এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে তৃণমূলকে জিতিয়েছে,বিজেপিকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না: সুব্রত

মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে তৃণমূলকে জিতিয়েছে,বিজেপিকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না: সুব্রত

“এবারের পঞ্চায়েত নির্বাচনে গোটা রাজ্যে সাধারণ মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে তৃণমূল কংগ্রেস সরকারকে জয়ী করেছে তাতে আমাদের দায়িত্ব আরও বেড়ে গিয়েছে। কারণ মানুষ এই সরকারের কাছ থেকে অনেক কিছুই প্রত্যাশা করে। যা বাম আমলে করার সাহস পেত না।” এমনভাবেই মা মাটি মানুষের সরকারের গুনগান করতে দেখা গেলো এদিন পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়কে। এর বিপ্রতীপে তিনি রাজ্য বিজেপিকে কটাক্ষ করলেন। বামেদের হারিয়ে বিজেপি সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে নিজেদের প্রধান বিরোধী হিসাবে প্রমাণ করলেও সেই জয়কে তেমন পাত্তাই দিলেন না সুব্রতবাবু।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

জানা যাচ্ছে,সুব্রতবাবু এদিন বাঁকুড়া যাবার পথে বর্ধমানেট নবাবহাটে জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি দফতরের বাংলোতে বিশ্রাম নিতে আসেন। তারপর নবাবহাটে তৃণমূলের বর্ধমান জেলা পরিষদে দ্বিতীয়বারের বিজয়ী প্রার্থী নুরুল হাসানকে জয়ের শুভেচ্ছা জানানোর জন্য অনুষ্ঠানে কিছুক্ষণ হাজিরা দেন। তাকে অভিনন্দন জানিয়ে মন্ত্রী পিঠ চাপড়ে এটাও বলেন যে এখানে গ্রামীন উন্নয়নের প্রচুর কাজ হয়েছে। তাঁর ভিতর উল্লেখযোগ্য হল রাস্তা,পুকুর সংস্কার এবং ১০০ দিনের কর্মসূচি। এর পাশাপাশি তিনি এবারের পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিজেপির ফলাফলের ভিত্তিতে বিজেপি বিরোধী মন্তব্যে সরব হন। জানান যে এবার নাকি ভোটের ফলাফলে বিজেপিকে কোথাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। এরপরই তিনি হুঁসিয়ারী মন্তব্যে সরব হয়ে বলেন “মানুষের প্রত্যাশার শেষ নেই। তাই সমস্ত প্রত্যাশস পূরণের জন্য রাজ্য সরকার সর্বদা চেষ্টা করতে হবে।” একইসঙ্গে তিনি এটাও জানান যে, রাস্তাঘাট,পানীয় জলের পরিষেবায় এমনকি অন্যান্য ক্ষেত্রগুলোতেও নাকি রাজ্য সরকার গত সাত বছরে অভাবনীয় উন্নতি করেছে। তবে উন্নয়নের পথে কাজ এখনো বাকি।

তিনি ঘাসশিবিরের প্রশংসায় সরব হয়ে আরো জানান যে সমগ্র রাজ্যের ভিতর পূর্ব বর্ধমান জেলায় নাকি সবথেকে বেশি উন্নয়ন হয়েছে। পূর্ব বর্ধমানের কালনা ও কাটোয়া মহাকুমার ৪-৫ টি জল প্রকল্পের পাইলট প্রজেক্টের কাজ চলছে। যেটি গোটা রাজ্যের মধ্য ১ থেকে ১০ ভিতর রয়েছে। এমনটাই জানা যাচ্ছে রাজনৈতিক সূত্রের খবর থেকে।

 

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!