এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "বিজেপিতে যোগ"

এবার কি বিজেপিতে যোগ দিতে চলেছেন নবনীত কৌর রানা? অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক ঘিরে জল্পনা

লোকসভা নির্বাচনে নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহের নেতৃত্বকে মান্যতা দিয়ে গোটা দেশ দুহাত ভোরে আশীর্বাদ করেছে বিজেপিকে। ফলে দ্বিতীয়বারের জন্য প্রধানমন্ত্রীর কুর্সিতে পুনরায় বসেছেন নরেন্দ্র মোদী, কেননা একক দল হিসাবে বিজেপি ৩০০-এরও বেশি আসন জিতে নিয়ে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে গেছে। কিন্তু, এরপরেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে বিরোধী দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদানের ধুম পরে গেছে।

গ্রেপ্তার হবেন অর্জুন সিং? ভাটপাড়ায় তৃণমূলের পরিষদীয় দলের দাবি ঘিরে তীব্র জল্পনা রাজ্যজুড়ে

লোকসভা নির্বাচনের আগে থেকেই খবরের শিরোনামে ভাটপাড়া তথা ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চল। সাংসদ হওয়ার মনোস্কামনা নিয়ে ভাটপাড়ার বিধায়ক অর্জুন সিং তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে গেলে তিনি তাঁকে নিরাশ করেন। আর এরপরেই অর্জুনবাবু বিজেপিতে যোগ দিয়ে গেরুয়া শিবিরের টিকিটে লোকসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সিদ্ধান্ত নেন। ব্যারাকপুরের হেভিওয়েট তৃণমূল সাংসদ দীনেশ ত্রিবেদীকে পরাভূত করে

বিজেপির ‘অফার’ ছিল, পছন্দ হয় নি! দাবি তুলে শোরগোল ফেলে দিলেন প্রাক্তন বিধায়ক

লোকসভা নির্বাচনে এবার রাজ্যে বিজেপির প্রবল উত্থান লক্ষ্য করা গেছে। গত ২০১৪ সালে তারা দুটি আসন পেলেও এবার তাদের দখলে এসেছে প্রায় ১৮ টি আসন। আর নির্বাচনে এই সাফল্যের পরই বাংলায় বিভিন্ন দল থেকে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা পদ্ম শিবিরে যোগ দিতে শুরু করেন। যার জেরে নিজেদের শক্তি দিনকে দিন বৃদ্ধি হতে

এক নারীচরিত্রের ‘আগমন’ ঘিরে শুরু বিতর্ক! কলকাতা পুরসভার গেরুয়াকরনে নয়া মোড়?

গতকালই এক প্রতিবেদনে আমরা জানিয়েছিলাম, আমাদের গোপন সূত্রের খবর অনুযায়ী এবার রাজনৈতিক মহলকে চমকে দিয়ে কলকাতা পুরসভার দখল নিতে চলেছে বিজেপি। কলকাতা পুরসভার ৬৬ জন কাউন্সিলর, এক বিধায়কের নেতৃত্বে এই সপ্তাহেই দিল্লি গিয়ে বিজেপিতে যোগ দিতে চলেছেন। ১৪৪ আসন বিশিষ্ট কলকাতা পুরসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে দরকার ৭৩ কাউন্সিলরের সমর্থন। গত পুর-নির্বাচনে

বিগ ব্রেকিং নিউজ – এই সপ্তাহের মধ্যেই কলকাতা পুরসভার দখল নিতে চলেছে বিজেপি?

লোকসভা নির্বাচনের পরেই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে নাম লেখানোর ধুম পরে গেছে গোটা রাজ্য জুড়ে। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের একাধিক বিধায়ক তৃণমূল, বামফ্রন্ট বা কংগ্রেস ছেড়ে যোগ দিচ্ছেন বিজেপিতে। সেই বিধায়কদের সঙ্গে গেরুয়া শিবিরে যোগ দিচ্ছেন একাধিক কাউন্সিলরও - ফলে ইতিমধ্যেই বেশ কিছু পুরসভার দখল নিয়েছে বিজেপি। আজ দক্ষিণ দিনাজপুর থেকে প্রাক্তন তৃণমূল

বঙ্গ বিজেপির নবাগতরা কি আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে টিকিট পাবেন? পেলেও কে কোন আসন থেকে পেতে পারেন?

