এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > শুভেন্দু অধিকারীর হুঁশিয়ারিকে ফুৎকারে ওড়ালেন অধীর রঞ্জন চৌধুরী

শুভেন্দু অধিকারীর হুঁশিয়ারিকে ফুৎকারে ওড়ালেন অধীর রঞ্জন চৌধুরী

শাসকদল ক্ষমতায় আসার পর থেকেই বিরোধীশূন্য বাংলা গড়ার ডাক দিয়েছিলো। কালে কালে বিভিন্ন নির্বাচন উপনির্বাচনে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতায় নিজেদের দাপট অব্যাহত রেখেছে ঘাসশিবির। আর এ কাজে মূখ্য ভূমিকা নিয়েছে ঘাসশিবিরের অন্যান্য শীর্ষস্থানীয় নেতাদের মতো রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রী তথা তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা শুভেন্দু অধিকারী। সেই শুভেন্দু অধিকারীর গুরুত্বকেই প্রকাশ্যে অস্বীকার করলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী। রাজনৈতিক সূত্রের খবর থেকে জানা গেছে, মালদহ ও মুর্শিদাবাদ এই দুটি জেলা বরাবরই ছিল কংগ্রসের আওতাধীন। কিন্তু জোড়াফুল দল ক্ষমতায় আসার পর থেকেই মালদহ কালে কালে তৃণমূলের দখলে চলে এসেছে। সেইসঙ্গে মুর্শিদাবাদ থেকেও কংগ্রেসকে ধুলিসাৎ করেছে শাসকদল। তৃণমূলের দাপট দেখে বিভিন্ন জায়গা থেকে বহু বিরোধীরা ঘাসফুল শিবিরের উন্নয়নে গা ভাসিয়েছেন। কিন্তু পরিসংখ্যা বলছে, দুই জেলা দুটোতে থাবা বসালেও লোকসভা আসনগুলো এখনো কব্জা করতে পারেনি শাসকদল। একটি ছাড়া বাকি সবগুলোতেই এখনো ছড়ি ঘোরাচ্ছে কংগ্রেস।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

পঞ্চায়েত নির্বাচনে ওই এলাকায় তৃণমূলের আশানুরূপ ফল হওয়ায় রমজান উপলক্ষে ইফতার পার্টির আয়োজন করেছিলো তৃণমূল। সেখানে শুভেন্দু বাবু তৃণমূলের দলীয় কর্মীদের উদ্দেশ্যে বললেন,”এই জেলায় জয়ী পঞ্চায়েত গুলোর মাধ্যমে মানুষের জন্য অনেক উন্নয়নমূলক কাজ করতে হবে। এই পঞ্চায়েতের উন্নয়নের মাধ্যমেই আমরা দিদিকে এই জেলার তিনটি লোকসভা আসন উপহার দিতে পারব।”

তবে শুভেন্দু অধিকারী এহেন ফাঁপা হুংকারকে গুরুত্ব দিতে নারাজ প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী। প্রসঙ্গত এদিন কোলকাতায় কংগ্রেসও ইফতার পার্টি আয়োজন করেছিলো। সেখানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তৃণমূল নেতার মন্তব্যকেই একরকম কটাক্ষ করলেন তিনি। জানালেন, কারোর উপহার দেওয়ার ইচ্ছে থাকলে নিশ্চয়ই দেবেন। তার ফলে পাল্টা উপহারও পাবেন। এগুলো নাকি চলতেই থাকে। এসবকে তেমন গুরুত্ব দেয় না হাতপার্টি। এরপর তিনি এই কথার সঙ্গেই ল্যাজ জুড়ে বলেন যে লোকভোটের সময় দেখা যায় কে কী উপহার পাচ্ছে! আসলে কংগ্রেসের প্রাণকেন্দ্র মুর্শিদাবাদের দুটিই রয়েছে কংগ্রেসের দখলে। এই দুটির ভিতর একটিতেও তো খোদ অধীরবাবুই সাংসদ। আর অন্য একটিতে উড়ছে লাল পতাকা। তাই লোকসভা ভোটের আগে তৃণমূলের এলাকাদখলের হুংকারকে অধীরবাবুর ফাঁপা ফানুসই মনে হল একরকম। রাজনৈতিক সুত্রের খবর আরো জানাচ্ছে যে, আগামী ১৩ তারিখ দিল্লিতে ইফতার পার্টির আয়োজন করেছে কেন্দ্রীয় কংগ্রেস দল। টানা দুবছর বাদে তাঁদের এই আয়োজন। এখানে উপস্থিত থাকতে পারেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি। তবে এ নিয়ে তাঁর প্রকাশ্য মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!