এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "ডিভিশন বেঞ্চ"

কি হলো স্যাটে আজ বহু প্রতীক্ষিত ডিএ মামলায়? জেনে নিন বিস্তারিত

আমরা আজ সকালেই জানিয়েছিলাম - যে রাজ্যের লক্ষ লক্ষ সরকারি কর্মচারী, শিক্ষক ও সরকারি অনুদান প্রাপ্ত কর্মীরা অদম্য কৌতূহল নিয়ে তাকিয়ে আছেন কি করেন স্যাটের বিচারপতিরা - সেদিকেই। সেই রিপোর্টেই আজকের সাম্ভাব্য ফলাফল নিয়ে জানিয়েছিলাম দুটি সম্ভাবনার কথা। প্রথমত, গত ৩১ শে আগস্ট কলকাতা হাইকোর্ট যে ঐতিহাসিক রায়ে জানিয়ে দিয়েছিল যে

বঞ্চনার ডিএর ‘রাহুমুক্তি’ কি আজই? আশায় বুক বাঁধছেন লক্ষ লক্ষ রাজ্য সরকারি কর্মচারী ও শিক্ষকরা

প্রশ্ন বলুন বা আইনের মারপ্যাঁচ - আজ মূলত দুটি বিষয়ের উপরেই হতে চলেছে বহু প্রতীক্ষিত ও বহু চর্চিত রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের ডিএ মামলায়। আজ দুপুর আড়াইটার সময় স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইবুন্যাল বা স্যাটে - অবশেষে শুরু হচ্ছে এই মামলার ফাইনাল কাউন্টডাউন। রাজ্যের লক্ষ লক্ষ সরকারি কর্মচারী, শিক্ষক ও সরকারি অনুদান প্রাপ্ত কর্মীরা

কলকাতা হাইকোর্টে আজ হলোই না মামলার শুনানি, ডিএ মামলার ভবিষ্যৎ কোন পথে? জেনে নিন বিস্তারিত

রাজ্যের লক্ষ লক্ষ সরকারি কর্মচারী, শিক্ষক ও সরকারি অনুদান প্রাপ্ত কর্মীদের চোখ আজ কলকাতা হাইকোর্টের দিকে থাকলেও - বহু প্রতীক্ষিত ডিএ মামলার শুনানি আজ হলোই না সেখানে। সবথেকে, বড় কথা, কবে হবে সেই শুনানি তা নিয়েও কোন স্পষ্ট দিশা নেই। রাজ্য সরকারি আইনজীবীরা, কলকাতা হাইকোর্টে 'টেকনিক্যালি ভুল' রিভিউ পিটিশন জমা

ডিএ মামলার রায় আগামীকালই? নাকি বিশ বাঁও জলে? চরম ফয়সালা আজ কলকাতা হাইকোর্টে

রাজ্যের লক্ষ লক্ষ সরকারি কর্মচারী, শিক্ষক ও সরকারি অনুদান প্রাপ্ত কর্মীদের চোখ আজ থাকবে কলকাতা হাইকোর্টে দিকে। কেননা, সেখানেই আজ নির্ধারিত হতে চলেছে ডিএ মামলার ভবিষ্যৎ। প্রধান বিচারপতি দেবাশিস করগুপ্ত ও বিচারপতি শেখর ববি শরাফের ডিভিশন বেঞ্চ আজ সিদ্ধান্ত নেবে - ডিএ মামলার রায় আগামীকালই নির্ধারিত হয়ে যাবে নাকি তা

কলকাতা হাইকোর্টে ডিএ মামলা – জমা পড়ল রাজ্য সরকারের আবেদন, জানুন বিস্তারিত

দীর্ঘ আইনি লড়াইয়ের পর কলকাতা হাইকোর্ট এক ঐতিহাসিক রায়ে জানিয়ে দেয় ডিএ - রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের সাংবিধানিক অধিকারের মধ্যে পরে। কোনোমতেই তা 'দয়ার দান' নয়। কিন্তু, সেই ডিএর হার কি হবে বা তা বছরে কবার করে দেওয়া হবে সেই সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য কলকাতা হাইকোর্ট স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইবুন্যাল বা স্যাটকে

