষণ’ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

লোকসভা নির্বাচনের আগে অনুষ্ঠিত হওয়া পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে কার্যত ধরাশায়ী বিজেপি। গোবলয়ের ৩ রাজ্য থেকে ক্ষমতা হারাতে হয়েছে গেরুয়া শিবিরকে - যার মধ্যে রয়েছে দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে ক্ষমতায় থাকা দুই রাজ্য - মধ্যপ্রদেশ ও ছত্তিশগড়। এই শক্ত ঘাঁটি থেকে উৎখাত হয়ে একদিকে যেমন হতাশ বিজেপি নেতৃত্ব, অন্যদিকে ঠিক

তিন নতুন রাজ্য হাতে – কিন্তু, কে হচ্ছেন নতুন মুখ্যমন্ত্রী? আজ মহাবৈঠকে কংগ্রেসের হেভিওয়েট শীর্ষনেতারা

বিজেপিকে জোর ধাক্কা দিয়ে মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, ছত্তিশগড়ে ক্ষমতায় আসতে চলেছে কংগ্রেস। মধ্যপ্রদেশের শিবরাজ সিংহ চৌহ্বান, রাজস্থানের বসুন্ধরা রাজে সিন্ধিয়া ও ছত্তিশগড়ের রমন সিং - বিজেপির এই তিন মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ার বদল হতে চলেছে। এই পরিস্থিতিতে রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করে এদিন রাজস্থানের সরকার গঠনের দাবী জানালেন সচীন পাইলট, অশোক গেহলটরা। আর আজ, বেলা

ব্রেকিং নিউজ – রিসার্ভ ব্যাঙ্কের নতুন গভর্নরের নাম ঘোষণা করে দিল কেন্দ্রীয় সরকার

সমস্ত জল্পনা-কল্পনার আবাসন ঘটিয়ে অবশেষে গতকাল আরবিআইএর গভর্নরের পদ থেকে শেষপর্যন্ত ইস্তফাই দেন উৰ্জিত পটেল। এরফলে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের সঙ্গে কেন্দ্রের সংঘাত আরও প্রকট হল বলেই মনে করছিলেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। আর এই ঘটনার ২৪ ঘন্টা কাটতে না কাটতেই আরবিআইএর নতুন গভর্নরের নাম ঘোষণা করে দিল কেন্দ্র সরকার। আরবিআইএর নতুন গভর্নর হিসাবে দায়িত্ত্ব

রাজস্থান বিজেপির হাত থেকে ছিনিয়ে নিয়ে সরকার গড়ছে কংগ্রেস, লক্ষ টাকার প্রশ্ন – মুখ্যমন্ত্রী কে?

৫ রাজ্যের নির্বাচনের দামামা বাজার সঙ্গে সঙ্গেই সাট্টার বাজারে যে প্রশ্নকে ঘিড়ে লক্ষ লক্ষ টাকার বাজি ধরা হয়েছিল - তা হল রাজস্থানের পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রীর নাম কি? অশোক গেহলত নাকি সচিন পাইলট? এই রাজ্যে যে গেরুয়া শিবির ক্ষমতাচ্যুত হতে চলেছে - তা অতি বড় বিজেপি সমর্থকও মনে মনে মেনে নিয়েছিলেন। প্রথমত, দক্ষিণ

সাড়ে ৭ ঘন্টার ভোটগণনার শেষের স্পষ্ট নয় মধ্যপ্রদেশের চিত্র – কোন পথে কে করতে পারে সরকার গঠন?

সকাল ৮ টা থেকে ভোটগণনা শুরু হলেও - এখনও পর্যন্ত মধ্যপ্রদেশের চিত্র পরিষ্কার নয়। কে আসতে চলেছে মধ্যপ্রদেশের কুর্সিতে - সেটাই এখন লক্ষ টাকার প্রশ্ন। ২৩০ আসন বিশিষ্ট এই রাজ্যের বিধানসভাতে স্পষ্ট সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে গেলে দরকার ১১৬ আসন। কিন্তু শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত, মধ্যপ্রদেশে বিজেপি ও কংগ্রেস - উভয় দলের ঝুলিতেই

Top
error: Content is protected !!