এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "বীরভূম"

মন্ডল সভাপতি নির্বাচনের নামে চলছে স্বজনপোষণ! ক্ষোভে ফেটে পড়ছে গেরুয়া শিবিরের অন্দরমহল

বীরভূম তৃণমূলের শক্ত ঘাঁটি বলে পরিচিত। অনুব্রত মণ্ডলের দাপটে এখানে বিরোধীরা কার্যত নিশ্বাস ফেলতে পারেন না। সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে বিভিন্ন জেলায় বিজেপি দাগ কাটলেও বীরভূমে তারা একটি আসনও দখল করতে পারেনি। তবে কিছু বুথে বিজেপির জয় লক্ষ্য করা গেছে। যা নিঃসন্দেহে অনুব্রত মণ্ডলের মত দক্ষ সংগঠকের কাছে অত্যন্ত চিন্তার কারণ।

গেরুয়া ঝড় থামাতে ভরসা সেই অনুব্রত মন্ডলই, আবার বিজেপিতে ভাঙন ধরিয়ে স্বস্তি দিলেন নেত্রীকে

লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের ভরাডুবি এবং বিজেপির উত্থান ঘটার পরেই রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় বিজেপি তাদের শক্তি বৃদ্ধি করতে শুরু করেছে। একদা বীরভূম জেলা তৃণমূলের শক্তঘাঁটি বলে পরিচিত হলেও এবং ভোটের ফলাফল প্রকাশে সেই জেলার দুটি লোকসভা আসনে তৃণমূল জিতলেও, বিভিন্ন জায়গায় শাসকদলের পরাজয় বা পিছিয়ে থাকা চোখে পড়ার মত। যা পরবর্তী

সৌমিত্র খাঁয়ের বিজেপিতে যোগদানের রেশ মেলাতে না মেলাতেই দল থেকে বহিস্কৃত আরেক তৃণমূল সাংসদ!

আজ দুপুরের পর থেকেই রাজ্য রাজনীতিতে শোরগোল ফেলে দিয়েছিল যে খবর তা হল - রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের বিষ্ণুপুর লোকসভা কেন্দ্রের বর্তমান সাংসদ সৌমিত্র খাঁ দল ছেড়ে মুকুল রায়ের হাত ধরে বিজেপিতে যোগদান করেন। গতকাল রাতেই নিজের ফেসবুক লাইভে তিনি বিষ্ণুপুরের এসডিপিও সুকমল দাসের বিরুদ্ধে তাঁকে হত্যার চক্রান্ত ও তাঁর

লোকসভা নির্বাচনের আগে আরও বড় দায়িত্ত্ব অনুব্রত মন্ডলের কাঁধে – জানুন বিস্তারিত

রাজ্য রাজনীতিতে কোনো জনপ্রতিনিধি না হয়েও সব সময়েই যিনি খবরের শিরোনামে থাকেন তিনি আর কেউ নন, বীরভূম জেলা তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি অনুব্রত মন্ডল। কিছুদিন আগেও যিনি বিখ্যাত ছিলেন - পুলিশের উপর বোমা মারার নিদান দিয়ে, বা বিরোধীদের গুড়-বাতাসা বা ঢাকের চরাম চরাম বোলের জন্য। পঞ্চায়েত নির্বাচন থেকে অবশ্য উনি বিশেষ

ডিএ, পে-কমিশন, পিআরটি স্কেলের ত্রহস্পর্শ্যে কি এক কোটি ভোট সঙ্কটে চলে গেল শাসকদলের? বাড়ছে জল্পনা

গতকাল বীরভূমের ইলামবাজারের জনসভায় দাঁড়িয়ে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেন - জানুয়ারি মাসেই তিনি রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের বকেয়া ডিএ মিটিয়ে দেবেন। আর এই ঘোষণার পরে স্বাভাবিকভাবেই তীব্রভাবে জল্পনা শুরু হয়ে যায় রাজ্যের সরকারি কর্মচারী, শিক্ষক মহল ও পেনশন প্রাপকদের মধ্যে। কেননা মুখ্যমন্ত্রী 'সব ডিএ' মিটিয়ে দেওয়ার কথা বললেও -

আটকাতে পারল না অনুব্রত মন্ডলের ‘উন্নয়ন মন্ত্র’, বিজেপির ‘ঘরের ছেলে ঘরে’ – জানুন বিস্তারিত

