এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "গেরুয়া শিবির"

গেরুয়া ঝড় থামাতে ভরসা সেই অনুব্রত মন্ডলই, আবার বিজেপিতে ভাঙন ধরিয়ে স্বস্তি দিলেন নেত্রীকে

লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের ভরাডুবি এবং বিজেপির উত্থান ঘটার পরেই রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় বিজেপি তাদের শক্তি বৃদ্ধি করতে শুরু করেছে। একদা বীরভূম জেলা তৃণমূলের শক্তঘাঁটি বলে পরিচিত হলেও এবং ভোটের ফলাফল প্রকাশে সেই জেলার দুটি লোকসভা আসনে তৃণমূল জিতলেও, বিভিন্ন জায়গায় শাসকদলের পরাজয় বা পিছিয়ে থাকা চোখে পড়ার মত। যা পরবর্তী

এবার কি বিজেপিতে যোগ দিতে চলেছেন নবনীত কৌর রানা? অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক ঘিরে জল্পনা

লোকসভা নির্বাচনে নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহের নেতৃত্বকে মান্যতা দিয়ে গোটা দেশ দুহাত ভোরে আশীর্বাদ করেছে বিজেপিকে। ফলে দ্বিতীয়বারের জন্য প্রধানমন্ত্রীর কুর্সিতে পুনরায় বসেছেন নরেন্দ্র মোদী, কেননা একক দল হিসাবে বিজেপি ৩০০-এরও বেশি আসন জিতে নিয়ে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে গেছে। কিন্তু, এরপরেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে বিরোধী দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদানের ধুম পরে গেছে।

মুকুল-শঙ্কুর হাত ধরে এবার খোদ কলকাতার বুকে তৃণমূলের যুব সংগঠনে বড়সড় ভাঙন ধরালো বিজেপি

লোকসভা নির্বাচনে বাংলা থেকে বিজেপি ১৮ টি আসন জেতার পরেই, রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে শাসকদল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদানের হিড়িক লেগেছে। রাজনৈতিক গুরু মুকুল রায় যখন তৃণমূলের মাদার সংগঠনকে ভেঙে ছিন্নভিন্ন করে দিচ্ছেন, তখন প্রিয়তম শিষ্য শঙ্কুদেব পণ্ডা একই দায়িত্ব নিয়ে নিয়েছেন তৃণমূলের ছাত্র ও যুব সংগঠনে থাবা বসাতে। এতদিন, শঙ্কুদেব পণ্ডার

টলিউডের মাঠে শঙ্কু নামতেই শঙ্কিত তৃণমূল? সামাল দিতে আসরে নামলেন হেভিওয়েট মন্ত্রী

বিগত বাম আমলের শেষের দিকে রাজ্যে পরিবর্তন আনতে সমাজের বিশিষ্ট জনেদের পথে নামিয়ে আন্দোলনকে এক অন্য মাত্রায় নিয়ে গিয়েছিল তৎকালীন বিরোধী দল তথা আজকের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। আর ইতিহাসের সব সময় পুনরাবৃত্তি হয়। তাই তো বর্তমান শাসক দল তৃণমূলের বিরুদ্ধে যখন বিরোধী দল হিসেবে রাজ্যে প্রবল আন্দোলন গড়ে তুলছে

৪০ বিধায়ক যোগে মোদীর প্রার্থীপদ বাতিল হলে দল ভাঙানোয় মুখ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ করা উচিত, দাবি বিজেপির

প্রিয় বন্ধু বাংলা এক্সক্লুসিভ - বাংলায় ক্রমশ জমে উঠছে ভোটযুদ্ধ - আর তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে বাকযুদ্ধ। চতুর্থ দফার নির্বাচন সবে শেষ হয়েছে, এখনো বাকি তিন দফার ভোটগ্রহণ। আর এই সময়ে এই বাকযুদ্ধ যে ক্রমশ আরও বাড়বে - তার ইঙ্গিত স্পষ্ট করছে যুযুধান দুই প্রতিপক্ষ তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপি

বিজেপির জয় নিশ্চিত, বহু আসনে তৃণমূল তৃতীয়! সুনীল দেওধরের গোপন রিপোর্টে খুশির হাওয়া গেরুয়া শিবিরে

