এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > সুনীল সিংহের তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান প্রসঙ্গে মুখ খুলে মমতাকে কটাক্ষ অর্জুনের

সুনীল সিংহের তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান প্রসঙ্গে মুখ খুলে মমতাকে কটাক্ষ অর্জুনের

লোকসভা নির্বাচনের দামামা বাজার পর ব্যারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রে তৃণমূলের তরফে দীনেশ ত্রিবেদীকে প্রার্থী করা হলে তা নিয়ে দলের অন্দরেই অসন্তোষ প্রকাশ করেন ভাটপাড়ার প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক অর্জুন সিংহ। কিন্তু শেষ পর্যন্ত দীনেশ বাবুর নামেই প্রার্থী হিসেবে শীলমোহর দেওয়ায় দলের বিরুদ্ধে গিয়ে দিল্লিতে বিজেপির সদর দপ্তরে বিজেপি নেতা মুকুল রায় ও কৈলাস বিজয়বর্গীয় হাত ধরে পদ্ম শিবিরে নাম লেখান তৃণমূলের অর্জুন সিংহ।

তারপর বিজেপির তরফে তিনি ব্যারাকপুরে দাঁড়ালে জয়লাভ করেন। আর এরপর থেকেই বিভিন্ন ইস্যুতে প্রাক্তন নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও প্রাক্তন দল তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে কড়া ভাষায় মন্তব্য করতে দেখা গেছে সেই ব্যারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংহকে।

এদিকে অর্জুনবাবু বিজেপিতে যোগদানের পরই উত্তর 24 পরগনার একাধিক পৌরসভার কাউন্সিলররা লোকসভা ভোটের ফল প্রকাশের পর থেকে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখাতে শুরু করেন। কিন্তু নোয়াপাড়ার বিধায়ক সুনীল সিং তথা অর্জুন সিংয়ের শ্যালক কবে বিজেপিতে যোগদান করবেন, তা নিয়ে এতদিন নানা মহলে নানা জল্পনা চলছিল। আর সমস্ত জল্পনাকে নিবৃত্ত করে সোমবার দিল্লিতে বিজেপির সদর দপ্তরে পদ্ম শিবিরের পতাকা নিজের হাতে তুলে নিলেন সুনীল সিংহ।

তবে কেন তিনি দলবদল করলেন! এদিন এই প্রসঙ্গে সুনীল সিংহ বলেন, “অভিষেক ব্যানার্জি যেভাবে পশ্চিমবঙ্গে সিন্ডিকেট করছেন, যে ভাবে ছেলেরা উৎপাত করছে, তাতে একটা বাড়ি করতে গেলে সিন্ডিকেটকে টাকা দিতে হবে, এই অনিয়ম আর বরদাস্ত করা যাচ্ছে না। তাই বিজেপিতে যোগ দিলাম।”

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিকে একের পর এক বিধায়ক তাদের দলে যোগ দেওয়ায় কিছুটা হলেও উচ্ছ্বসিত গেরুয়া শিবির। এদিন সুনীল সিংহের এই যোগদান পর্ব শেষে ফের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন ব্যারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংহ।

এদিন তিনি বলেন, “রাষ্ট্রপতি শাসনের প্রয়োজন নেই। ছমাস পরে এমনিই এই সরকার পড়ে যাবে। দিদিমনির বাজার শেষ।” আর অর্জুনবাবুর এই কথাতেই এবার শুরু হয়েছে জল্পনা। তাহলে কি এবার সত্যি সত্যিই নির্দিষ্ট সময়ের আগেই রাজ্যে হতে চলেছে বিধানসভা ভোট!

তবে বিজেপি নেতার এই দাবিকে গুরুত্ব দিতে নারাজ তৃনমূল। তাদের বক্তব্য, লোকসভায় কয়েকটি আসন পেয়ে বিজেপি বিধানসভা দখলের স্বপ্ন দেখছে। এসব করে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে ওরা কোনো লাভ করতে পারে না। তবে দিনের শেষে গেরুয়া শিবিরের অবশ্য দাবি, কি হবে তা সময়ই বলবে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!