একদা রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের অঘোষিত দুনম্বর নেতা মুকুল রায় দলত্যাগ করে বিজেপিতে যোগদান করেন। আর গেরুয়া শিবিরে পদার্পন করেই তিনি হুঙ্কার ছেড়েছিলেন, তৃণমূল কংগ্রেসের সংগঠন আদতে নাকি উইয়ের বাসা! সময় এলেই দেখা যাবে তা ঝুরঝুর করে ভেঙে পড়ছে! যদিও মুকুল রায়ের সেই হুঙ্কারে কোনো রকম পাত্তা দেয় নি তৃণমূল

লাভপুরে বিজেপি নেতার কন্যা অপহরণ কাণ্ডে এবার বিস্ফোরক অভিযোগে সরব হলেন বিজেপি সভাপতি

লাভপুরের বিজেপি নেতার অপহৃত কন্যা প্রথমা বটব্যালকে খুঁজে পাওয়া গেলেও তাঁর অপহরণ কাণ্ড নিয়ে রাজনীতি করা ছাড়ছে না তৃণমূল-বিজেপি। আর এই রাজনীতির প্রেক্ষিতকে উস্কে দিয়েছে অপহরণ কাণ্ডে অপহৃতার বাবা অর্থাৎ বিজেপি নেতা সুপ্রভাত বটব্যালের গ্রেফতারির খবর। গতকালই নদীয়ায় দাঁড়িয়ে বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল বলেছিলেন, "এটা পুরোপুরি পরিকল্পিত ঘটনা।

১৯ তারিখ তো পেরিয়ে গেল! আদৌ কি পড়বে তৃণমূলের উইকেট? কি বলছে গেরুয়া শিবির?

রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস আগেই ঘোষণা করেছিল যে ২০১৯ সালের জানুয়ারী মাস পড়লেই কলকাতার ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ডে এক বিশাল জনসমাবেশ করবে। যেখানে, সারা ভারতের সমস্ত বিজেপি বিরোধী শক্তি এক জায়গায় হয়ে আওয়াজ তুলবে - দুহাজার উনিশ, বিজেপি ফিনিশ! আর এরই পরিপ্রেক্ষিতে কিছুদিন আগে জল্পনা রটে, একদিকে যখন ১৯ শে জানুয়ারী

তিন ধাক্কায় বেসামাল গেরুয়া শিবির কি ১৯-এর ‘মহাচমক’ থেকে পিছু হঠছে? জল্পনা চরমে

আগামী ১৯ শে জানুয়ারী কলকাতার ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ডে মহাসমাবেশ করতে চলেছে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। সেই সমাবেশে রেকর্ড জমায়েতের পাশাপাশি - কেন্দ্র থেকে বিজেপি সরকারকে হঠাতে মরিয়া একঝাঁক আঞ্চলিক ও জাতীয় দলের শীর্ষনেতারাও হাজির থাকতে চলেছেন। তৃণমূল শিবিরের দাবি, এই সমাবেশ থেকেই 'প্ৰথম বাঙালি প্রধানমন্ত্রী' হিসাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামে সিলমোহর

বিজেপিতে যোগদান নিয়ে মুখ খুলে এবার চমকে দিলেন দীনেশ ত্রিবেদী

কিছুদিন আগেই তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বোচ্চ নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও দলের অঘোষিত দুনম্বর নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে একরাশ ক্ষোভ উগরে দিয়ে দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। সেদিনই সৌমিত্র খাঁয়ের পাশাপাশি তৃণমূল কংগ্রেস মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় বোলপুরের সাংসদ অনুপম হাজরাকেও দল থেকে বহিষ্কারের কথা ঘোষণা করেন। এরপর থেকেই জল্পনা

Top
error: Content is protected !!