এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "বাংলায় বিজেপির উত্থান"

রেজ্জাক-পুত্রের পর এবার আরেক হেভিওয়েট-পুত্রের ‘কাটমানি’ কাণ্ডে তীব্র অস্বস্তিতে তৃণমূল

বাংলায় বিজেপির তীব্র উত্থানের পর তৃণমূল কংগ্রেস নিজের ভুলত্রুটি নিয়ে আলোচনায় বসে সিদ্ধান্তে আসে স্থানীয় স্তরে নেতাদের দুর্নীতি - এই ভরাডুবির অন্যতম বড় কারণ। মুখ্যমন্ত্রীর একের পর এক প্রকল্প যা সাধারণ মানুষকে বড়সড় সুবিধা দিতে পারত, সেখানে তৃণমূল নেতারা মাঝখান থেকে 'কাটমানি' নেওয়ায়, সাধারণ মানুষ নাকি যথাযথ পরিষেবা পান নি।

গেরুয়া ঝড় থামাতে ভরসা সেই অনুব্রত মন্ডলই, আবার বিজেপিতে ভাঙন ধরিয়ে স্বস্তি দিলেন নেত্রীকে

লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের ভরাডুবি এবং বিজেপির উত্থান ঘটার পরেই রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় বিজেপি তাদের শক্তি বৃদ্ধি করতে শুরু করেছে। একদা বীরভূম জেলা তৃণমূলের শক্তঘাঁটি বলে পরিচিত হলেও এবং ভোটের ফলাফল প্রকাশে সেই জেলার দুটি লোকসভা আসনে তৃণমূল জিতলেও, বিভিন্ন জায়গায় শাসকদলের পরাজয় বা পিছিয়ে থাকা চোখে পড়ার মত। যা পরবর্তী

বিজেপির ‘অফার’ ছিল, পছন্দ হয় নি! দাবি তুলে শোরগোল ফেলে দিলেন প্রাক্তন বিধায়ক

লোকসভা নির্বাচনে এবার রাজ্যে বিজেপির প্রবল উত্থান লক্ষ্য করা গেছে। গত ২০১৪ সালে তারা দুটি আসন পেলেও এবার তাদের দখলে এসেছে প্রায় ১৮ টি আসন। আর নির্বাচনে এই সাফল্যের পরই বাংলায় বিভিন্ন দল থেকে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা পদ্ম শিবিরে যোগ দিতে শুরু করেন। যার জেরে নিজেদের শক্তি দিনকে দিন বৃদ্ধি হতে

তৃণমূলের ‘প্যাঁচে’ তৃণমূলেরই ‘ঘুম ওড়াতে’ দিল্লিতে বড়সড় পরিকল্পনায় মুকুল রায় – জানুন বিস্তারিত

রাজ্য রাজনীতিতে ইদানিং দুটি কথা খুব জনপ্রিয় হয়ে গেছে। এক - রাস্তায় দাঁড়িয়ে আছে উন্নয়ন আর দুই, বাংলায় গণতন্ত্র নেই! বিগত পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগেই তৃণমূল কংগ্রেসের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মন্ডল প্রথম 'রাস্তায় উন্নয়ন দাঁড়ানোর' তত্ত্ব বলেন। যা নিয়ে কম বিতর্ক হয় নি সেই সময়! অনুব্রতবাবু নিজের ব্যাখ্যায় জানিয়েছিলেন -

আরামবাগে হেভিওয়েট সংখ্যালঘু তৃণমূল নেতাকে পিটিয়ে খুন, অভিযুক্ত যুবরা, এলাকা ছাড়া হতেই পার্টি অফিসের দখল মাদারের

বিভিন্ন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বারবারই বলে আসছেন যে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের কাছে যত না বিজেপির উত্থান চিন্তার, তার থেকেও বেশি মাথা ব্যাথা হতে চলেছে নিজেদের গোষ্ঠীকোন্দল সামাল দেওয়া। আর এই নিয়ে দলের অন্যান্য শীর্ষনেতাদের পাশাপাশি প্রকাশ্যে বার্তা দিয়েছেন স্বয়ং দলের সর্বোচ্চনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু, সেই গোষ্ঠীকোন্দল থামা

Top
error: Content is protected !!