এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > রাজ্য পুলিশ দিয়েই ভোট চাইতে তৃণমূল, ছাপ্পা আটকাতে 100% বুথেই কেন্দ্রীয় বাহিনীর দাবি বিজেপির

রাজ্য পুলিশ দিয়েই ভোট চাইতে তৃণমূল, ছাপ্পা আটকাতে 100% বুথেই কেন্দ্রীয় বাহিনীর দাবি বিজেপির

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের প্রতিটি বুথেই যাতে কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে নির্বাচন করানো যায়, তার জন্য প্রথম থেকে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর পক্ষ থেকে আবেদন করা হলেও গতকাল প্রথম দফার নির্বাচনে কোচবিহার জেলায় প্রায় অনেক বুথেই সেই কেন্দ্রীয় বাহিনী না থাকায় একে অপরের বিরুদ্ধে তীব্র দোষারোপ করতে শুরু করল শাসক দল তৃণমূল এবং বিরোধী দল বিজেপি।

জানা গেছে, এদিন ভোটপর্ব শুরু হওয়ার পর থেকেই নাটাবাড়ি সহ বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে বেড়াতে দেখা যায় কোচবিহার জেলা তৃণমূলের সভাপতি তথা মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষকে। আর বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে বেড়ানোর সময় দলীয় কর্মীদের কাছ থেকে তিনি অভিযোগ পান যে, বিভিন্ন বুথে ইভিএম বিকল হয়ে যেতে শুরু করেছে। যার জেরে বিভিন্ন বুথে ভোট পর্ব স্থগিত হয়ে যাচ্ছে। আর এতেই কিছুটা ক্ষোভ উগড়ে দেন তিনি। এমনকি বিএসএফরা ভোটকেন্দ্রে ঢুকে গোটা নির্বাচনী ব্যবস্থাকে নিয়ন্ত্রন করছে বলেও এদিন অভিযোগ করেন জেলা তৃণমূল সভাপতি।

রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বলেন, “বর্ডার এলাকা থেকে খবর পেয়েছি সেখানে বুথের কাজে সীমান্তরক্ষী বাহিনী নাক গলাচ্ছে। একের পর এক ইভিএম খারাপ হয়ে যাচ্ছে। আমরা এসব ক্ষেত্রে চক্রান্তের গন্ধ পাচ্ছি। রাজ্য পুলিশ দিয়ে ভোট করালে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হত। আমরা দুটি বুথে পুননির্বাচন চাই।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

এদিকে জেলা তৃণমূল সভাপতি যখন কেন্দ্রীয় বাহিনীর একাংশের বিরুদ্ধে এবং বিএসএফের বিরুদ্ধে অভিযোগ শানাচ্ছেন, ঠিক তখনই রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের বিরুদ্ধে ছাপ্পা দেওয়ার অভিযোগ তুলে কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিক এবং কোচবিহার জেলা বিজেপির সভাপতি মালতি রাভা সহ বিজেপি নেতা কর্মীরা জেলা নির্বাচন কমিশনের দপ্তরে অভিযোগ জমা দেন। যেখানে কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের মোট 166 টি বুথের তালিকা তুলে ধরে সেখানে তৃণমূল ছাপ্পা মেরেছে বলেও অভিযোগ করেন তারা।

পাশাপাশি বেশ কয়েকটি বুথে পুনর্নির্বাচনের দাবি তুলে কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণি এবং বিজেপির কর্মী-সমর্থকেরা জেলাশাসকের দপ্তরে রাত পর্যন্ত ধরণা দেন বলেও জানা গেছে। এদিন সমস্ত বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী না থাকা প্রসঙ্গে কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিক বলেন, “কি কারণে সমস্ত বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী দেওয়া যায়নি তা আমাদের সত্যিই অজানা। তৃণমূলের হার্মাদরা সাধারন ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে আসতে বাধা দিয়েছে। যে সমস্ত জায়গায় রাজ্য পুলিশ দিয়ে ভোট হয়েছে, আমরা সেখানে পুনর্নির্বাচন চাই। আমরা এখানে জিতছি। কিন্তু গণতান্ত্রিকভাবে যাতে মানুষ কেন্দ্রীয় বাহিনীর পাহারায় সুষ্ঠুভাবে ভোট দিতে পারেন তার দাবিতেই আমরা আন্দোলনে নেমেছি।”

সব মিলিয়ে প্রতি বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী না থাকায় এবং বিক্ষিপ্ত অশান্তির ঘটনা ঘটায় কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের নির্বাচনে তৃণমূল বনাম বিজেপির অভিযোগ, পাল্টা অভিযোগে সরগরম রাজনীতি।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!