এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "বিজেপি রাজ্য সভাপতি"

বিগ ব্রেকিং নিউজ – বাংলা থেকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হচ্ছেন কোন পাঁচ জন? দেখে নিন একনজরে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া এক্সক্লুসিভ - জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে ঠিক হয়ে গেল বাংলা থেকে নরেন্দ্র মোদির দ্বিতীয় মন্ত্রিসভায় স্থান পেতে চলেছেন কারা। বাংলা থেকে এবার বিজেপির পক্ষে রেকর্ড সংখ্যক ১৮ জন সাংসদ দিল্লিতে গেছেন, ফলে স্বাভাবিক নিয়মেই অন্তত ৪ জন মন্ত্রীসভায় ঠাঁই পাবেন বলে মনে করা হচ্ছিল। কিন্তু, বাংলার মত বড়

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় কিভাবে হবে বিজেপির প্রার্থী বাছাই? কারা পেতে পারেন টিকিট জানুন বিস্তারিত

প্রিয় বন্ধু বাংলা এক্সক্লুসিভ - দেখতে দেখতে এসে পড়ল আরেকটা লোকসভা নির্বাচন। এবারের লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস হুঙ্কার দিয়ে রেখেছে রাজ্যের ৪২ টি আসনের মধ্যে ৪২ টিই তাদের চায় - অন্যদিকে, বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহও জানিয়ে রেখেছেন বাংলায় এবারে বিজেপি অন্তত ২২-২৩ টি আসন পেতে চলেছে। অন্যদিকে,

রথযাত্রা নিয়ে কি বলল সুপ্রিম কোর্ট? শেষ হাসি কার? জানুন বিস্তারিত

রাজ্য জুড়ে গেরুয়া ঝড় তোলার জন্য বিজেপি আস্থা রেখেছিল রথযাত্রার উপর। কিন্তু, রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলার অবনতি হতে পারে এই যুক্তিতে কিছুতেই রাজি হয় নি রাজ্য প্রশাসন। ফলে, বিষয়টি গড়ায় আদালত পর্যন্ত - কিন্তু কলকাতা হাইকোর্টেও তার সুষ্ঠু সমাধান না হওয়ায়, মামলা গড়িয়েছিল সুপ্রিম কোর্টে। বিজেপির রথযাত্রা নিয়ে আজ সুপ্রিম কোর্টের শুনানিতে বড়সড়

দিলীপ ঘোষের তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদানের সম্ভবনা নিয়ে মুখ খুললেন হেভিওয়েট তৃণমূল কংগ্রেস নেতা

রাজ্য রাজনীতি আপাতত তুলকালাম প্রবল প্রতিপক্ষ তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বোচ্চ নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের প্রধানমন্ত্রীর আসনে দেখার বাসনা নিয়ে সাংবাদিক বৈঠক। গত ৫ ই জানুয়ারী মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্মদিনে তাঁকে শুভেচ্ছা জানাতে গিয়ে দিলীপবাবু একেবারে তাঁকে প্রধানমন্ত্রীর কুর্শিতেই বসিয়ে দেন! দিলীপবাবু সাংবাদিক বৈঠকে বলেন, বাংলার যদি কারও প্রধানমন্ত্রী

পিআরটি স্কেলের দাবিতে শিক্ষকদের মহামিছিল, বিধানসভা অভিযান করে পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার ও পরে মুক্ত

আজ শিক্ষকদের মহামিছিলের ফলে ফের উত্তাল হল কলকাতার রাজপথ। বিজেপি শিক্ষক সেলের পক্ষ থেকে, বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের নেতৃত্বে কলকাতায় মহম্মদ আলি পার্ক থেকে ওয়াই চ্যানেল পর্যন্ত শিক্ষার পরিকাঠামো উন্নয়নে এবং শিক্ষকদের বঞ্চনার অবসানে এক মহামিছিল অনুষ্ঠিত হয়। প্রায় পাঁচ হাজার শিক্ষক আজকের মিছিলে দিলীপ বাবুর সঙ্গে পা মেলান

