এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "পে কমিশন"

আবার বাড়তে চলেছে পশ্চিমবঙ্গের বিধায়কদের বেতন, ক্ষোভ সরকারি কর্মী ও শিক্ষকমহলে

রাজ্যে যখন বাম শাসন ছিল, তখন প্রধান বিরোধী নেত্রী হিসাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ডিএ নিয়ে সরকারি কর্মীদের আন্দোলনে গিয়ে বলেছিলেন, যে সরকার সরকারি কর্মীদের প্রাপ্য দিতে পারে না, তাদের অধিকার নেই এক মুহূর্তও ক্ষমতায় থাকার। রাজ্য সরকারি কর্মীরা ও শিক্ষকরা, এর পরে অনেক আশা নিয়ে দুহাত ভরে তাঁকে সমর্থন জানিয়েছিলেন ২০১১

১৯ তারিখ তো পেরিয়ে গেল! আদৌ কি পড়বে তৃণমূলের উইকেট? কি বলছে গেরুয়া শিবির?

রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস আগেই ঘোষণা করেছিল যে ২০১৯ সালের জানুয়ারী মাস পড়লেই কলকাতার ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ডে এক বিশাল জনসমাবেশ করবে। যেখানে, সারা ভারতের সমস্ত বিজেপি বিরোধী শক্তি এক জায়গায় হয়ে আওয়াজ তুলবে - দুহাজার উনিশ, বিজেপি ফিনিশ! আর এরই পরিপ্রেক্ষিতে কিছুদিন আগে জল্পনা রটে, একদিকে যখন ১৯ শে জানুয়ারী

ডিএ, পে-কমিশন, পিআরটি স্কেলের ত্রহস্পর্শ্যে কি এক কোটি ভোট সঙ্কটে চলে গেল শাসকদলের? বাড়ছে জল্পনা

গতকাল বীরভূমের ইলামবাজারের জনসভায় দাঁড়িয়ে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেন - জানুয়ারি মাসেই তিনি রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের বকেয়া ডিএ মিটিয়ে দেবেন। আর এই ঘোষণার পরে স্বাভাবিকভাবেই তীব্রভাবে জল্পনা শুরু হয়ে যায় রাজ্যের সরকারি কর্মচারী, শিক্ষক মহল ও পেনশন প্রাপকদের মধ্যে। কেননা মুখ্যমন্ত্রী 'সব ডিএ' মিটিয়ে দেওয়ার কথা বললেও -

আজ ধর্মতলায় দিলীপ ঘোষের হাত ধরে মিলে যেতে চলেছে সরকারি কর্মচারী ও শিক্ষক আন্দোলন – জানুন বিস্তারিত

যত দিন যাচ্ছে ততই রাজ্য সরকারের 'বঞ্চনা' নিয়ে ক্ষোভ তীব্রতর হচ্ছে রাজ্যের লক্ষ লক্ষ সরকারি কর্মচারী ও শিক্ষকদের মধ্যে। একেই দীর্ঘদিন ধরে বকেয়া ডিএর পরিমান বাড়তে বাড়তে আকাশ ছুঁয়েছে - তার উপরে পে কমিশন নিয়ে রাজ্য সরকারের দীর্ঘসূত্রিতা ভেঙে দিয়েছে অতীতের সব রেকর্ড। এই অবস্থায় আজ ধর্মতলায় বিজেপি রাজ্য সভাপতি

হাইকোর্টে ডিএ মামলার রিভিউ পিটিশন – কি দাঁড়াল আজকের শুনানির শেষে? জেনে নিন বিস্তারিত

ডিএ নিয়ে স্যাটের মামলায় নথি জমা দেওয়ার জন্য রাজ্য সরকারকে অতিরিক্ত সময় দেওয়া হবে কিনা সেই নিয়ে রাজ্য সরকারের করা রিভিউ পিটিশনের শুনানি ছিল আজ কলকাতা হাইকোর্টে। সেই মামলার শুনানি এইমাত্র শেষ হল। এই মামলার অন্যতম মামলাকারীর সঙ্গে টেলিফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি এই নিয়ে বিস্তারিত জানালেন আমাদের। তাঁর কথামত, আজ

আজ ডিএ মামলায় রাজ্য সরকারের রিভিউ পিটিশনের শুনানি কলকাতা হাইকোর্টে, আশা-আশঙ্কার দোলাচলে সরকারি কর্মীরা

দীর্ঘ আইনি লড়াইয়ের পর কলকাতা হাইকোর্ট এক ঐতিহাসিক রায়ে জানিয়ে দেয় ডিএ - রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের সাংবিধানিক অধিকারের মধ্যে পরে। কোনোমতেই তা 'দয়ার দান' নয়। কিন্তু, সেই ডিএর হার কি হবে বা তা বছরে কবার করে দেওয়া হবে সেই সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য কলকাতা হাইকোর্ট স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইবুন্যাল বা স্যাটকে

শিক্ষক আন্দোলনের বড় সাফল্য – শিক্ষকের ঐক্যের কাছে পিছু হটে অবশেষে অনুমোদিত এই ফান্ড – জানুন বিস্তারিত

যত দিন যাচ্ছে ততই যেন সুসংহত অথচ দৃঢ় প্রত্যয়ী পথে রাজ্য-রাজনীতিকে আন্দোলনের পথ দেখাচ্ছেন রাজ্যের শিক্ষকরা। দীর্ঘদিন ধরে বকেয়া বিপুল পরিমান ডিএ, পে কমিশনও নজিরবিহীনভাবে দীর্ঘসূত্রিতার রেকর্ড ভেঙে সাড়ে তিন বছরের মেয়াদের দিকে এগোচ্ছে। এদিকে, রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকদের যোগ্যতা চার বছরের বাড়াতে বাধ্য করে কেন্দ্রের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ করিয়ে নিলেও দেখা

‘চাঁদার জুলুম’ শিক্ষামন্ত্রী জানেন না! তবুও সরকারি ছাপানো প্যাডে শিক্ষকদের কাছ থেকে ‘স্পোর্টসের চাঁদার’ নির্দেশিকা!

একে দেখা নেই বকেয়া ডিএ বা পে-কমিশনের - তার উপরে চার বছরের যোগ্যতা বাড়াতে বাধ্য করেও সরকার গায়ে 'অযোগ্য' লেবেল সেঁটে পিআরটি স্কেল দিতে চাইছে না রাজ্য সরকার - আর তাই অভিনব প্রতিবাদ হিসাবে রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকরা এ বছর ক্রীড়ার চাঁদা বয়কটের পথে হাঁটেন। দিনের পর দিন রাজ্যের স্কুল-ক্রীড়া চলে আসছে

বেদনাতুর দীর্ঘ যন্ত্রনা থেকে মুক্তি পেতে এবার রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত লড়াইয়ের পথে রাজ্যের হাজার হাজার শিক্ষাবন্ধু

যতদিন যাচ্ছে ততই যেন রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উপচে পড়ছে রাজ্যের সরকারি ও সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত কর্মীদের মধ্যে। এতদিন রাজ্য সরকারকে অস্বস্তিতে ফেলে বড়সড় আন্দোলনের পথে হেঁটেছিলেন রাজ্য সরকারি কর্মচারী ও রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকরা। আর এবার রাজ্য সরকারের অস্বস্তি বহুগুন বাড়িয়ে তীব্র আন্দোলনের পথে রাজ্যের হাজার হাজার শিক্ষাবন্ধুরা। আজ ও আগামীকাল -

Top
error: Content is protected !!