এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > সুদীপ্তর ডাইরিতে মেলা প্রভাবশালীদের এবার জেরার পথে ইডি, নাম নিয়ে ছড়াচ্ছে জল্পনা

সুদীপ্তর ডাইরিতে মেলা প্রভাবশালীদের এবার জেরার পথে ইডি, নাম নিয়ে ছড়াচ্ছে জল্পনা

Priyo Bandhu Media


রোজভ্যালি কেলেঙ্কারিতে অভিযুক্ত হিসাবে অনেক আগেই নাম প্রকাশ্যে এসেছে সুদীপ্ত রায়চৌধুরীর। এক রোজভ্যালি আধিকারিককে অব্যাহতি পাইয়ে দেওয়ার নাম করে দু’কোটি টাকা নিয়েছেন সুদীপ্তবাবু,এই অভিযোগেই সিবিআইয়ের খপ্পরে পড়তে হয়েছিল সুদীপ্ত বাবুকে। তাকে জেরার সূত্র ধরে দফায় দফায় অনেক প্রভাবশালী ব্যক্তিত্বের নাম সামনে এসেছে।

শুধু তাই নয়,সুদীপ্ত বাবুর ডায়েরীর পাতাতেও বেশ কয়েকজন হেভিওয়েট কর্তাব্যক্তিদের নাম প্রকাশ্যে এসেছে। এবার তাঁদেরই জেরার জন্য তোড়জোড় শুরু করেছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। সিবিআইয়ের কড়া জেরা থেকে বাঁচতে ওই নামগুলো সামনে এনেছেন না সত্যিই এই প্রভাবশালী ব্যক্তিরা কোনো না কোনভাবে চিটফান্ড কেলেঙ্কারিতে যুক্ত,সেই বিষয়টি সঠিকভাবে খতিয়ে দেখতে ইচ্ছুক ইডি। একইসঙ্গে সুদীপ্ত বাবু কার কার টাকা পাচার করেছেন সেটা নিয়েও তদন্ত চলছে।

প্রসঙ্গত,সুদীপ্ত রায়চৌধুরীর নাম অভিযুক্ত হিসাবে প্রকাশ্যে আসলেই পুলিশি সক্রিয়তায় গ্রেফতার হন তিনি। তদন্তে নেমে সিবিআই তাঁর বসতবাড়ি সহ বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি চালিয়ে একাধিক কাগজ পত্র ঘেঁটে দেখে যে সুদীপ্ত বাবু একাধিকবার বিদেশ পাড়ি দিয়েছেন। এতোবার বিদেশে যাওয়ার কী প্রয়োজন? এই প্রশ্নের উত্তর না মেলায় সন্দেহ তৈরি হয়। পরে তা নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণ করে জানা যায় তিনি মোটা অঙ্কের টাকা বিভিন্ন সময় বিদেশে নিয়ে গিয়েছেন পাচারের স্বার্থে।

এই প্রেক্ষিতে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে বাড়ি থেকে উদ্ধার হওয়া দুটো ডায়েরি। তা ভালোভাবে খতিয়ে দেখে বেশ কয়েকটি প্রভাবশালী ব্যক্তিত্বের নাম হাতে আসে সিবিআইয়ের। তাঁদের সঙ্গে সুদীপ্ত বাবুর কোথায় দেখা হয়েছে,কী বিষয়ে কথা বলেছেন সেই তথ্যও লেখা রয়েছে ডায়েরিতে। শুধু তাই নয়,বেশ কয়েকজনের নামের পাশে মোটা টাকার অঙ্কও বসানো রয়েছে। এই টাকাই বিদেশে পাচার করা হয়েছে বলেই ধারণা ইডি কর্তাদের।

ইডি সূত্রের খবর,সুদীপ্ত বাবু তোলাবাজি করে যে বিপুল অর্থ সঞ্চয় করেছেন তার সিংহভাগ বিদেশে পাচার হয়েছে বলেই দাবী কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার। কারণ এই টাকাতেই বহু ফ্ল্যাট,সম্পত্তি কিনেছেন সুদীপ্ত বাবু। এখন তিনি ডায়েরীতে যেসব হেভিওয়েট নেতাদের নাম লিখে রেখেছেন,আবার নামের পাশে মোটা অংক লিখে রাখার অর্থ কী তার অর্থ বোঝায় চেষ্টায় রয়েছেন তদন্তকারী অফিসাররা। ঘনিষ্টদের মধ্যে বেশ কয়েকজন উপরিমহলের পুলিশ কর্তা,এবং রাজনৈতিক নেতা এমনটা জানা গিয়েছে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

তবে তাঁরা আদেও রোজভ্যালি কান্ডে অভিযুক্ত কিনা,সুদীপ্ত বাবুর সঙ্গে তাঁদের ঘনিষ্ঠতা ছিল কিনা এ ব্যাপারে যুক্তিযুক্ত প্রমাণ হাতে না পাওয়া পর্যন্ত তাঁদের নাম প্রকাশ্যে আনতে নারাজ কেন্দ্রীয় তদন্তকারী অফিসাররা। আপাতত এই ইস্যু নিয়ে কর্মতৎপরতা তুঙ্গে রয়েছে সিবিআই দপ্তরে। অন্যদিকে,সুদীপ্ত রায় চৌধুরীর ডায়েরির পাতায় কাদের নাম রয়েছে? এ প্রশ্নকে ঘিরে তীব্র গুঞ্জন শুরু হয়েছে রাজনৈতিকমহলে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!