আদালতে গিয়েও আটকানো গেল না মুকুল রায়দের, অবশেষে এই পদক্ষেপ রাজ্য প্রশাসনের

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগেই বাংলায় দলীয় সংগঠনের শ্রীবৃদ্ধি করতে রাজ্যে রথযাত্রার পরিকল্পনা নিয়েছিলেন গেরুয়া শিবির। কিন্তু বিজেপির এই রথযাত্রার ভবিষ্যৎ আদালতের দরজায় যাওয়ায় তা নিয়ে তৈরি হয়েছে প্রবল অনিশ্চয়তা। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবারই রাজ্যের নিরাপত্তার কারণে বিজেপির এই রথযাত্রা কর্মসূচিতে স্থগিতাদেশ জারি করেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি তপোব্রত চক্রবর্তীর সিঙ্গল বেঞ্চ। যার

পাঁচ রাজ্যের ভোটগণনার মাঝেই তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে বড় জয় ছিনিয়ে নিলেন গেরুয়া শিবিরের হেভিওয়েট নেতা

রাজ্যজুড়ে বিজেপির রথযাত্রা তথা 'গণতন্ত্র বাঁচাও' যাত্রা আপাতত গড়িয়েছে আদালতে। আদালতের রায়ে, এই নিয়ে বিজেপি নেতৃত্ত্বের সঙ্গে রাজ্য প্রশাসনকে বসে আলোচনা করে এর ভবিষ্যৎ নির্নয় করতে হবে। আর তাই. বিজেপি নেতৃত্ত্বের তরফে মুকুল রায় ও জয়প্রকাশ মজুমদার পৌঁছে গিয়েছিলেন নবান্নের দোরগোড়ায়। কিন্তু, বিজেপি শিবিরের এই দুই শীর্ষনেতার বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা আছে

সুপ্রিম কোর্টে ক্যাভিয়েট থেকে নবান্নের শীর্ষকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক – রথ নিয়ে একের পর এক সদর্থক পদক্ষেপ গেরুয়া শিবিরের

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে এই বাংলাকে পাখির চোখ করা বিজেপি নেতৃত্ব প্রথম থেকেই রথযাত্রার মধ্যে দিয়ে এই বাংলার শাসক দল তৃণমূলকে চাপে রাখতে চেয়েছিল। কলকাতা হাইকোর্টের রায়ে সেই বিজেপির রথযাত্রা এখন প্রায় বিশবাঁও জলে। তবে সিঙ্গল বেঞ্চ বিজেপির এই রথযাত্রা নিয়ে অনিশ্চয়তার রায় দিলেও, গত শুক্রবার এই রথ যাত্রার ব্যাপারে বিজেপি

আদালতের রায়ে এখনই হচ্ছে না রথযাত্রা – তাই রথ বাঁচাতে আপাতত বাংলার বাইরে পাঠিয়ে ও থামিয়ে দেওয়া হল রথকে

স্বপ্ন ছিল, আশাও ছিল প্রচুর। কিন্তু আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে এই বাংলায় গেরুয়া ঝড় তুলতে উদ্যোগী বিজেপির রথযাত্রা কর্মসূচি অবশেষে একপ্রকার ভেস্তেই গেল কলকাতা হাইকোর্টের রায়ে। সম্প্রতি কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ বিজেপির এই রথযাত্রা নিয়ে রাজ্য সরকারের সঙ্গে বিজেপি নেতৃত্বকে একটি আলোচনায় বসার নির্দেশ দিয়েছেন। কিন্তু আলোচনা চললেও বাংলায় এই রথযাত্রার সম্ভাবনা

Top
error: Content is protected !!