‘বাঙালি প্রধানমন্ত্রী’ নিয়ে ২৪ ঘন্টার মধ্যেই নতুন ব্যাখ্যা দিলেন দিলীপ ঘোষ – জানুন বিস্তারিত

গতকাল সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ সবাইকে অবাক করে দিয়ে হঠাৎ করে বলে ওঠেন, বাংলার যদি কারও প্রধানমন্ত্রী হওয়ার সম্ভাবনা থাকে, তাহলে তাঁর নাম মমতা ব্যানার্জি - এজন্য তাঁর সুস্থ থাকা প্রয়োজন। প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে সকলের প্রথমে তাঁর নাম আছে! আমি তাঁর (মমতার) সুস্থ শরীর

কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে বড়সড় বিড়ম্বনায় বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ – জানুন বিস্তারিত

রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের আক্রমণের নিশানায় এখন সবার উপরে যে দুটি নাম তা হল মুকুল রায় ও দিলীপ ঘোষ। এমনকি, দিলীপবাবুকে নিয়ে ক্ষোভ দলেরই একাংশের মধ্যে। কেননা, বিভিন্ন জনসভায় গিয়ে দিলীপবাবু যেসব আক্রমণাত্মক কথা বলেন তা নাকি বিজেপির ভাবমূর্তি নষ্ট করছে বলে দলের ওই অংশের অভিযোগ। এরই মধ্যে দলের প্রাক্তনী তথা

পিআরটি স্কেল ও অন্যান্য দাবিতে দিলীপ ঘোষের নেতৃত্ত্বে কলকাতার রাজপথে ঝড় তুলতে চলেছে বিজেপি শিক্ষক সেল

পশ্চিমবঙ্গের সমগ্র শিক্ষক সমাজ বর্তমান সরকারের শিক্ষার পরিকাঠামো ও বেতন বঞ্চনার বিরুদ্ধে ক্ষোভে ফুঁসছে। শিক্ষার হাল ফেরাতে ও শিক্ষকদের বেতন বঞ্চনার অবসান ঘটাতে সবসময় শিক্ষক সমাজের পাশে আছেন - এই বার্তা দিলেন পশ্চিমবঙ্গের প্রধান বিরোধী দল বিজেপি-র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। দিলীপবাবুর নির্দেশে নতুন বছরের শুরুতেই পথে নামছে ভারতীয় জনতা

বিজেপির রাজ্য সভাপতি পদ নিয়ে বড়সড় সিদ্ধান্ত, ঘোষণা হতে পারে যে কোন সময়

মাস কয়েক আগে হঠাৎই রাজ্য রাজনীতিতে জল্পনা ছড়িয়ে পরে বিজেপির রাজ্য সভাপতি পদে বদল নিয়ে। যদিও সেই সময় দিল্লিতে এক বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় - যেহেতু সামনেই লোকসভা নির্বাচন তাই, সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের মেয়াদ আরও এক বছর বৃদ্ধি করা হল। কিন্তু, সেই বৈঠকে রাজ্য সভাপতিদের নিয়ে সুস্পষ্ট করে কিছু জানান

রাজ্য অফিসে মুকুল রায়ের বরাদ্দ ঘর দেওয়া হল তরুণ নেতাকে! জানুন পিছনের আসল সত্যিটা

রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস ত্যাগ করে বিজেপিতে যোগদান করলেও দীর্ঘদিন কোন পদ পান নি মুকুল রায় - আর এই নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থকদের 'উল্লাস' ছিল চোখে পড়ার মত। কিন্তু, মুকুলবাবু কোনও পদ না পেয়েও দলের একজন সাধারণ কর্মী হিসাবে থাকলেও - বিজেপির রাজ্য সদর দপ্তরে তাঁর জন্য বরাদ্দ হয়েছিল একটি

Top
error: Content is protected !!