রাজ্য রাজনীতিতে এই মুহূর্তে খবরের শিরোনামে থাকা অন্যতম জেলার নাম বীরভূম - আর তার সৌজন্যে তৃণমূল কংগ্রেসের দাপুটে জেলা সভাপতি অনুব্রত মন্ডল। পঞ্চায়েত নির্বাচনে 'রাস্তায় উন্নয়ন দাঁড় করিয়ে' বা 'মশারির ব্যবস্থা' করে গোটা জেলাকেই কার্যত তৃণমূল কংগ্রেসের দখলে রেখেছিলেন তিনি। তবে, হাতে গোনা যে কয়েকটা জায়গায় নির্বাচন হয়েছিল - সেখানে

অনুব্রত-গড়ে দাঁড়িয়েই দিদির ভাই কেষ্টকে ‘তীব্র আক্রমণ’ বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের

শনিবার গনতন্ত্র বাঁচাও অনুষ্ঠানে রামপুরহাটের রেল ময়দানে হাজির ছিলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। উল্লেখ্য, এদিনই দুপুরে তারাপীঠ থেকে গণতন্ত্র যাত্রা শুরু করার কথা ছিল বিজেপির। কিন্তু, শুক্রবার দুপুরে হাইকোর্টেরর রায়ের উপর স্থগিতাদেশ দেওয়ার পর গেরুয়া শিবিরের তরফে সেই কর্মসূচি আর নেওয়া হয় নি। স্বাভাবিকভাবেই, গণতন্ত্র বাঁচাও যাত্রা নিয়ে যে

রাজ্যে “পরিবর্তনের পরিবর্তন” করার স্বপ্ন দেখানো গেরুয়া শিবির গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে নাজেহাল ও দিশাহীন অনুব্রত-গড়ে

রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে দমাতে মাঠে ময়দানে দলীয় কর্মীদের রাজনৈতিক লড়াইয়ে যখন শামিল হওয়ার নির্দেশ দিচ্ছেন বিজেপির কেন্দ্র এবং রাজ্যের নেতৃত্বরা, ঠিক তখনই জেলায় জেলায় সেই বিজেপির গোষ্ঠী কোন্দলেই তীব্র অস্বস্তি বাড়ছে গেরুয়া শিবিরে। এবার সেই বিজেপির গোষ্ঠী সংঘর্ষে প্রবল উত্তেজনা ছড়াল তৃণমূলের শক্ত ঘাঁটি তথা অনুব্রত মন্ডলের গড় বলে

লোকসভা নির্বাচনেও ‘রাস্তায় বিরোধীদের উন্নয়ন’ দেখতে অনুব্রত মণ্ডলের হাতে রুপো ও বাসের পাচন অনুগামীদের

এতদিন নিজের বক্তব্যে পাচনের কথা বলে বাজিমাত করেছিলেন তিনি। কিন্তু বাস্তবে সেই পাচন জিনিসটা কি তা দেখিনি কেউই। তবে এবারে সেই বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের হাতেই প্রতীকী রুপোর পাচন ও বাসের আসল পাচন তুলে দিলেন তাঁরই দলের অন্যতম কর্মী তথা মুরারই 2 ব্লকের তৃণমূল সভাপতি আফতাবউদ্দিন মল্লিক। সূত্রের খবর,

নিজের পছন্দের লোককে পদে বসাতে ছেঁটে ফেলা হচ্ছে ‘যোগ্যদের’ – জেলাস্তরে উত্তাল বিজেপির অন্দরমহল

একেই বিজেপির রথযাত্রা কর্মসূচি নিয়ে সরগরম রাজ্যরাজনীতি তার উপর চাপ বাড়িয়ে দলের আভ্যন্তরীন কোন্দল প্রকাশ্যে এল বীরভূমে। বিজেপির কিষাণ মোর্চার জেলা সভাপতি পরিবর্তনের প্রতিবাদ জানিয়ে মোর্চার একাধিক পদাধীকারী এবং সদস্য বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেন সিউড়িতে দলের জেলা কার্যালয়ে। সিদ্ধান্ত বদল না হলে এই ৬০ জন নেতা-কর্মী রথযাত্রার পর ফের অনসনের পথে

Top
error: Content is protected !!