এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > স্বামীজীর জন্মদিন উদযাপনে নেই স্বামীজীর ছবি, পোস্টারে জ্বলজ্বল করছে অভিষেক

স্বামীজীর জন্মদিন উদযাপনে নেই স্বামীজীর ছবি, পোস্টারে জ্বলজ্বল করছে অভিষেক

গতকাল ছিল স্বামী বিবেকানন্দের জন্মজয়ন্তী। আর এই উপলক্ষে বিভিন্ন জায়গায় বেরিয়েছিল তৃণমূলের শোভাযাত্রা। এই শোভাযাত্রায় স্বামী বিবেকানন্দকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন ট্যাবলোসমেত শোভাযাত্রা বের হয়। শোভাযাত্রার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত স্বামী বিবেকানন্দের ছবি, পোস্টার ইত্যাদি থাকে। কিন্তু এদিন অন্য ছবি দেখা গেল শিলিগুড়ি শহরে। স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিন উপলক্ষে বেরোনো ট্যাবলোতে স্বামী বিবেকানন্দের ছবি যেখানে থাকার কথা, সেখানে দলের যুবনেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এর ছবি দেখা যাচ্ছে। এই নিয়ে রাজনৈতিক মহলে তুমুল সমালোচনা শুরু হয়েছে।

এদিন স্বামীজীর জন্মদিন উপলক্ষে তৃণমূলের যে শোভাযাত্রা বের হয়, সেখানেই টোটো অটোর পেছনে একটি ফ্লেক্স দেখা যায়। ফ্লেক্সের নীচে বিবেকানন্দের জন্মজয়ন্তী লেখার সাথে তৃণমূল দলের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি রয়েছে। যেখানে স্বামী বিবেকানন্দের ছবি থাকার কথা, সেই জায়গায় রয়েছে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এর ছবি।ফ্লেক্সে কোথাও নেই স্বামী বিবেকানন্দের ছবি নেই। এই ঘটনার তীব্র নিন্দা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

রবিবার সকালে বাঘাযতীন পার্ক থেকে শুরু হয়ে হিলকার্ট রোড এর মাল্লাগুরিতে শেষ হয়। কিন্তু তার মধ্যেই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ফ্লেক্সের ছবিটি সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।কোনো কোনো জায়গায় আবার সেই ফ্লেক্সের পিকচার এডিট করে অভিষেককে স্বামীজীর মতো গেরুয়া বসন পরিয়ে তা রীতিমতো হাসি তামাসা করে বলা হচ্ছে যিনি হলেন তৃণমূলের স্বামীজী। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই নিয়ে চলছে জোর কটাক্ষ।

 

এই ঘটনায় শিলিগুড়ির সিপিএম বিধায়ক ও মেয়র অশোক ভট্টাচার্য জানিয়েছেন, ”ঘটনাটি দেখে, শুনে লজ্জা করছে। অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা। আমি এই শহরের একজন জনপ্রতিনিধি আর সেখানেই স্বামী বিবেকানন্দের জন্মজয়ন্তীতে কী কাণ্ডটাই না হল! আসলে ফ্লেক্সে যাঁরা ছবি আছে, উনিই হয়ত তৃণমূলের বিবেকানন্দ।” অন্যদিকে কংগ্রেসের এআইসিসি সদস্য তথা প্রদেশ কংগ্রেসের সম্পাদক সুবীন ভৌমিক জানিয়েছেন, ”বর্তমান সময়ে স্বামীজির নীতি, আদর্শ বেশি করে যুব সমাজের কাছে পৌঁছনো প্রয়োজন। তখন তৃণমূলের যুবরা এই বার্তা দিলেন। আমরা মর্মাহত।”

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিন স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিনের উপলক্ষে একটি শোভাযাত্রা বের হয় শিলিগুড়ির বাঘাযতীন পার্ক থেকে। এই শোভাযাত্রায় সম্মুখে ছিলেন দলের পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেব, জেলা সভাপতি রঞ্জন সরকার এবং তৃণমূলের যুব সভাপতি বিকাশ সরকার। সূত্রের খবর, এই শোভাযাত্রার সামনে ছিল বিবেকানন্দের ছবি এবং গাড়ি। কিন্তু পিছনের দিকে টোটো, অটো থাকায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ফ্লেক্সটি নজরে পড়েনি কারোর। অন্যদিকে, এদিন তৃণমূল কর্মীরা হেলমেট ছাড়া বাইক চালাচ্ছিলেন বলে অভিযোগ।

এ প্রসঙ্গে পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেব বলেছেন, ”আমি বিষয়টি দেখিনি। এমন কী হল দেখছি।” আর তৃণমূলের জেলা সভাপতি রঞ্জন সরকার জানিয়েছেন, ”ফ্লেক্স নিয়ে কী হয়েছে তা খোঁজখবর করছি।” অন্যদিকে, তৃণমূলের যুব সভাপতি বিকাশ দাবী করেছেন, ”স্বামীজির আলাদা ছবি, মুখ্যমন্ত্রীর ছবি, আমাদের সংগঠনের সভাপতির ছবিও র‌্যালিতে ছিল। কাউকে তো অসম্মান করা হয়নি। আর স্বামীজির সঙ্গে তো অন্য কারও ছবি দেওয়া যায় না। তাই সেখানে কী উপলক্ষ্যে র‌্যালি তা লেখা ছিল মাত্র। অকারণে এসব নিয়ে জলঘোলা করা হচ্ছে।”

এই ঘটনার কথা সামনে আসার সাথে সাথেই রাজনৈতিক মহলে ও সামাজিক স্তরে তুমুল সমালোচনা শুরু হয়েছে। রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে
তুমুল সমালোচনায় সামিল বিরোধী দলগুলিও। স্বামী বিবেকানন্দের পাশাপাশি একই আসনে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় আসায় ঘটনাটি নাড়িয়ে দিয়েছে সকল পশ্চিমবঙ্গবাসীকে। তবে এই মুহূর্তে এখনো পর্যন্ত এই ঘটনা নিয়ে তৃণমূলের উচ্চ মহলের তরফ থেকে কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। এই ঘটনায় রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, স্বামী বিবেকানন্দ সমাজের একজন মহান ব্যক্তিত্ব। তাঁর জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে অবশ্যই তাঁর ছবি থাকা উচিত। সে জায়গায় রাজনৈতিক মহলের কারোর ছবি যথেষ্ট চোখে লাগে। আপাতত সম্পূর্ণ বিষয়টি ওপর নজর রাখছে রাজ্যের ওয়াকিবহাল মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!