এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বাড়ছে হিংসা, ক্রমাবনতি আইনশৃংখলার! স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে চাপ বাড়াতে চলেছেন বঙ্গ- বিজেপি সাংসদরা

বাড়ছে হিংসা, ক্রমাবনতি আইনশৃংখলার! স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে চাপ বাড়াতে চলেছেন বঙ্গ- বিজেপি সাংসদরা

লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে তৃণমূলের ভরাডুবি এবং বিজেপির প্রবল উত্থানের পর থেকেই একের পর এক জায়গায় রাজনৈতিক হিংসার ঘটনা ঘটতে থাকে। আর যার পরিপ্রেক্ষিতে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের সদর্থক ভূমিকা এবং আইনশৃঙ্খলা নিয়েই প্রশ্ন তুলতে শুরু করেন অনেকে।

সম্প্রতি সন্দেশখালির ন্যাজাটের ভাঙিপাড়া গ্রামে ব্যাপক রাজনৈতিক হিংসা এবং দুই বিজেপি কর্মীর মৃত্যুকে ঘিরে তোলপাড় হয়েছে রাজ্য রাজনীতি। যে ঘটনায় শাসক দল তৃণমূলের দিকেই অভিযোগের আঙুল তোলা হয়েছে। আর এই পরিস্থিতিতে সম্প্রতি রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করে রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা সম্পর্কে রিপোর্ট পেশ করেছেন।

যার ফলে বিভিন্ন মহলে গুঞ্জন উঠতে শুরু করে যে তাহলে কি এবার বাংলায় জারি হতে চলেছে রাষ্ট্রপতি শাসন! কিন্তু এই ব্যাপারে এখনও পর্যন্ত স্পষ্ট নির্দেশিকা পাওয়া না গেলেও বাংলা থেকে জয়ী বিজেপি সাংসদরা এবার রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলার ব্যাপারে সমস্ত বিষয় তুলে ধরে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে রিপোর্ট জমা দেওয়ার উদ্যোগ নিল।

হাতের মুঠোয় আরও সহজে প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে যোগ দিন –

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

জানা গেছে, সন্দেশখালির এই ঘটনার পরই সেই জায়গা পরিদর্শন করেছে বিজেপির সংসদীয় দল। আর এবার এই সমস্ত ঘটনার রিপোর্ট তারা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে জমা দিতে চলেছে বলে জানা গেছে। বিজেপি সূত্রের খবর, আগামী 13 জুন দিল্লিতে প্রতিটি রাজ্যের দলীয় সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদককে ডেকে পাঠানো হয়েছে। আর এই বৈঠকের পরই বঙ্গ বিজেপির তরফে বাংলার আইনশৃঙ্খলা নিয়ে সমস্ত রিপোর্ট দলের সর্বভারতীয় সভাপতি তথা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের হাতে তুলে দেওয়া হতে পারে।

প্রসঙ্গত, গত পঞ্চায়েত নির্বাচনের সময় থেকেই রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকদের দ্বারা বিজেপি কর্মীরা আহত হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলতে দেখা গিয়েছিল গেরুয়া শিবিরকে। কিন্তু সেই সময় তারা তাদের অভিযোগকে বেশি দূর নিয়ে যেতে না পারলেও লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় তাদের প্রবল শক্তি বৃদ্ধি হওয়ায় এবার বিজেপি রাজ্যের ক্রমশ অবনতি হওয়া আইনশৃঙ্খলা নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের দ্বারস্থ হতে চলেছে। তাহলে কি এবার রাজ্যপালের রিপোর্ট দেওয়ার পর তারা কেন্দ্রের কাছে রাজ্যের আইনশৃংখলার অবনতি হওয়ায় রাষ্ট্রপতি শাসনের দাবি জানাবেন?

এদিন এই প্রসঙ্গে বিজেপির কেন্দ্রীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা বলেন, “আমরা নির্দিষ্ট করে 356 ধারা বা রাষ্ট্রপতি শাসনের কোনো সুপারিশ করছি না। কিন্তু রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির ক্রমাবনতি দেখিয়ে তৃণমূল নিজেরাই ওই বিশেষ পরিস্থিতির সৃষ্টি করছে।” সব মিলিয়ে এবার রাজ্যে ক্রমাগত হিংসা বৃদ্ধি পাওয়া এবং রাজনৈতিক সংঘর্ষ নিয়ে কেন্দ্রের কাছে রিপোর্ট দিতে চলেছেন বঙ্গ বিজেপি সাংসদরা।

Top
error: Content is protected !!