এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "বিজেপি নেতা"

লাভপুরে বিজেপি নেতার কন্যা অপহরণ কাণ্ডে এবার বিস্ফোরক অভিযোগে সরব হলেন বিজেপি সভাপতি

লাভপুরের বিজেপি নেতার অপহৃত কন্যা প্রথমা বটব্যালকে খুঁজে পাওয়া গেলেও তাঁর অপহরণ কাণ্ড নিয়ে রাজনীতি করা ছাড়ছে না তৃণমূল-বিজেপি। আর এই রাজনীতির প্রেক্ষিতকে উস্কে দিয়েছে অপহরণ কাণ্ডে অপহৃতার বাবা অর্থাৎ বিজেপি নেতা সুপ্রভাত বটব্যালের গ্রেফতারির খবর। গতকালই নদীয়ায় দাঁড়িয়ে বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল বলেছিলেন, "এটা পুরোপুরি পরিকল্পিত ঘটনা।

শীর্ষ নেতৃত্ব চাইলে এক মুহূর্তেই রাজ্য সরকার বদলে দিতে পারেন বলে বড়সড় দাবি কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র

সম্প্রতি হয়ে যাওয়া পাঁচ রাজ্যের নির্বাচনে - গো-বলয়ের তিন রাজ্য থেকে ক্ষমতাচ্যুত হয়েছে বিজেপি। গেরুয়া শিবিরের কাছে ছত্তিশগড়ের ফলাফল হতাশাজনক হলেও, গো-বলয়ের বাকি দুই রাজ্য মধ্যপ্রদেশ ও রাজস্থানে কংগ্রেসের সঙ্গে সমানে সমানে টক্কর দিয়েছে বিজেপি। কিন্তু, কড়া টক্কর দিলেও গেরুয়া শিবিরকে বসতে হয়েছে বিরোধী আসনেই। রাজস্থানে অশোক গেহলতের পাশাপাশি মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী

বিজেপিতে যোগ দিয়েই বড় প্রাপ্তি প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ সৌমিত্র খাঁর – জানুন বিস্তারিত

রাজ্য রাজনীতিতে এখন খবরের শিরোনামে তৃণমূল কংগ্রেসের বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। কিছুদিন আগেই খবরে প্রকাশিত হয় - তৃণমূল ত্যাগী বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রাখার কারণে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে আর তিনি তৃণমূল কংগ্রেসের টিকিট পাচ্ছেন না - আর তাই তিনি নাকি বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন। এই ব্যাপারে মুকুলবাবুর সঙ্গে

আর বারাণসী নয় – প্রধানমন্ত্রী নতুন কেন্দ্র থেকে নির্বাচনে লড়বেন? জল্পনা বাড়ালেন বিজেপি নেতা

২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে তৎকালীন বিজেপির প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী নরেন্দ্র মোদী এক সাথে দুটি কেন্দ্র থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সিদ্ধান্ত নেন। গুজরাটের ভদোদরা ও উত্তরপ্রদেশের বারাণসী। দুটি কেন্দ্র থেকেই বিপুল ভোটে জয়ী হওয়ার পর - বারাণসী কেন্দ্রটি নিজের জন্য রেখে ভদোদরা কেন্দ্রটি তিনি ছেড়ে দেন। কিন্তু আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে এই দুটি কেন্দ্রের একটিও

মমতাদেবী, আপনার কুকীর্তির কথা মানুষ জানতে পারলে আপনাকে আস্তাকুঁড়ে ছুড়ে ফেলে দেবে: মুকুল রায়

আজ ব্যারাকপুরে বিজেপি নেতা মুকুল রায় রেল স্টেশন সংলগ্ন মঞ্চে বিজেপির গণতন্ত্র বাঁচাও সমাবেশ কর্মসূচি উপলক্ষে উপস্থিত হয়ে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস ও তৃণমূল কংগ্রেসের শীর্ষনেতাদের তীব্র আক্রমন করেন। মুকুলবাবু বলেন, বিজেপির তরফ থেকে ২৯ শে অক্টোবর থেকে রাজ্য সরকারকে বারবার জানানো হয়েছে এই রথযাত্রা উপলক্ষে তাঁরা রাজ্য সরকারের সঙ্গে

টার্গেট বাংলা – এবার বাংলা জুড়ে গেরুয়া-ঝড় তুলতে রথযাত্রার বিকল্প একের পর এক নতুন পরিকল্পনা

দীর্ঘদিন ধরেই এই বাংলাকে পাখির চোখ করেছে বিজেপি কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। কিন্তু রাজ্যের রাজনৈতিক মাটি শক্ত না হওয়ার কারণে সেই বাংলা দখলে এখনও সেভাবে কোনো অগ্রগতি হয় নি বলে দলের অন্দরেই ফিসফাস। আর তাই, সম্প্রতি সারা রাজ্যে "গণতন্ত্র বাঁচাও" নামক এক কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে রথযাত্রা বের করে সেই রাজ্যের শাসক দল

দিনভর অপেক্ষার পর অবশেষে এল রথযাত্রা নিয়ে রাজ্য সরকারের সিদ্ধান্ত – কি হল, জানুন বিস্তারিত

বিজেপির 'গণতন্ত্র বাঁচাও' যাত্রার নামে রথযাত্রায় অনুমতি দেয় নি রাজ্য প্রশাসন - আর তার পরিপ্রেক্ষিতে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করে রাজ্য বিজেপি। সেই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে আদালতের নির্দেশ - রাজ্য প্রশাসনের সঙ্গে বসে বিজেপি নেতাদের বৈঠকের ভিত্তিতে এই নিয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নিতে হবে। সেই বৈঠক নিয়েও একপ্রস্থ টালবাহানা শেষে লালবাজারে হয় বৈঠক। এরপর,

সাড়ে ৭ ঘন্টার ভোটগণনার শেষের স্পষ্ট নয় মধ্যপ্রদেশের চিত্র – কোন পথে কে করতে পারে সরকার গঠন?

সকাল ৮ টা থেকে ভোটগণনা শুরু হলেও - এখনও পর্যন্ত মধ্যপ্রদেশের চিত্র পরিষ্কার নয়। কে আসতে চলেছে মধ্যপ্রদেশের কুর্সিতে - সেটাই এখন লক্ষ টাকার প্রশ্ন। ২৩০ আসন বিশিষ্ট এই রাজ্যের বিধানসভাতে স্পষ্ট সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে গেলে দরকার ১১৬ আসন। কিন্তু শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত, মধ্যপ্রদেশে বিজেপি ও কংগ্রেস - উভয় দলের ঝুলিতেই

Top
error: Content is protected !!