এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > ‘দাড়িভিট থেকে জিতে দেখাক বিজেপি’ চ্যালেঞ্জ ছুড়লেন শুভেন্দু অধিকারী

‘দাড়িভিট থেকে জিতে দেখাক বিজেপি’ চ্যালেঞ্জ ছুড়লেন শুভেন্দু অধিকারী

১৯’এর বিগ্রেড সমাবেশের প্রস্তুতি পর্ব জেলাস্তরে শুরু হয়ে গিয়েছে বেশ কিছুদিন আগেই। মুখ্যমন্ত্রী নিজে যেমন জেলা জেলায় প্রশাসনিক সভা করে উন্নয়নের বার্তা দেওয়ার পাশাপাশি তৃণমূলের সংগঠন চাঙ্গা করে বেড়াচ্ছেন, তেমনি দলীয় নেতৃত্বদের নির্দেশ দিয়েছেন জনসংযোগ তৈরি করার উদ্দেশ্য বিভিন্ন স্থানে সভা করতে।

নেত্রীর নির্দেশ অক্ষরে অক্ষরে পালন করার দায়িত্ব কাঁধে তুলে নিয়েছেন অনুব্রত মন্ডল, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, ফিরহাদ হাকিম এবং দলের অন্যান্য নেতৃত্বরা। বিগ্রেডে প্রতিটি জেলা থেকে রেকর্ড পরিমান মানুষ জমায়েত করার লক্ষ্যমাত্রা দিয়েছেন নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।

সেই লক্ষ্য পূরণেই জনসংযোগ তৈরি করার উদ্দেশ্যে গতকাল উত্তর দিনাজপুরের হেমতাবাদে কর্মীসভায় অংশ গ্রহণ করেন শুভেন্দু অধিকরী। বক্তব্য রাখতে গিয়ে তুলে ধরেন ইসলামপুর প্রসঙ্গ। ‘দাড়িভিট থেকে জিতে দেখাক বিজেপি’-এমনটাই চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিলেন তিনি।

ইসলামপুরের ছাত্রমৃত্যুর ঘটনা তুলে ধরে সভা থেকে গর্জে উঠেন শুভেন্দুবাবু। বললেন “মাস দুয়েক আগে এই ব্লকের পরিস্থিতি ভয়ানক ছিল। তৃণমূল দফায় দফায় এখানে এসে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেছে। মানুষের প্রয়োজন বুঝে পাশে দাঁড়িয়েছে। একবার নয়, তিনবার তৃণমূল এসেছে”।

এরপর স্থানীয় বাসিন্দাদের উদ্দেশ্য করে বললেন, ‘আজ আপনারা দেখতে পারছেন BJP-র কী অবস্থা হয়েছে এখানে। আজও আমি চ্যালেঞ্জ করে বলি, ইসলামপুর আর রায়গঞ্জ তো দূরের কথা দাড়িভিট গ্রাম থেকে লিড নিয়ে দেখাও। তাহলে কথা হবে’।

শুভেন্দুবাবু যুক্তিতে জানালেন, মাস চারেক আগেই দাড়িভিট গ্রামেই তৃণমূল প্রার্থী সুবোধ ঘোষ জিতেছেন। ২০০-র বেশি কর্মী এতোদিন পর মিছিল করেছেন এখানে। এরপর ১৯ এর বিগ্রেড সমাবেশের জন্যে ৬ জানুয়ারি বেলা ২ টোয় দাড়িভিটের মাঠে তৃণমূলের সমাবেশ করার কথা জানিয় দিলেন তিনি।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

ওদিন বিগ্রেডে যাওয়ার ডাক দাড়িভিটের সমাবেশ থেকেই হবে বলে ঘোষণা করলেন তৃণমূলের এই হেভিওয়েট নেতা। প্রসঙ্গত, সম্প্রতি বাংলা শিক্ষক নিয়োগের দাবীতে পুলিশের গুলিতে ছাত্রমৃত্যুকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়িয়েছিল দাড়িভিটে। এরপর থেকেই থমথমে হয়ে রয়েছে এলাকা।

অভিযোগের কাঠগড়ায় তোলা হয়েছে রাজ্য সরকারকে। দাড়িভিট স্কুল খুলতে বারবার বাধা দিয়েছে মৃত দুই ছাত্রের পরিবার। এই পরিস্থিতিতে এলাকার বিক্ষুব্ধ অবস্থা দমনে দাড়িভিটে সভা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী।

এদিনের হেমতাবাদের কর্মীসভায় রথযাত্রা নিয়েও বিজেপিকে কটাক্ষ করতে ভুললেন না তৃণমূলের এই প্রভাবশালী নেতা। তিনি আরও বললেন, ‘আমরা তো কোনওদিন দেখিনি রথে প্রস্রাব করা যায়, শৌচকর্ম করা যায়, স্নান করা যায়, ঘুমোনো যায়, ফূর্তি করা যায় ! আমরা কাঠের রথ দেখেছি। ২০৬টি কাঠ দিয়ে রথ বানানো হয়। থাকে কে ? জগন্নাথ, সুভদ্রা, বলরাম।’

নির্বাচনী প্রচারের উদ্দেশ্যেও রথযাত্রা হতে পারে এটা বোধহয় দেশের মানুষ প্রথমবার দেখছে বিজেপির সৌজন্যে। বিভেদের রাজনীতিকে উস্কে দিতেই এরকম রথযাত্রার পরিকল্পনা করেছে বিজেপি। বাংলায় কেবল সন্ত্রাস এবং সাম্প্রদায়িক বিভাজন চায় বিজেপি এমনটা বলেই এদিন মঞ্চ থেকে গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে গর্জে উঠলেন শুভেন্দু অধিকারী।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!