এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > এবার শুভেন্দু অধিকারীর নেতৃত্ত্বে বয়স্ক পুরোহিতদের ভাতার পরিকল্পনা

এবার শুভেন্দু অধিকারীর নেতৃত্ত্বে বয়স্ক পুরোহিতদের ভাতার পরিকল্পনা

দীর্ঘদিন ধরেই রাজ্যবাসীর ক্ষোভ যে ইমাম-মোয়াজ্জেমদের ভাতা দেওয়া হয় কিন্তু বয়স্ক ব্রাক্ষ্মণ কিংবা পুরোহিতদের বেলায় রাজ্যসরকার কার্যত চোখ বুজে আছে। গতকাল মেচেদায় পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সনাতন ব্রাহ্মণ ট্রাস্টের রাজ্য সমাবেশে এনিয়ে খোলাখুলি কথা বললেন রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। তিনি জানান, কোনও নির্বাচিত সরকার নির্দিষ্ট কোনও ধর্মের মানুষের জন্য সরকারি টাকায় ভাতা দিতে পারে না। ইমাম-মোয়াজ্জেমদের ভাতা দেওয়া হয় ওয়াকফ বোর্ডের টাকায়। এই বিষয়ে কেউ কেউ বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করে, কিন্তু আমার, আপনার করের টাকায় এই ভাতা দেওয়া হয় না। আমি বিশ্বাস করি, বয়স্ক ব্রাক্ষ্মণ কিংবা পুরোহিত কর্মক্ষমহীন হয়ে পড়লে নিত্যদিন খাওয়া কিংবা ওষুধের জন্যও পরিকল্পনা রাখা উচিত। তাই আমি আগেও আপনাদের বলেছি, আবারো বলছি আপনারা সংগঠনের নিজস্ব ফান্ড তৈরি করুন, সেই ফান্ডের টাকা থেকে দরিদ্র ব্রাহ্মণ ও বয়স্ক পুরোহিতদের সাহায্য করা সম্ভব। আপনাদের পরিকল্পনা রূপায়ণে আমি নেতৃত্ব দেব।
এদিন শুভেন্দুবাবু মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হিন্দুধর্ম সম্পর্কে কতটা শ্রদ্ধাশীল এবং কতখানি ইতিবাক্যক মনোভাব রাখেন সেকথাও জানান। পরিবহনমন্ত্রী বলেন, এদিন কলকাতায় মুখ্যমন্ত্রীর প্রশাসনিক সভা ছিল, রবিবার যখন মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আমার ফোনে কথা হয়, তখন তিনি আমাকে প্রশাসনিক সভা বাদ দিয়ে এখানে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রী হিন্দু ধর্মের প্রগাঢ় সাধক, তিনি দশকের পর দশক যেমন উপবাস রেখে কালী মায়ের সাধনা করেন, তেমন দুর্গাপুজোর সময় চণ্ডীপাঠও করেন। বর্তমান সরকার কলকাতায় একটি সংস্কৃত বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে তুলেছে। স্বাধীনতার এতদিন পরেও যে বিষয়ে কোনও সরকার উদ্যোগ নেয়নি, আমাদের সরকারের তৈরি ওই পূর্ণাঙ্গ সংস্কৃত বিশ্ববিদ্যালয়ে ৫০০জন ছাত্রছাত্রী পঠনপাঠন করতে পারবেন। অনুমোদিত টোলগুলির উন্নয়নের পরিকল্পনা থাকলে আপনারা আমাদের জানান। অন্যদের মতো ঝগড়া ও বিবাদ না করে সবাইকে নিয়ে একসঙ্গে চলুন। কাউকে আক্রমণ করে নয়, আলাপ আলোচনার মাধ্যমে বিবেকানন্দের আদর্শ দ্বারা উদ্বুদ্ধ হয়ে এই প্রতিষ্ঠানকে এগিয়ে যেতে হবে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!