এবারের লোকসভা নির্বাচনে দিল্লিতে পুনরায় ক্ষমতার ফেরার পাশাপাশি বাংলায় দুর্দান্ত ফলাফল করার ব্যাপারে বেশ আত্মবিশ্বাসী গেরুয়া শিবির। নির্বাচনের বহু দিন আগে থেকেই বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ দাবি করে আসছিলেন, বাংলা থেকে এবারে নাকি গেরুয়া শিবির কমপক্ষে ২২-২৩ টি আসন জিততে চলেছে। কিন্তু, বাংলায় বিজেপির সংগঠন এখনও সেভাবে পোক্ত হয়

বঙ্গ বিজেপির নবাগতরা কি আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে টিকিট পাবেন? পেলেও কে কোন আসন থেকে পেতে পারেন?

একদা রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের অঘোষিত দুনম্বর নেতা মুকুল রায় দলত্যাগ করে বিজেপিতে যোগদান করেন। আর গেরুয়া শিবিরে পদার্পন করেই তিনি হুঙ্কার ছেড়েছিলেন, তৃণমূল কংগ্রেসের সংগঠন আদতে নাকি উইয়ের বাসা! সময় এলেই দেখা যাবে তা ঝুরঝুর করে ভেঙে পড়ছে! যদিও মুকুল রায়ের সেই হুঙ্কারে কোনো রকম পাত্তা দেয় নি তৃণমূল

তিন আসনে প্রার্থী চূড়ান্ত – বাকি ৩৯ আসনের গেরুয়া শিবিরের প্রার্থীপদ নিয়ে ঝড় উঠতে চলেছে আজ

পরবর্তী লোকসভা নির্বাচনের জন্য বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলি সন্তপর্ণে ঢুকে পড়ছে 'ইলেকশন মোডে'। জাতীয় নির্বাচন কমিশন এখনও নির্বাচনের দিন নিয়ে কোনো ইঙ্গিত না দিলেও - বিভিন্ন সূত্রের খবর থেকে মনে করা হচ্ছে মার্চ মাসের প্রথম তিন দিনের মধ্যেই ঘোষণা হয়ে যেতে পারে নির্বাচনের দিন - চালু হয়ে যেতে পারে আদর্শ নির্বাচনী

জওয়ানদের শ্রদ্ধা জানানোর মিছিল নিয়েও সংঘর্ষ বিজেপি-তৃণমূলে, এই নিয়ে অন্তত রাজনীতি বন্ধ হোক দাবি সাধারণের

জওয়ানদের শ্রদ্ধা জানানোর মিছিলেও বাধ মানলো না তৃণমূল-বিজেপি লড়াই। দুই যুযুধান গোষ্ঠী সংঘর্ষে দু'পক্ষেরই ৬ জন আহত হলেন। তৃণমূল-বিজেপি দুই দলই এই ঘটনার জেরে একে অপরকে দোষারোপ করছে। গোটা ঘটনায় রীতিমতো উত্তেজনা ছড়িয়েছে শ্রীরামপুরের পিয়ারাপুরে। পুলওয়ামায় সিআরপিএফের কনভয়ে আত্মঘাতী হামলায় জওয়ানদের মৃত্যুতে কার্যত বাকরুদ্ধ গোটা দেশ। সাম্প্রতিক কালের সবথেকে বড়

তৃণমূল নেত্রীর চিন্তা বাড়িয়ে এবার প্রধানমন্ত্রীত্বের দৌড়ে ঢুকে পড়লেন এই হেভিওয়েট নেতাও

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে কেন্দ্র থেকে নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন বিজেপি সরকারকে হঠাতে মরিয়া বিরোধীরা। আর সেই লক্ষ্যে গত ১৯ শে জানুয়ারি কলকাতার ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ডে ২৩ দলের ২৬ জন শীর্ষনেতা উপস্থিত থেকে এক বিশাল জনসমাবেশে অংশগ্রহণ করেন। কিন্তু, সেই জোটকে তীব্র কটাক্ষ করে গেরুয়া শিবির প্রশ্ন তোলে - এই জোটের নেতা

Top
error: Content is protected !!