এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "ওয়েস্ট বেঙ্গল প্রাইমারি ট্রেন্ড টিচার্স অ্যাসোসিয়েশন"

শিক্ষাক্ষেত্রে ‘ইন্টার্ন’ নিয়োগ নিয়ে রাজ্যপাল থেকে শিক্ষামন্ত্রী, WBPTTA-এর জোড়া বড়সড় উদ্যোগ

গত ১৪ ই জানুয়ারী রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেন যে রাজ্যের শিক্ষাক্ষেত্রে শিক্ষকদের অপ্রতুল অবস্থা সামাল দিতে এবং রাজ্যের শিক্ষিত বেকার যুবক-যুবতীদের কথা ভেবে আগামীদিনে রাজ্যের প্রাথমিক থেকে উচ্চমাধ্যমিক স্তর পর্যন্ত ইন্টার্ন নিয়োগ করা হবে। আর, রাজ্যের প্রাথমিক স্কুলগুলিতে ইন্টার্নদের মাসিক ২,০০০ টাকা এবং উচ্চ-প্রাথমিকের ক্ষেত্রে ২,৫০০ টাকা করে ইন্টার্নশিপ দেওয়া

এখনো সময় আছে, সরকারি কর্মচারী ও শিক্ষকদের ন্যায্য প্রাপ্য মিটিয়ে দিন, অন্যথায় বৃহত্তর আন্দোলন: দিলীপ ঘোষ

দীর্ঘদিন ধরেই বকেয়া ডিএ ও কেন্দ্রীয়হারে বেতন না পেয়ে ক্ষোভের পরিমান আকাশ ছুঁয়েছে রাজ্যের সরকারি কর্মচারী ও শিক্ষকদের। দিকে দিকে বিভিন্ন সংগঠন বিভিন্নভাবে আন্দোলন করছে দলমত নির্বিশেষে। এমনকি, এই নিয়ে মুখ খুলে বদলি হতে হয়েছে শাসকদলের ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত একাধিক সরকারি কর্মচারী সংগঠনের নেতাকে। বিরোধীদের অবস্থাও তথৈবচ। আর এইসবের পরিপ্রেক্ষিতে বিজেপি

আজ ধর্মতলায় দিলীপ ঘোষের হাত ধরে মিলে যেতে চলেছে সরকারি কর্মচারী ও শিক্ষক আন্দোলন – জানুন বিস্তারিত

যত দিন যাচ্ছে ততই রাজ্য সরকারের 'বঞ্চনা' নিয়ে ক্ষোভ তীব্রতর হচ্ছে রাজ্যের লক্ষ লক্ষ সরকারি কর্মচারী ও শিক্ষকদের মধ্যে। একেই দীর্ঘদিন ধরে বকেয়া ডিএর পরিমান বাড়তে বাড়তে আকাশ ছুঁয়েছে - তার উপরে পে কমিশন নিয়ে রাজ্য সরকারের দীর্ঘসূত্রিতা ভেঙে দিয়েছে অতীতের সব রেকর্ড। এই অবস্থায় আজ ধর্মতলায় বিজেপি রাজ্য সভাপতি

রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকদের পিআরটি স্কেলের দাবিকে জোরদার করতে আগামীকাল বিজেপি-বাম-কংগ্রেসকে একমঞ্চে আনার প্রচেষ্টা

যতদিন যাচ্ছে ততই রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে নিজেদের 'বঞ্চনা' নিয়ে আন্দোলন জোরদার করছেন রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকরা। এর আগে, পিআরটি স্কেলের দাবিতে শহীদ মিনারের পাদদেশে প্রাথমিক শিক্ষকদের সংগঠন উস্থি ইউনাইটেড প্রাইমারি টিচার্স অ্যান্ড ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন বা ইউইউপিটিডব্লুএ অক্টোবরের শেষে দুদিন ব্যাপী মহা আন্দোলন করে ঝড় তুলে দিয়েছিল। সেই প্রথম শিক্ষকদের সমর্থনে রাজনৈতিক দূরত্ত্ব

শিক্ষক আন্দোলনে নয়া মোড়, দাবী না মানলে একযোগে অনাস্থা তিন প্রধান বিরোধী দলের

রাজ্যের শিক্ষক আন্দোলন ক্রমশ জোরালো হচ্ছে - ক্রমশ দানা বাঁধছে। দল মত নির্বিশেষে বহু শিক্ষক সংগঠন এগিয়ে এসে নিজেদের দাবির স্বপক্ষে জোরালো সওয়াল করছেন এবং একের পর এক আন্দোলনে নাজেহাল করে ছাড়ছেন রাজ্য সরকারকে। সবথেকে বড় কথা নিজেদের দাবির স্বপক্ষে তাঁরা পাশে পাচ্ছেন রাজ্যের প্রধান তিন বিরোধী দলকেই। এরকমই এক শিক্ষকদের

Top
error: Content is protected !!